দেশে প্রথম রিমোট মেডিকেল স্ক্রাইব ডিগ্রি দিল অগমেডিক্স

  অনলাইন ডেস্ক

০৬ নভেম্বর ২০১৭, ১৬:৪২ | অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গুগল গ্লাস স্টার্টআপ ও স্বাস্থ্যসেবা কোম্পানি অগমেডিক্স বাংলাদেশে প্রথম রিমোট মেডিকেল স্ক্রাইব ব্যাচের ২১ জন শিক্ষার্থীকে ডিগ্রি প্রদান করেছে। রোববার রাজধানীর ঢাকা কাবে আয়োজিত অনুষ্ঠানের সহযোগিতায় ছিল তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের এলআইসিটি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমসিএম বিভাগ।

অনুষ্ঠান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমদে পলক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এবং স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তপন চৌধুরী।

জুনাইদ আহমদে পলক বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশকে বিশ্বে প্রতিনিধিত্ব করছে অগমডেক্স। আইসিটি ডিভিশন ১০০ স্ক্রাইব তৈরি করেছে। এর মধ্যে অগমডেক্স ২০ জনকে নিয়োগ দিয়েছে। ২০১৮ সালে অগমডেক্স আরো ৫০০ স্ক্রাইব নিয়োগ দেবে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের ২০২১ সালের মধ্যে আইসিটিতে পাঁচ বিলিয়ন রপ্তানি লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। এই খাতে আমরা ২০ লাখ তরুণকে কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দেবো।

দেশের বিদ্যমান হাইটেক পার্কগুলোতে অগমডেক্সকে জায়গা বরাদ্দ নেয়ার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, অগমডেক্স হলো বাংলাদেশের ফাগশিপ। প্রতিষ্ঠানের সাফল্যগাঁথা ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা তুলে ধরেন অগমেডিক্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহ-প্রতিষ্ঠাতা ইয়ান শাকিল। এছাড়াও অগমেডিক্স বাংলাদশেরে কান্ট্র ডিরেক্টর রাশেদ মুজিব নোমান সবার সাথে বাংলাদেশের দৃষ্টিকোণ থেকে কো¤পানির মিশন, ভীষণ ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা আর স্ক্রাইব পেশার সম্ভাবনা স¤র্পকে আলোচনা করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, খুব শিগগির স্বাস্থ্যসেবায় স্ক্রাইব পেশার বিপ্লব ঘটতে চলেছে। বাংলাদেশে এই পেশার ব্যাপক সম্ভাবনার দ্বার উন্মেচিত হতে চলেছে। শুধু তাই নয়, অগমেডিক্স দেশের অনেক তরুণ-তরুণীকে পৃথিবীর অনেক সেরা চিকিৎসকের সাথে কাজ করার সুযোগ তৈরি করে দিচ্ছে যা ভবিষ্যতে তাদের ক্যারিয়ারে অপর সম্ভাবনা বয়ে আনবে। আমাদের স্থানীয় স্বাস্থ্যখাতেও এই জ্ঞান কাজে লাগানো যাবে। অগমেডিক্সকে আরও সংহত করার মাধ্যমে তারাও অগমেডিক্সে নিজেদের আরও ভালো অবস্থান তৈরি করতে পারবেন।

আমেরিকান স্বাস্থ্যসেবার এই জ্ঞান তারা বিভিন্ন অবস্থানে ব্যবহার করতে পারবেন। স্ক্রাইবরা সপ্তাহে ৪-৫ দিন কাজ করেন, আর এখানে অফিসের কাজ বাসায় নিয়ে যাবার কোন ব্যাপার নেই। তাদের ভালো পারিশ্রমিক, হেলথ ইন্স্যুরেন্স, ফেসটিভাল বোনাস, খাবার ও যাতায়াত সুবিধা দেয়া হয়। একজন স্ক্রাইব ভবিষ্যতে সিনিয়র স্ক্রাইব, স্ক্রাইব ট্রেইনার, টিমলিডার, কোয়ালিটি স্পেশালিস্ট, ম্যানেজার থেকে শুরু করে আরো অনেক উচ্চ পদে যেতে পারেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে