sara

খাশোগি হত্যাকাণ্ড

যুবরাজকে ‘পাগল’ বললেন মার্কিন সিনেটর

  অনলাইন ডেস্ক

০৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১১:৫৫ | আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

সৌদি সাংবাদিক খাশোগি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের জড়িত থাকার বিষয়ে পুরোপুরি নিশ্চিত মার্কিন সিনেটররা। মঙ্গলবার সিআইএ প্রধানের সঙ্গে টানা কয়েকঘণ্টা রুদ্ধদ্বার বৈঠক শেষে এ মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ কক্ষের আইনপ্রণেতারা।

মঙ্গলবার এক ব্রিফিংয়ে ক্ষমতাসীন রিপাবলিকান পার্টির সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম সৌদি যুবরাজের তুমুল সমালোচনা করে জানান, সাংবাদিক খাশোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি যুবরাজ জড়িত বলে তার ‘প্রবল বিশ্বাস’ রয়েছে। এ সময় তিনি সৌদি পরিবারকে ‘অক্ষম বল’, ‘পাগল’ ও ‘ভয়ানক’ বলে আখ্যা দিয়েছেন।

গত মাসে তুরস্কের তদন্তকারী কর্মকর্তাদের কাছ থেকে খাশোগি হত্যার অডিও রেকর্ড শুনেছেন সিআইএ প্রধান গিনা হ্যাসপেল। এ নিয়ে মঙ্গলবার তার এ সংক্রান্ত ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন সিনেটরা।

গত অক্টোবরে ইস্তানবুলে সৌদি কনস্যুলেটে খাশোগিকে কেটে টুকরো টুকরো করার কথা স্মরণ করে সিনেটর গ্রাহাম বলেন, ‘সেখানে ধোয়াওঠা বন্দুক নয়, সেখানে ছিল ধোয়া ওঠা করাত।’

তিনি আরও বলেন, ‘ইয়েমেন যুদ্ধে সৌদি আরবের সম্পৃক্ততা অথবা সৌদি সরকারকে অস্ত্র বিক্রয়ে সমর্থন করা যাবে না যতদিন যুবরাজ ক্ষমতায় থাকবেন।’

অপর সিনেটর বব মেনেনদেজ সৌদি যুবরাজ ‘বিকৃত মস্তিষ্ক’র বলে মন্তব্য করেন।

রিপাবলিকান পার্টির অপর সিনেটর বব করকার বলেন, যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানই যে এ হত্যাকাণ্ডের নির্দেশ দিয়েছেন এবং এটি পর্যবেক্ষণ করেছেন এ ব্যাপারে আমার মাথায় ‘শূন্য’ প্রশ্ন রয়েছে। তিনি আরও বলেন, বিচারের মুখোমুখি হলে ৩০ মিনিটের মধ্যে তাকে দোষী সাব্যস্ত করা সম্ভব।’ 
রিপাবলিকান এক সিনেটর বলেন, ‘এখন প্রশ্ন হচ্ছে, আপনি কীভাবে সৌদি ক্রাউন যুবরাজ ও তার দলকে জাতি থেকে আলাদা করবেন।’

ব্রিফিংয়ে ইয়েমেনে সৌদি জোটের সামরিক আগ্রাসন বন্ধে যুক্তরাষ্ট্রকে মিলিটারি সেবা না দেওয়ার বিষয়ে একটি বিল উপস্থাপনের পরিকল্পনা করছেন সিনেটররা।

এদিকে শুরু থেকেই তুরস্কের তদন্ত কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, গত ২ অক্টোবর ইস্তানবুলের সৌদি কনস্যুলেটে খাশোগিকে হত্যা করতে সৌদি যুবরাজ তার দেহরক্ষীসহ ১৫ সদস্যের কিলিং স্কোয়াডকে তুরস্কে পাঠানো হয়। খাশোগি সেখানে প্রবেশের পরই তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর তার মরদেহ টুকরো টুকরো করে তা নিশ্চিহ্ন করতে এসিডের মাধ্যমে গলিয়ে ফেলে। আর এর জন্য মাত্র সাত মিনিট সময় নেন তারা। পুরো ঘটনাটির একটি অডিও তুরস্কের তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছে আছে বলে দাবি করেছেন তারা।

খাশোগি নিখোঁজ হওয়ার ১৭ দিন পর নানা টালবাহানার পর সৌদি অ্যাটর্নি জেনারেল শেষ পর্যন্ত স্বীকার করতে বাধ্য হন খাশোগিকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। সম্প্রতি সৌদি কর্তৃপক্ষ খাশোগি হত্যায় জড়িত ১১ ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করেন। এদের মধ্যে পাঁচ জনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তারা।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে