মেয়েরা কেন বেশি নিঃসঙ্গতায় ভোগেন?

  অনলাইন ডেস্ক

০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৫৯ | আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৯:৩৭ | অনলাইন সংস্করণ

ছবি : গেটি ইমেজ

কিশোর বা তরুণদের চেয়ে কিশোরী ও তরুণীদের মধ্যে একাকীত্বে ভোগার সম্ভাবনা বেশি থাকে বলে সাম্প্রতিক এক গবেষণায় প্রকাশিত হয়েছে।

বৃটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাজ্যের জাতীয় পরিসংখ্যান সংস্থা ‘অফিস অব ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিকস’ এর এক জরিপে উঠে এসেছে যে, ব্রিটেনের প্রতি ১০ জন তরুণের একজন একাকীত্বে ভোগেন।

গবেষণা অনুযায়ী, একাকীত্বকে ‘ব্যর্থতা’ হিসেবে ধরে নেওয়া হবে বলে তরুণরা এটিকে ‘লজ্জাজনক’ বলে মনে করেন।

অনেক তরুণই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমকে বেছে নিয়েছেন তাদের এই একাকীত্ব লুকানোর একটি পথ হিসেবে। তারা ভান করে যে, তারা নিঃসঙ্গ বোধ করেন না।

যুক্তরাজ্যের ওই পরিসংখ্যান সংস্থার মতে, ১০ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের ১১ শতাংশ প্রায়ই নিঃসঙ্গ বোধ করে এবং ৩৪ শতাংশ মাঝেমধ্যে নিঃসঙ্গ বোধ করে। আর একাকীত্বে ভুগতে থাকা এই তরুণদের মধ্যে ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের সংখ্যাই বেশি।

কেন এই নিঃসঙ্গতা?

ওই গবেষণায় মানুষের মধ্যে একাকীত্ব বোধ তৈরির কারণ খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হয়েছে। গবেষণায় দেখা যায়, একাকীত্বে ভোগার অন্যতম প্রধান কারণ কিশোর ও তরুণ বয়সে বয়ঃসন্ধিকালীন বিভিন্ন ঘটনা।

প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক স্কুলে ওঠার সময়, মাধ্যমিক থেকে উচ্চ মাধ্যমিকে ওঠা এবং পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশের সময় নিঃসঙ্গতা বোধ করার সম্ভাবনা বাড়ে। আর ছোট শহর বা গ্রামে বাস করা তরুণদের চেয়ে শহরে বেড়ে ওঠা তরুণদের নিঃসঙ্গতায় ভোগার প্রবণতা বেশি বলেও ওই গবেষণায় বলা হয়। এ ছাড়া আর্থিকভাবে অপেক্ষাকৃত অসচ্ছল তরুণদেরও একাকীত্ব বোধ করার সম্ভাবনা বেশি থাকে বলে উল্লেখ করা হয় গবেষণার প্রতিবেদনে।

অসুস্থতা, পারিবারিক সমস্যা, প্রিয়জন বা কোনো আত্মীয়ের মৃত্যু বা হেনস্থার শিকার হলেও একাকীত্ব বোধ তৈরি হওয়া সম্ভব থাকে। আর সমাজের মানুষের কাছে একাকী হিসেবে পরিচিত হতে চাওয়ার ভয়কেও একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা বলে উল্লেখ করা হয়েছে গবেষণায়।

সমাজের মানুষের কাছে নিঃসঙ্গ হিসেবে পরিচিত হওয়া বিব্রতকর একটি বিষয় হিসেবে বিবেচনা করা হয়, কারণ এর ফলে মানুষ ওই ব্যক্তিকে সামাজিকভাবে অনাকর্ষণীয় বা মানুষের অপছন্দের চরিত্র হিসেবে মনে করতে পারে বলেও গবেষণায় উঠে আসে।

সামাজিক মাধ্যমে অভিনয়

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম যেমন প্রিয়জনের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রাখার একটি মঞ্চ হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে, তেমনি মানুষের একাকীত্ববোধ লুকানোর একটি মাধ্যম হিসেবেও ব্যবহার করা হতে পারে।

গবেষণার জন্য যেসব তরুণদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে তাদের অধিকাংশই মনে করেন সামাজিক মাধ্যমে প্রকৃত বন্ধুত্ব নয়, বরং সৌজন্যমূলক বাক্যালাপ হয়ে থাকে, যার ফলে নিজেদেরকে অন্যদের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন মনে করে তরুণরা।

এ বছরে একাকীত্ব নিয়ে বিবিসি পরিচালিত এক জরিপে সারা পৃথিবী থেকে ৫৫ হাজারের বেশি মানুষ অংশ নেয় এবং জরিপে অংশ নেওয়া ১৬ থেকে ২৪ বছর বয়সী তরুণদের প্রায় ৪০ শতাংশই ‘প্রায়শই’ বা ‘প্রতিনিয়তই’ নিঃসঙ্গ বোধ করে বলে জানায়।

ওই জরিপে উঠে আসে যে, একাকীত্ব দূর করার লক্ষ্যে ‘ডেটিং’ কে সবচেয়ে অকার্যকর সমাধান বলে মনে করে তরুণরা।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে