সম্পর্কে এড়িয়ে যাবেন না যেসব বিষয়

  অনলাইন ডেস্ক

০৭ মার্চ ২০১৮, ১৪:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যায় জগতের অনেক কিছু।  পাল্টে যায় মানুষের মনও।  যে কোনো সম্পর্কের শুরুর দিকটা যতটা মধুর হয়, শেষের দিকে তা নাও থাকতে পারে।  তখন হয়তো সম্পর্কের গভীরতা কিছুটা কমে যায়। এই পরিবর্তনের কারণে একে অপরের জন্য আগের মতো সেই টান আর অনুভব হয় না।  ফলে অনেক পুরনো সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার ঘটনাও ঘটে। তবে শুধু মাত্র একটি কারণে সম্পর্ক ভাঙে না।  এর পেছনে আরও নানা কারণ থাকতে পারে। তাই ক্ষতি এড়াতে সম্পর্কে এমন কিছু বিষয় আছে যেগুলো কখনোই এড়িয়ে চলা উচিত নয়।

সম্পর্ক ঠিক রাখতে সাতটি বিষয় একেবারেই এড়িয়ে না যাওয়ার কথা বলেছে লাইফ স্টাইল বিষয়ক ওয়েবসাইট মেনসএক্সপি ডট কম।

দূরত্ব সবসময় কাছে টানে না

সম্পর্কে একে অপরকে কিছুটা সময় দেওয়া ভালো।  এতে তারা নিজে কিছুটা সময় উপভোগ করতে পারে।  আপনি কখনোই মনে করবেন না যে তাকে কিছুটা সময় দিলেই সে খারাপ হয়ে যাবে।  তবে, হ্যাঁ যদি এমনটা হয় যে তাকে কিছু সময়ের জন্য ছেড়ে দেওয়ায় দূরত্ব বেড়ে যাচ্ছে তাহলে সচেতন হোন।  কারণ ভালোবাসা শুধু কাছেই টানে না, দূরেও ঠেলে দেয়।

সে কি সত্যিই আপনার?

যে কোনো সম্পর্কে দুজন পরস্পরের প্রতি সৎ থাকুন।  ঘরে কিংবা বাইরে সব জায়গায় সঙ্গীকে স্মরণ রাখুন। দুজনের কারো ক্ষেত্রেই যদি এর ব্যতিক্রম ঘটে তবে সতর্ক হোন।

বন্ধুদের সঙ্গে মিশতে না দেওয়া  

সঙ্গী যদি সবসময় আপনার বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যদের নিয়ে অভিযোগ করে, আপনাকে কারো সঙ্গে বাইরে বের হতে না দেয়- এমনটি করলেও অবহেলা করবেন না।  এই পরিস্থিতিতে সম্পর্কের বিষয়টি নিয়ে আরও পরীক্ষা-নীরিক্ষা চালান।  তা না হলে ফাঁদে ফেলে কেউ আবার মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে।

মূল্যবোধে পার্থক্য

ব্যক্তি বিশেষে মানুষের মূল্যবোধ এবং লক্ষ্যগুলো আলাদা আলাদা হয়।  সম্পর্কে এই বিষয়গুলোর প্রতি একে অপরের শ্রদ্ধা জানাতে হবে।  তবেই আপনাদের সম্পর্কে পূর্ণতা আসবে।  নতুবা সম্পর্ক টিকবে না।

কষ্ট দেয়

সঙ্গী সবসময় আপনাকে কষ্ট দিয়ে কথা বলে? সবার সামনে অপমান করে? এই চিহ্নগুলোও কিন্তু অবহেলা করার নয়।  সঙ্গী এমন করলে তার কাছ থেকে দূরে আসাই ভালো।  এতে ভবিষ্যতে জীবনটাকে আরও সুন্দর করে সাজাতে পারবেন।

ভবিষ্যত নিয়ে ভাবতে চায় না

যদি আপনি কাউকে সত্যিকার অর্থেই ভালোবাসেন তাহলে তার সঙ্গে ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলুন।  কারণ জীবনে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য আপনাদের এই সিদ্ধান্ত অনেক জরুরি।  এতে পরবর্তীতে বড় যে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারবেন।  যদি দেখেন আপনার সঙ্গী ভবিষ্যতের এসব পরিকল্পনার ব্যাপারে একেবারেই আগ্রহী নয়, তাহলেও তার কাছ থেকে সরে আসুন।

যৌনতায় আগ্রহী

বিয়ের আগে পর্যন্ত শরীরিক সম্পর্কের বিষয়টি একেবারেই এড়িয়ে চলুন।  যদি দেখেন আপনার সঙ্গী সবসময় এই একটি বিষয়ে বেশি আগ্রহ দেখায় তাহলে তার কাছ থেকে সরে আসুন।  নতুবা ভবিষ্যতে দুর্ঘটনা এড়াতে পারবেন না।  মনে রাখবেন, সত্যিকারের ভালোবাসার মানুষ কখনোই আপনার দিকে খারাপ দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে তাকাবে না।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে