যে কথা যায়না বলা সহজে

  অনলাইন ডেস্ক

১৯ নভেম্বর ২০১৭, ১৪:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

স্বামী, স্ত্রী। সুখী দাম্পত্য। যে সম্পর্কে স্বচ্ছতা ও সততার অবস্থান অতি জরুরি। একইসঙ্গে যার যার অবস্থানে পরিষ্কার থাকাটাও বাঞ্ছনীয়। কিন্তু তারপরও একটা কথা থেকেই যায়। সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে কোন না কোন কারণে আমাদের মিথ্যা বলতেই হয়। এই মিথাটা কিন্তু সবসময় ক্ষতিকর নয়। আসলে প্রত্যেক মানুষের জীবনেই কিছু গোপনীয়তা থাকে। আর এই গোপন বিষয়গুলো তারা একান্ত নিজের মধ্যে রাখতে চান। তাইতো নিজেকে আড়ালে করতেই এই মিথ্যাটুকু বলতে হয়। হাজার চেষ্টা সত্ত্বেও অপ্রিয় কিছু সহজ সত্য মানুষ চাইলেও প্রিয়জনের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিতে পারে না।

এক্ষেত্রে অবশ্য বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, দম্পতিদের মধ্যে এমন কিছু গোপনীয়তার রয়েছে, যেগুলো স্বামী-স্ত্রী উভয়েই পরস্পরের কাছ থেকে গোপন রাখতে চান। এগুলো সহজ কথা হলেও কেউই পরস্পরের কাছে প্রকাশ করতে চাননা।  

এই গোপন সত্যিগুলো স্বামী ও স্ত্রীর মুখের প্রত্যক্ষ উক্তিতেই প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। এগুলো হলো-

স্বামীর উক্তি

# মাঝে মধ্যেই খেলা বা তাসের আসরে জুয়াড়ি হয়ে উঠি। আমার স্ত্রীর এ সম্পর্কে কোনো ধারণাই নেই।

# আমাদের ১০ বছরের সংসার। কিন্তু যৌনজীবনে স্ত্রী যে তৃপ্তি পাওয়ার অভিনয় করে তা আমি বুঝি। কিন্তু এ নিয়ে কথা বলতে চাই না আমি।

# ফোন সেক্সে আসক্ত আমি। কিন্তু বিষয়টি জানে না আমার স্ত্রী।

# স্ত্রী একটা সন্তান চান। কিন্তু আমি চাই না। তাই আমি গোপনে জন্মনিয়ন্ত্রণ ভ্যাক্সিন পদ্ধতি গ্রহণ করেছি।

# বছর দশেক আগেই বিয়ের আংটি হারিয়েছি আমি। হুবহু আরেকটি কিনে নিয়েছি। কিন্তু জানে না আমার স্ত্রী।

# আমার কয়েকটা গাড়ি, কয়েকটা বাড়ি আর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। এসব জানে না আমার স্ত্রী।

# স্ত্রী জানেই না যে মাঝে মধ্যে তার অন্তর্বাস ব্যবহার করি আমি। কারণ আমার ভালো লাগে।

# কেবলমাত্র আমার সাহসিকতার ওপর ভিত্তি করে বিয়েটা দাঁড়িয়ে রয়েছে, এটা আমার স্ত্রী জানে না।

# আমার মধ্যে সমকামিতা রয়েছে এবং এ কথা স্ত্রী জানে না।

# স্ত্রী জানে না যে, বিয়ের আগে কিছু বাজে কাজে জড়িত ছিলাম আমি।


স্ত্রীর উক্তি

# আমাদের প্রথম সন্তানের নামের একটি অংশ আমার আগের প্রেমিকের নামে রেখেছি। বিষয়টা জানে না আমার স্বামী।

# স্বামীকে কখনো বলিনি যে, গত দুই বছর ধরে বেদনানাশক ওষুধ খাই আমি।

# আগে প্রায়ই হাসপাতালে যেতে হতো আমাকে। আমার কিছু শারীরিক সমস্যা রয়েছে। কিন্তু কখনো বলিনি স্বামীকে। কারণ অসুস্থ হওয়ার কারণে সে আমাকে ছেড়ে দিতে পারে।

# জন্মবিরতিকরণ পিল খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি আমি। কিন্তু জানে না আমার স্বামী।

# হাইস্কুলে এক ছেলের কারণে গর্ভবতী হয়ে পড়ি আমি। কিন্তু এ ঘটনা স্বামী জানে না। তার হৃদয়টা ভেঙে দিতে চাই না। তবে এ ঘটনায় আমার হৃদয় ভেঙে গেছে।

# স্বামী জানে না যে তার এক ভাইয়ের সঙ্গেও সম্পর্ক ছিল আমার।

তথ্যসূত্র : হাফিংটন পোস্ট।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে