sara

খাবার ও পানির অভাবে সাগরে ভেসে ১২ দিন, অতঃপর...

  অনলাইন ডেস্ক

০৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৩ | অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি
সাগরে ভেসে ছিলেন ১২ দিন। এ সময় মেলেনি কোনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানি। তাই প্রাণ দিতে হয়েছে ১৫ অভিবাসীকে।  বাকি ১২ জনকে উদ্ধার করা হলেও তাদের অবস্থা খুব খারাপ। ঘটনাটি ঘটেছে লিবিয়ার ভূমধ্যসাগর উপকূলে।

বেঁচে যাওয়া একজন অভিবাসী বলেন, ‘আমরা ২৫ জন ছিলাম। ১৫ জনই মারা গেছেন। ১২ দিন আমাদের কোনো খাবার বা পানি ছিল না।’

ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার সৈকতে ভেসে আসে অভিবাসীদের নৌকাটি। সেখানকার স্থানীয় একজন তাদের উদ্ধার করে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এর পর তাদের রেড ক্রিসেন্টের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয়রা জানান, উদ্ধারকৃত ১০ জনের শারীরিক অবস্থাও খুব খারাপ। তবে এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষ এখনও কোনো মন্তব্য করেনি।

২০১১ সালে লিবীয় নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফির পতনের পর থেকেই দেশটিতে অস্থিরতা শুরু হয়। মানবপাচারকারীদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ রুট হয়ে ওঠে ভূমধ্যসাগরের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় এই পথ।  জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা বলছে, এ বছরের জানুয়ারি থেকে জুলাই মাস পর্যন্ত এমন অভিবাসীদের প্রতি ১৮ জনের অন্তত একজন ডুবে মারা গেছেন অথবা নিখোঁজ হয়েছেন। যা ২০১৭ সালে ছিল প্রতি ৪২ জনে একজন।

ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে লিবিয়া হয়ে ইউরোপে যাওয়ার পথ যেন আগের থেকে আরও অনেক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। কারণ সমুদ্র পথে আসা এসব অভিবাসীদের সহায়তা দিয়ে থাকে এমন উদ্ধারকারী সংস্থার উপর ব্যাপক কড়াকড়ি আরোপ করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এমনকি এমন সংস্থার জাহাজের নিবন্ধন পর্যন্ত বাতিল করা হচ্ছে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে