‘সীমান্তে ভারতের চেয়ে বেশি বিপদে নেই আর কোনো দেশ’

  অনলাইন ডেস্ক

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:৪৯ | অনলাইন সংস্করণ

ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল বি এস ধানোয়া

ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল বি এস ধানোয়া বলেছেন, ‘সীমান্তে ভারতের চেয়ে বেশি বিপদে নেই আর কোনো দেশ। পরমাণু অস্ত্রে শক্তিশালী দু-দুটি দেশ ভারতের প্রতিবেশী। চীন আর পাকিস্তান।’

বুধবার ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রধান বলেন, ‘দুটি দেশের সঙ্গেই রয়েছে ভারতের আন্তর্জাতিক সীমান্ত আর তার এলাকা নিয়ে রয়েছে মতবিরোধও। তাই প্রতিবেশীদের নিয়ে ভারতের উদ্বেগ অন্য দেশগুলোর তুলনায় অনেকটাই বেশি।’

ধানোয়া বলেন, ‘চিন ও পাকিস্তানের সঙ্গে দ্বিমুখী যুদ্ধের সম্ভাবনা নিয়ে আমাদের ভাবতে হয়। তাদের প্রস্তুতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হয়। কখন তাদের মতিগতি বদলে যাবে, বলা যায় না। তাই ওই প্রতিবেশীদের সামরিক প্রস্তুতির সঙ্গে ভারসাম্য বজায় রাখাটা আমাদের পক্ষে খুব জরুরি।’

ধানোয়া বলেন, ‘অনেকেই প্রশ্ন করেন, আমাদের তো পুরনো ‘মিগ-২১’ যুদ্ধবিমানের ৪২টি স্কোয়াড্রন রয়েছে। তা হলে নতুন যুদ্ধবিমানের দরকারটা কী? ওরা বুঝতে চান না, আমাদের প্রতিবেশীরা কেউই হাত গুটিয়ে বসে নেই। পাকিস্তান তাদের ‘এফ-১৬’ যুদ্ধবিমানগুলোকে আরও উন্নত করেছে। ঢেলে সাজিয়েছে ওই বিমানগুলোর ইলেকট্রনিক ব্যবস্থাকে। সেগুলোকে আগামী সাড়ে ৪ প্রজন্মের মানে উন্নত করে তুলেছে। তারই সঙ্গে চীনের কাছ থেকে প্রচুর পরিমাণে নিচ্ছে ‘জেএফ-১৭’ যুদ্ধবিমান।’

পরমাণু অস্ত্রে শক্তিশালী অন্য প্রতিবেশী চীন কীভাবে তার আকাশে লড়ার বিমান, অস্ত্র ও সরঞ্জামকে উন্নত করে চলেছে, তাও ব্যাখ্যা করেন ভারতের এয়ার চিফ মার্শাল।

ধানোয়া বলেন, ‘চীনও খুব দ্রুত তার দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রজন্মের যুদ্ধবিমানগুলোকে চতুর্থ প্রজন্মের প্রযুক্তিতে উন্নত করে ফেলছে। বানাচ্ছে পঞ্চম প্রজন্মের যুদ্ধবিমান, যেগুলো খুব শীঘ্রই চীন তার বিমানবাহিনীতে নিয়ে আসবে। ফলে, সীমান্তে আমাদের উদ্বেগটা বেড়ে গিয়েছে।’

৩৬টি ফরাসি ‘রাফাল’ যুদ্ধবিমান ও রুশ ‘এস-৪০০’ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা ভারতীয় বিমানবাহিনীতে এলে দুই শক্তিধর প্রতিবেশীর কাছ থেকে সম্ভাব্য হামলা মোকাবিলার জন্য অন্তত প্রস্তুত থাকা যাবে, এমনটাই দাবি এয়ার চিফ মার্শালের।

সূত্র: আনন্দ বাজার

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে