ভারতে আছড়ে পড়েছে 'তিতলি', নিহত ৮

  অনলাইন ডেস্ক

১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৪:২২ | আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ২০:০৬ | অনলাইন সংস্করণ

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় 'তিতলি' ভারতের ওড়িশার রাজ্যের গোপালপুরে আছড়ে পড়েছে। আজ বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ৬টায় ১৬৫ কিলোমিটার বেগে উপকূলে আঘাত হানে ঝড়টি। একই সময়ে ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্যে দুই জেলায় আটজনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।  

নিউ ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়, ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় তিতলির আঘাতে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীকাকুলাম ও বিজয়নগর জেলায় অন্তত আটজনের মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, এ দুই জেলাতেই বিদ্যুত ও যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সড়ক ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় উপকূলীয় গ্রামগুলোর সঙ্গে প্রধান শহরের যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ভারী বর্ষণে শ্রীকাকুলামে শত শত গাছপালা ও বিদ্যুতের খুটি উপড়ে পড়েছে বলে জানিয়েছে রাজ্যের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ (এসডিএমএ)।  

অন্যদিকে জলোচ্ছ্বাস ও প্রবল বৃষ্টিপাতের মধ্যেই ইতোমধ্যেই ওড়িশার পাঁচটি জেলা থেকে প্রায় তিন লাখ বাসিন্দাকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সব ধরনের আগাম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে প্রশাসন। সমুদ্র সৈকতে কাউকেই যেতে দেওয়া হচ্ছে না। ঝড়ের প্রভাবে বেশ কয়েকটি জায়গায় গাছ উপড়ে পড়েছে। বেহরামপুর থেকে গোপালপুরের মধ্যে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ভারী বর্ষণে কোথাও কোথাও বন্যা দেখা দিয়েছে।

ইতিমধ্যে উদ্ধারকর্মীদের দল পৌঁছেছে উপকূলবর্তী এলাকায়। চালু করা হয়েছে কন্ট্রোলরুম সেবা। ওড়িশা রাজ্যে এক হাজারের অধিক ত্রাণ ক্যাম্প চালু করা হয়েছে। ১০৫ জন গর্ভবতী নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশেষ ত্রাণ কমিশনার বিয়ানুপাদা শেঠি।

তিতলির প্রভাবে রাজ্যে আগামী চারদিন ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর।

চব্বিশ পরগনা, দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, হাওড়া, কলকাতা ও বর্ধমানে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছেন দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর। ওড়িশা উপকূল হয়ে 'তিতলি' ক্রমাগত দুর্বল হয়ে পশ্চিমবঙ্গের দিকে অগ্রসর হচ্ছে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে