গোসলের যেসব ভুলে ত্বকের ক্ষতি

  আয়েশা সিদ্দিকা

৩০ ডিসেম্বর ২০১৭, ১১:৪২ | অনলাইন সংস্করণ

আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় কাজগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো গোসল। শুধু শরীর পরিষ্কার নয়, ক্লান্তি দূর করতেও গোসলের বিকল্প নেই। এটি আমাদের পরিষ্কার, তাজা, স্বাস্থ্যকর এবং পুনরুজ্জীবিত বোধ করতে সাহায্য করে। পরিষ্কারই হোক কিংবা সতেজ থাকতেই হোক আমরা সবাই প্রতিদিনই গোসল করি। গোসলের ধরণ ব্যক্তি বিশেষ আলাদা হয়। কেউ ঝরনার পানিতে গোসলে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। কেউ আবার গোসলে গরম কিংবা ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করেন। যেভাবেই করুন না কেন সুস্থতায় গোসল জরুরি। তবে গোসলের সময় আমরা সবাই এমন কিছু ভুল করে থাকি, যা আমাদের সৌন্দর্য ও স্বাস্থ্যহানি উভয়ই ঘটায়। কাজেই ক্ষতি এড়াতে এসব ভুল এড়িয়ে চলাই ভালো।     

এবার লাইফস্টাইল বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘মোস্টইনসাইড’ অবলম্বনে জেনে নিন গোসলের কিছু সম্পর্কে-

দীর্ঘ সময় ধরে গোসল করা

গবেষকদের মতে, ১০ মিনিটের বেশি সময় ধরে গোসল করলে ত্বকের ক্ষতি হয়। কিন্তু আমাদের অনেকেই আছেন যারা ১০-১৫ মিনিট কিংবা ৩০ মিনিট ধরে গোসল করতে ভালোবাসেন। এক্ষেত্রে গবেষকরা বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে গোসলের সময় কমিয়ে ১০ মিনিটের মধ্যে নিয়ে আসুন। তাহলে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকবে, নতুবা ত্বকের ক্ষতি।     

গরম পানিতে গোসল

ক্লান্তি দূর করতে অনেকেই গোসলের সময় গরম পানি ব্যবহার করেন। গবেষকরা বলেন, গরম পানি ব্যবহার আপনার ত্বক ও চুলকে শুষ্ক করে ফেলে। এর ফলে ত্বকের ছিদ্র দিয়ে ময়লা ও ব্যাক্টেরিয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। এতে ত্বকের নানা সমস্যা দেখা দেয়। তাই ক্ষতি এড়াতে সবসময় ঠাণ্ডা পানিতে গোসলের চেষ্টা করুন। চাইলে হালকা গরম পানিও ব্যবহার করতে পারেন।   

প্রতিদিন শ্যাম্পু করা

অনেকেই গোসলের সময় প্রতিদিন চুলে শ্যাম্পু করে থাকেন। এতে মাথার ত্বক আরও বেশি তৈলাক্ত হয়ে যায়। এর ফলে চুল শুষ্ক হয়ে যেতেও পারে। তাই চুলের সুরক্ষার সপ্তাহে ২-৩ বার শ্যাম্পু করা উচিত। এতে চুল স্বাস্থ্যবান ও মজবুত হওয়ার পাশাপাশি উজ্জ্বলতাও বাড়বে।

ডিউডোরেন্ট এবং অ্যান্ট-ব্যাকটেরিয়াল সাবান ব্যবহার

প্রতিদিন গোসলে ডিউডোরেন্ট এবং অ্যান্ট-ব্যাকটেরিয়াল সাবান ব্যবহারে ত্বক তার আর্দ্রতা হারিয়ে ফেলে। এতে ত্বক রুক্ষ-শুষ্ক হওয়ার পাশাপাশি আরও অনেক ক্ষতি হয়। তাই ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখার পাশাপাশি ভেতর থেকে পুষ্টি জোগাতে ময়েশ্চারাইজার সাবান ব্যবহার করুন।  

প্রতিদিন স্ক্রাব ব্যবহার

আমাদের শরীরের ত্বকের চেয়ে মুখের ত্বক ১০ গুণ পাতলা। তাই প্রতিদিন স্ক্রাব ব্যবহার করলে শুষ্ক হয়ে ত্বকের অনেক ক্ষতি হয়। এক্ষেত্রে ক্ষতি এড়াতে সপ্তাহে একবার ৫ মিনিট কিংবা তার কম সময়ের জন্য স্ক্রাব ব্যবহার করুন। তবে বরফের টুকরো ব্যবহারে ভালো ফল পাবেন।   

তোয়ালে দিয়ে ঘষে চুল মোছা

গোসলের পর অনেকেই তোয়ালে দিয়ে ঘষে ঘষে চুল মুছে থাকেন। এটি চুল দুর্বল হওয়ার পাশাপাশি চুলের অনেক ক্ষতি হয়। আবার নারীরা গোসলের পর তোয়ালে দিয়ে অনেকক্ষণ চুল পেঁচিয়ে রাখেন। এই কাজটিও ঠিক নয়। এতে চুলের গোড়া আলগা হয়ে চুল পড়তে পারে। কাজেই চুলের ক্ষতি এড়াতে এসব অভ্যাস বাদ দিন।   

প্রতিদিন সাবান ব্যবহার

অনেকেই মনে করেন, প্রতিদিন শরীরে সাবান ব্যবহার অনেক জরুরি। এটাও ঠিক নয়। গবেষকদের মতে, প্রতিদিন এ কাজে টাকা , অর্থ ও সময় নষ্ট হয়। তবে চাইলে শরীরের বিশেষ বিশেষ অঙ্গে সাবান লাগাতে পারেন। আর পুরো সপ্তাহে মাত্র একবার পুরো শরীরে সাবান লাগান।

পুরানো শ্যাম্পু ব্যবহার

পছন্দের তালিকায় আছে বলেই এক শ্যাম্পু সারা জীবন ব্যবহার করতে হবে এমন কোন কথা নেই। এতে করেও চুলের অনেক ক্ষতি হয়। তাই চুলের সুরক্ষায় নির্দিষ্ট সময় পর পর শ্যাম্পু বদল করা উচিত। এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ভালো হয়, যদি আপনি সালফেট মুক্ত শ্যাম্পু ও প্রোটিন সমৃদ্ধ কন্ডিশনার ব্যবহার করেন।

মাজুনি পরিবর্তন না করা

গোসলের সময় অনেকেই শরীরে মাজুনি ব্যবহার করে থাকেন। কিছুদিন পরপরই এই মাজুনি পরিবর্তন করা দরকার। তা না হলে মাজুনিতে ক্রমাগত ব্যাকটেরিয়া জমে শরীরের ক্ষতি হতে পারে। তবে বেশিদিন ব্যবহার করতে চাইলে অবশ্যই গোসলের পর ফুটন্ত গরম পানি দিয়ে মাজুনি পরিষ্কার করুন।

গোসলের সময় দাঁত ব্রাশ

অনেকেই গোসলের সময় দাঁত ব্রাশ করে থাকেন। এই একেবারেই ঠিক নয়। কারণ একসঙ্গে দুই কাজ করলে কোনো কাজই সঠিকভাবে করা যায় না। আবার তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে দাঁতেরও মারাত্মক ক্ষতি হয়। তাই গোসলের আগে প্রতিদিন অন্তত ২ মিনিট দাঁত ব্রাশ করার চেষ্টা করুন।

গোসলের আগে শেভিং

অনেকেই আছেন যারা গোসলের সময় শেভ করতে বেশি পছন্দ করেন। এতে ত্বকের অনেক ক্ষতি হয়। তবে শেভ করতে চাইলে গোসলের আগে নয়, বরং তা পরে করার দিয়েছেন গবেষকরা।      

 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে