দোভাষী হতে পারে তরুণদের পেশা

  আজহারুল ইসলাম অভি

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০১:১৯ | অনলাইন সংস্করণ

বর্তমান বিশ্বে কর্মসংস্থানের দিক দিয়ে এগিয়ে আছে পর্যটনশিল্প। আর পর্যটনশিল্পের অন্যতম একটি আকর্ষণীয় পেশা হচ্ছে দোভাষী। ফলে যারা মূলত ঘুরতে পছন্দ করেন, তাদের জন্য এটি হয়ে উঠতে পারে একটি আকর্ষণীয় পেশা। জনপ্রিয় এ পেশাটি অন্য অনেক পেশার চেয়ে উপভোগ্য। এ পেশায় রয়েছে প্রকৃতি ও মানুষের সঙ্গে মেশা ও জানার সুযোগ, আকর্ষণীয় আর্থিক নিশ্চয়তা, সহজ কর্মসংস্থান প্রভৃতি সুবিধাও। বিস্তারিত জানাচ্ছেন আজহারুল ইসলাম অভি

কেন বেছে নেবেন এ পেশা

দোভাষীরা বেশ বহুদিন ধরে পেশা জগতে ভালো অবস্থান করে নিয়েছেন। বর্তমানে আধুনিক, রুচিশীল, জ্ঞানচর্চামূলক জনপ্রিয় একটি পেশায় পরিণত হয়েছে এটি। তরুণ, সৃজনশীল, চটপটে এবং ভ্রমণপ্রিয়দের জন্য এ পেশায় রয়েছে উজ্জ্বল সম্ভাবনা। অনুবাদক সংস্থা, ট্যুরিজম কোম্পানি বা ট্র্যাভেল এজেন্সি, পাঁচতারকা হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট, বিমান ও পরিবহন কোম্পানিতে আছে বিদেশি ভাষা জানা মানুষের অনেক চাহিদা। বিভিন্ন দেশের দূতাবাস, বিদেশি মিশন, অন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ও বিভিন্ন প্রকল্পে দ দোভাষীর ব্যাপক কদর রয়েছে। বিদেশি ভাষা শিখলে উচ্চবেতনের চাকরি ও বিদেশে গমনের সুযোগ ছাড়াও আরও অনেক কিছু শেখা-জানা যায়।

তা ছাড়া পর্যটনশিল্পের কথা বিবেচনা করলে একজন ট্যুরিস্ট গাইডের তুলনায় দোভাষীর উপার্জনও তুলনামূলকভাবে বেশি। এর সঙ্গে ভ্রমণকালীন অন্য সুযোগ-সুবিধা তো আছেই। সবচেয়ে মজার বিষয় হলো এ পেশায় কাজ করতে গিয়ে নানা ধরনের, পেশার মানুষের সংস্পর্শে আসা যায়, জানা যায় নতুন নতুন অভিজ্ঞতা ও কাহিনি, জীবনজয়ের কাহিনি।

কোথায় শিখবেন

ইনফোপ্লিজ ডটকমের এক জরিপে দেখা যায়, বর্তমান বিশ্বে সাড়ে ছয় হাজার ভাষা প্রচলিত। ইংরেজি ভাষার পাশাপাশি স্প্যানিশ, ফরাসি, জার্মানি, জাপানিজ, ইতালি, তুর্কি, চীনা, আরবি, রুশ কিংবা কোরিয়ান ভাষা শেখার জন্য রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে বর্তমানে মোট ১৪টি ভাষার কোর্স পরিচালিত হয়ে থাকে। এ ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জাপান স্টাডিজ সেন্টারে দুই বছর মেয়াদি মাস্টার্স কোর্সের অংশ হিসেবে শিার্থীদের প্রাথমিকভাবে জাপানি ভাষা শিা দেওয়া হয়। এ ছাড়া ইরানিয়ান কালচারাল সেন্টার, রাশিয়ান কালচারাল সেন্টার, গ্যেটে ইনস্টিটিউট ও অলিয়ঁস ফ্রঁসেজে খোঁজ নিতে পারেন।

যোগাযোগ

রাশিয়ান কালচারাল সেন্টার, বাড়ি নং-৫১০, ধানমণ্ডি৭, ঢাকা-১২০৫।

ওয়েবসাইট : http://bgd.rs.gov.

আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউট, বিশ্ববিদ্যালয়

আলিয়ঁঁস ফ্রঁসেজ, ২৬ মিরপুর রোড,

ধানম-ি, ঢাকা।

ওয়েবসাইট : http://www.afdhaka.org

গ্যেটে ইনস্টিটিউট, বাড়ি নং-১০, ধানম-ি-৯ (নতুন), ঢাকা-১২০৫

কোথায় কীভাবে আবেদন করবেন

আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে প্রায় বছরই চলমান থাকে বিভিন্ন মেয়াদের কোর্সগুলো। তবে জুনিয়র কোর্সের ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হয় মে-জুন মাসে। এ জন্য জনতা ব্যাংকের টিএসসি শাখায় ৪০০ টাকা ভর্তি ফি দিয়ে পরীায় অংশগ্রহণ করতে হয়। যে কোনো এইচএসসি উত্তীর্ণ প্রার্থী এতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। কোর্স ফিও তেমন বেশি না এখানে। ৩ থেকে ৪ হাজার টাকার মধ্যেই শেখা যাবে এখানে। অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলোতেও প্রায় একই নিয়ম মেনে চলা হয়।

যেসব গুনাবলি থাকাটা জরুরি

একজন দোভাষীর মূলত শোনা, একাগ্রতা, বিশ্লেষিত দতা, উভয় ভাষায় অনর্গল কথা বলা, প্রখর স্মৃতিশক্তি এবং বক্তব্যের অর্থ স্পষ্ট ও সঠিকভাবে উপস্থাপন করার গুণাবলি থাকতে হবে। একজন ভালো দোভাষীকে হতে হবে আত্মবিশ্বাসী। দোভাষী হিসেবে কাজ করা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং। আত্মবিশ্বাস থাকাটা তাই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। থাকতে হবে অন্যকে কোনোকিছু ভালোভাবে বোঝানোর মতা এবং মিশুক। মানুষের সঙ্গে খুব সহজেই মিশে যেতে না পারলে এ পেশায় টিকে থাকা দুষ্কর হবে কিছুটা।

বর্তমান সময়ের প্রোপটে দোভাষী হিসেবে আমাদের দেশে ক্যারিয়ার গড়ে তোলার সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে। আমাদের দেশে এ খাতে খুব বেশি মানুষের আগ্রহ এখনো তেমন তৈরি হয়নি। ফলে এ খাতে ক্যারিয়ার গড়ার অনন্য সুযোগ হাতছানি দিচ্ছে বলাই চলে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে