ত্বকের যত্ন ছাড়াও ভ্যাসলিনের ভিন্ন ব্যবহার

  অনলাইন ডেস্ক

৩০ নভেম্বর ২০১৭, ১১:০০ | আপডেট : ৩০ নভেম্বর ২০১৭, ১১:৫৫ | অনলাইন সংস্করণ

শীতকালে বাতাসের আর্দ্রতা কম থাকায় ত্বক রুক্ষ-শুষ্ক হয়ে পড়ে। এ সময় ত্বকে আর্দ্রতার ঘাটতি পূরণে ভ্যাসলিনের জুড়ি মেলার ভার। পেট্রোলিয়াম জেলি বা ভ্যাসেলিন আমরা সবাই চিনি। সেইসঙ্গে এটাও জানি, ভ্যাসলিন ত্বককে নরম ও মসৃণ করে। কিন্তু আপনি জানেন কী, এই প্রসাধনীটি ত্বকের যত্ন ছাড়াও আপনার দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন কাজে কতটা গুরুত্বপূর্ণ?

ত্বকের যত্ন ছাড়াও ভ্যাসলিনের কিছু ভ্ন্নি ব্যবহার-

ঠোঁটের যত্নে

ভ্যাসলিন ঠোঁটের জন্য খুব ভালো এক্সফলিয়েটর হিসেবে কাজ করে। নরম ও সুন্দর ঠোঁট পেতে ঠোঁটে ভ্যাসলিন লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর একটি টুথব্রাশ দিয়ে হালকা করে ঘষুন। এরপর নরম একটি কাপড় দিয়ে ঠোঁট মুছে ধুয়ে ফেলুন। এটি ঠোঁটের মরা কোষ দূর করে ঠোঁটকে নরম করে।

পারফিউমের গন্ধ ধরে রাখতে

পারফিউম দেওয়ার আগে হাতে বা গলায় ভ্যাসলিন লাগিয়ে সেখানে পারফিউম স্প্রে করুন। এটি অনেকক্ষণ পর্যন্ত পারফিউমের সুগন্ধ ধরে রাখতে সাহায্য করে।

চোখের পাপড়ি ঘন করতে

চোখের পাপড়ি ঘন ও লম্বা করতে ব্যবহার করতে পারেন ভ্যাসলিন। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে চোখের পাপড়িতে ভ্যাসলিন লাগান এবং সকালে ধুয়ে ফেলুন।

আংটি খুলতে

হাতের আঙ্গুলে টাইট হয়ে লেগে থাকা আংটি খুলতে সেখানে ভ্যাসলিন লাগান। সহজেই খুলে যাবে আংটি।

মেকআপ রিমুভার

মেকআপ রিমুভার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন ভ্যাসলিন। সেক্ষেত্রে একটি তুলার মধ্যে ভ্যাসলিন নিয়ে মুখে ধীরে ধীরে ঘষে মেকআপ তুলু্ন। এরপর ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

দাগ তুলতে

কাপড় থেকে মেকআপের দাগ তুলতে ধোয়ার আগে সেখানে ভ্যাসলিন লাগান। ধীরে ধীরে দাগ উঠে যাবে।

গোড়ালির ফাটা রোধে

হাতের কনুই এর খসখসে চামড়া নরম ও মসৃণ করতে বা গোড়ালির ফাটা রোধ করতে সেখানে নিয়মিত ভ্যাসলিন লাগান।

নখের ভাঙা রোধে

নখ ভাঙ্গা থেকে রক্ষা পেতে এবং নখকে শক্ত করতে ভ্যাসলিনের সঙ্গে গ্লিসারিন মিক্স করে নখে লাগান। অথবা শুধু ভ্যাসলিনও ব্যবহার করতে পারেন।

চুলের আগা ফাটা রোধে

চুলের আগা ফাটা রোধ করতে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে চুলের আগায় একটু ভ্যাসলিন লাগিয়ে নিন। ধীরে ধীরে চুলের আগা ফাটা কমে যাবে।

ময়েশ্চারাইজার হিসাবে

যাদের ত্বক খুব বেশি শুষ্ক তারা ময়েশ্চারাইজার হিসেবে ভ্যাসলিন ব্যবহার করতে পারেন। এটি ত্বককে প্রয়োজনীয় ময়েশচার করে ত্বককে নরম করে।

কানে দুল পরতে

যাদের কানের দুল পরতে সমস্যা হয় বা কানের ছিদ্রে ব্যথা অনুভব করেন তারা পরার আগে সেখানে ভ্যাসলিন মেখে নিন। তাহলে খুব সহজেই কানের দুল পরতে পারবেন এবং ব্যথা থেকে মুক্তি পাবেন।

জুতার উজ্জলতা বৃদ্ধিতে

জরুরি কোন কাজে পরিপাটি হতে হবে কিন্তু হাতের কাছে সু পলিশ নেই। কোন চিন্তা নেই! সামান্য ভ্যাসেলিন নিয়ে জুতা ভাল করে কাপড় দিয়ে মুছে নিন। নতুনের মত ঝকঝকে হয়ে যাবে।

চুলের রঙের দাগ তুলতে

অনেক সময় সাদা চুল কালো রঙ করতে গিয়ে কপালে, কানে এসব স্থানে লেগে যায়। সেই দাগ সহজে তোলাটাও কষ্টকর হয়ে যায়। তখন সামান্য কিছুটা ভ্যাসলিন নিয়ে লেগে থাকা দাগের উপর লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন। দাগ উঠে যাবে।

মরিচা প্রতিরোধে

লোহার তৈরি নানান টুলসে প্রায়ই মরিচা পড়ে। ভ্যাসলিন ব্যবহার করে সহজেই এ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। কারণ ভ্যাসলিনের আস্তরনটির কারণে পানি ধাতুর সংস্পর্শে আসবে না। তাই মরিচাও পড়বে না!

আটকে যাওয়া ক্যাপ খুলতে

নেইল পলিশের ক্যাপ খোলা নিয়ে প্রায়ই সমস্যায় পড়তে হয়। এটি থেকে মুক্তির জন্যে বোতলের মুখে অল্প একটু ভ্যাসলিন লাগিয়ে রাখুন। ভ্যাসলিন থাকায় ক্যাপটি সরাসরি বোতলের কাচের সংস্পর্শে আসবে না এবং ভবিষ্যতে সহজেই ক্যাপটি খুলতে পারবেন।

অক্সিডাইজেশন প্রতিরোধে

প্রত্যেকটি গাড়িতেই একটি করে ব্যাটারি আছে। প্রায়ই ব্যাটারির কন্ট্যাক্টগুলো অক্সিডাইজড হয়ে যায় যা বেশ বিরক্তিকর। কিন্তু আপনি যদি সংযোগের লিডটি তুলে সেখানে একটু ভ্যাসলিন লাগিয়ে দেন তাহলে এটি অক্সিডাইজেশন প্রতিরোধ করবে এবং পরবর্তীতে এরকম কিছু আর ঘটবে না।

দরজার কবজায়

আপনার ঘরের দরজা খোলার সময় আওয়াজ করে? দরজার কবজায় ভ্যাসলিন লাগিয়ে দিন। এরপর থেকে দরজা খোলার সময় কোন প্রকার আওয়াজ হবে না।

কাঠের আসবাবপত্র পরিষ্কারে

প্রায় কাঠের আসবাবপত্রে (বিশেষ করে ডাইনিং টেবিলে) গ্লাস এবং প্লেট রাখায় দাগ পড়ে যায়। ভ্যাসলিন ব্যবহার করে সহজেই দাগগুলোকে সরাতে পারেন। এক টুকরো কাপড়ে ভ্যাসলিন নিন এবং দাগ থাকা জায়গাগুলো ভালোভাবে মুছে নিন। সব দাগ উঠে যাবে।

মোমবাতির বিকল্প হিসাবে

ঘরে মোমবাতি শেষ? ছোট এক টুকরো কাগজ রোল করে নিয়ে এর একটি অংশ ভ্যাসলিনে ডুবিয়ে দিন। আরেক অংশে আগুন জ্বালিয়ে দিলে সেটি একটি মোমবাতির মতোন জ্বলতে থাকবে।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে