রোজায় ইফতার

  অনলাইন ডেস্ক

১৬ মে ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৭ মে ২০১৮, ১২:৪৩ | অনলাইন সংস্করণ

ছবি : ওমর ফারুক টিটু
শুরু হচ্ছে রোজা। ইফতারে মুখরোচক খাবার খেতে কম-বেশি সবাই পছন্দ করেন। তবে সুস্থতার জন্য ইফতারে মৌসুমি ফল ও পানীয়র পরিমাণ বেশি রাখতে পারেন। নানা স্বাদের ইফতারির রেসিপি দিয়েছেন মুক্তা কাজল।

খাসির মাংসের হালিম : উপকরণ - গম আধা কাপ, খাসির মাংস আধা কেজি, টকদই আধা কাপ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১ চা-চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, এলাচ ২টি, দারুচিনি ২ টুকরো, পেঁয়াজ বেরেস্তা ২ টেবিল চামচ, আদা কুচি ১ টেবিল চামচ, মুগডাল ৫০ গ্রাম, মসুর ডাল ৫০ গ্রাম, মাসকলাই ৪০ গ্রাম, মটর ৪০ গ্রাম, ছোলা ৪০ গ্রাম, অড়হর ৪০ গ্রাম, খেসারি ৪০ গ্রাম, গাওয়া ঘি ২ টেবিল চামচ, এলাচ গুঁড়া আধা চা-চামচ ও দারুচিনি গুঁড়া আধা চা-চামচ।

প্রণালি : মাংসে দই, আদা, রসুন, পেঁয়াজ বাটা, এলাচ, দারুচিনি সব দিয়ে রান্না করে রাখতে হবে। মাংস খুব ভালোভাবে সিদ্ধ হয়ে হাড় থেকে খুলে আসবে। গম ভালোমতো শুকিয়ে চূর্ণ করতে হবে। সব ডাল একসঙ্গে মিশিয়ে লবণ ও ডুবো পানিতে সিদ্ধ করতে হবে। গম লবণ দিয়ে ভালোভাবে সিদ্ধ করে ডালের সঙ্গে মেশাতে হবে। ডাল ও গমের সঙ্গে মাংস মিশিয়ে কম জ্বালে চুলায় দিয়ে মাঝে মাঝে নাড়তে হবে। ঘি গরম করে নিন। পেঁয়াজ বেরেস্তা করে নিয়ে, বড় বাটিতে হালিম ঢেলে ওপরে কিছু ঘি ছড়িয়ে তার ওপর গুঁড়া মসলা ছিটিয়ে দিন।

বাহারি ফলের দই-চিড়া

উপকরণ: চিড়া ১ কাপ, দই ঠাণ্ডা ১ কাপ (টক/মিষ্টি ইচ্ছা), তালমিছরি গুঁড়া ২ টেবিল চামচ, কলা, আম, আপেল, কমলা বা মালটা, আঙুর টুকরো ১ কাপ ও মধু ১ টেবিল চামচ।

প্রণালি : চিড়া ধুয়ে সমপানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। ভিজে ফুলে উঠলে পানি ঝরিয়ে ফল কুচি, মধু, মিছরির গুঁড়া দিয়ে মিশিয়ে পরিবেশন পাত্রে রেখে দই দিয়ে সাজিয়ে দিতে হবে। এরপর ফ্রিজে রাখুন। ফ্রিজ থেকে বের করে পরিবেশন করতে হবে।

লাচ্ছি

উপকরণ : দই ১ কাপ, ঠাণ্ডা পানি ১ কাপ, গোলাপজল ২ চা-চামচ, চিনি ২ টেবিল চামচ, লবণ ইচ্ছা ও বরফ কুচি।

প্রণালি : দই ফেটে ঠণ্ডা পানি মেশাতে হবে। মিষ্টি দই হলে চিনি কম দিতে হবে। গোলাপজল ও বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।

মোরগ মখমলে কাবাব

উপকরণ : মোরগের বুকের মাংস ২৫০ গ্রাম, হুইপড ক্রিম ১ টে. চামচ, গ্রেটেড মোজরলা চিজ ২৮ গ্রাম, আদা+রসুন+ পেঁয়াজবাটা ১ চামচ করে, শাহীজিরা (আস্ত) ১ চা চামচ, ডিমের সাদা অংশ ১টির, মধু ১ চা চামচ, গোলমরিচগুঁড়া আধা চা চামচ, লবণ পরিমাণমতো। উডেড স্টিক, ক্যাপসিকাম রিং+ পেঁয়াজ রিং+লেবু রিং-পরিবেশন।

প্রণালি : হাড় ছাড়া মোরগের বুকের মাংস কিউব করে কেটে, ধুয়ে পানি ঝরিয়ে অর্ধেক চিজ ও ক্যাপসিকাম রিং ও পেঁয়াজ রিং বাদে সব উপকরণ দিয়ে মেরিনেড করে রাখতে হবে ১৫ মিনিট। পরে ভিজিয়ে রাখা উডেড স্টিকে গেঁথে ১৮০ক্ক পাওয়ারে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে ১০ মিনিট বেক করতে হবে বা সামান্য তেলে ফ্রাইপ্যানে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ভাজতে হবে। ওপরে বাকি গ্রেটেড মোজরলা চিজ ছড়িয়ে গ্রুলোটচ্ গান দিয়ে টচ্ করে ক্যাপসিকাম রিং ও পেঁয়াজ রিং, লেবু রিং দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করতে হবে। পরোটা-নান-তান্দুরি রুটি বা ফ্রাইড রাইসের সঙ্গে খাওয়া যায়।

ভেজিটেবল রোল

পেস্টি : ময়দা ২ কাপ, পানি ৩-৪ কাপ।

ফিলিং : মাংসের কিমা আধা কাপ, চিংড়ি খোসা ছাড়ানো আধা কাপ, বাঁধাকপি কুচি ৩-৪ কাপ, গাজর মিহি কুচি আধা কাপ, তেল ২ টেবিল চামচ, রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ, শুকনা/কাঁচা মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ, ফিসসস ১ চা-চামচ, চিনি ১ চা-চামচ, পেঁয়াজ কুচি ২টি, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ, ময়দা ৩ টেবিল চামচ, সুইচ চিলি সস পরিবেশন করতে ও তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি : পেস্টি তৈরি : ময়দার সঙ্গে পানি মিশিয়ে মথে নিতে হবে। ভেজা কাপড় নিংড়ে পানি ফেলে কাপড় দিয়ে খামির ঢেকে ৩০ মিনিট রাখতে হবে। খামির চার ভাগ করে, ময়দার ছিটা দিয়ে পাতলা রুটি বেলে পছন্দমতো মাপে কেটে টুকরো করতে হবে।

ফিলিং তৈরি : একটি প্যানে তেল গরম করে রসুন ও মরিচ দিয়ে ৩০ সেকেন্ড নাড়তে হবে। মাংসের কিমা দিয়ে ২ মিনিট ভাজতে হবে। সব উপকরণ একসঙ্গে দিয়ে ভাজতে হবে। ধনেপাতা কুচি দিয়ে নামিয়ে ঠা-া করতে হবে।

রোল তৈরি : ময়দার সঙ্গে পানি মিশিয়ে পেস্ট করে রাখতে হবে। এক টুকরো রুটির মাঝখানে ফিলিং দিয়ে রোলের মতো মুড়ে ময়দার গোলা দিয়ে আটকে নিন। ডুবো তেলে ভেজে তুলে নিতে হবে। এবার পরিবেশন করুন সুইট চিলি সসের সঙ্গে।

ফ্রুট পাঞ্চ

উপকরণ : আপেল কুচি ১টি, নাশপাতি কুচি ১টি, আনারস কুচি ১ কাপ, আনারসের রস ১ কাপ, কমলার রস ১ কাপ, পুদিনাপাতা মিহি কুচি ১ টেবিল চামচ ও ঠাণ্ডা সোডা ওয়াটার।

প্রণালি : একটি বড় পাত্রে ঠা-া কুচি করা ফল, আনারসের রস ও কমলার রস একত্রে মেশাতে হবে। এবার একটি লম্বা গ্লাসে অর্ধেক গ্লাস সোডা ওয়াটার, বাকি ফল এবং ফলের রস ও বরফ কুচি দিয়ে গ্লাস ভরে সুন্দর করে পরিবেশন করুন।

নার্গিসি শাহি চপ

উপকরণ : ডিম ৪টি, গরুর মাংসের কিমা ২৫০ গ্রাম, পাউরুটি স্লাইস ১টি, আলু সিদ্ধ ১টি, ব্রেডক্রাম ২ কাপ, ডিম ফেটানো ১টি, পেঁয়াজ বেরেস্তা ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চা-চামচ, গরম মসলা গুঁড়া আধা চা-চামচ, শুকনা মরিচ গুড়া আধা চা-চামচ, সিরকা ১ চামচ, লেবুর রস ১ চা-চামচ, কাঁচামরিচ কুচি ২টি, ধনেপাতা কুচি পরিমাণমতো, তেল ভাজার জন্য ও লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি : ডিম সিদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে রাখতে হবে। কিমায় সিরকা, আলু, পাউরুটি স্লাইস এক একে সব মসলা দিয়ে মেখে আধা ঘণ্টা ম্যারিনেট করে রাখতে হবে। কিমার পুরের ভেতর ডিম দিয়ে সুন্দর করে চপের আকার করে নিন। এবার ফেটানো ডিমে ডুবিয়ে ব্রেডক্রামে গড়িয়ে নিন। ডুবো তেলে হাল্কা আঁচে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ভাজতে হবে। এরপর তুলে নিয়ে সুন্দর করে সাজিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

মটর ঘুগনি

উপকরণ : মটর ৫০০ গ্রাম, পেঁয়াজ মোটা স্লাইস কোয়ার্টার কাপ, হলুদ গুঁড়া কোয়ার্টার চা-চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ, শুকনা মরিচ টালাগুঁড়া ১ চা-চামচ, লেবুর রস ২ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ৪. টেবিল চামচ, টমেটো কুচি ২টি, শসা কুচি ১টি, পেঁয়াজ কুচি ৩ টেবিল চামচ, কাঁচামরিচ কুচি ২-৪টি, পেঁয়াজ বেরেস্তা কোয়ার্টার কাপ ও লবণ স্বাদ বুঝে।

প্রণালি : মটর সারা রাত ভিজিয়ে রেখে ধুয়ে সিদ্ধ করে নিতে হবে। পানি ঝরিয়ে রাখতে হবে। পাত্রে তেল গরম করে, কিছু পেঁয়াজ লাল করে ভেজে বেরেস্তা করে তুলে ঠাণ্ডা করতে হবে। এবার কড়াইয়ে মোটা স্লাইস পেঁয়াজ কাটা দিয়ে নেড়ে পেঁয়াজ নরম হলে মটর ও হলুদ দিতে হবে। এবার গোলমরিচ, লবণ ও লেবুর রস দিয়ে অর্ধেক ধনেপাতা কুচি দিয়ে নামাতে হবে। বাটিতে তুলে পেঁয়াজ বেরেস্তা ও মরিচ গুঁড়া ছিটিয়ে দিতে হবে। শসা, টমেটোর বিচি ফেলে ছোট চৌকো টুকরো করে নিতে হবে। ছোট টুকরো করা পেঁয়াজ, টমেটো, শসা, কাঁচামরিচ, ধনেপাতা, লবণ একত্রে মাখিয়ে মটর ঘুগনির সঙ্গে পরিবেশন করুন।

পেঁয়াজু

উপকরণ : মসুর ডাল ৩-৪ কাপ, পেঁয়াজ কুচি এক থেকে আধা কাপ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, কাঁচামরিচ কুচি ৩টি, পুদিনা বা ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদ অনুযায়ী ও তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি : ডাল ধুয়ে ডুবো পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে ২ ঘণ্টা। পানি ছেঁকে বেটে নিতে হবে। (খুব মিহি আবার খুব শুকনাও না)। এবার পেঁয়াজ কুচি, হলুদ গুঁড়া, মরিচ কুচি ও লবণ দিয়ে মেখে ধনেপাতা কুচি ও ডাল বাটা দিয়ে নরম ও ভেজা ভেজা করে মাখাতে হবে। এবার প্যানে তেল গরম করে আঙুল দিয়ে চ্যাপ্টা করে পিয়াজু তেলে দিয়ে ভাজতে হবে। পিয়াজু মচমচে ও সোনালি হলে তুলে কিচেন টিস্যুতে রেখে পরে পরিবেশন করুন।

বেগুনি

উপকরণ : বেসন ১ কাপ, বেকিং পাউডার ৩-৪ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ, পানি কোয়ার্টার বা আধা কাপ, বেগুন ১টি, লবণ স্বাদমতো ও তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি : বেসন ও বেকিং পাউডার ভালোমতো মেশাতে হবে। এবার হলুদ, মরিচ গুঁড়া ও লবণ দিতে হবে। পানি দিয়ে থক থকে গোলা তৈরি করে ১ ঘণ্টা ঢেকে রাখতে হবে। প্রয়োজনে আরেকটু পানি দেওয়া যায়। লম্বা ও চিকন বেগুন ধুয়ে ১০-১২ সেমি পাতলা স্লাইস করে লবণ মাখিয়ে রাখতে হবে। এবার কড়াইয়ে তেল গরম করে, বেসনের গোলায় ডুবিয়ে তেলে দিয়ে উল্টেপাল্টে মচমচে ও বাদামি রঙ করে ভেজে তেল ছেঁকে টিস্যুতে তুলে পরিবেশন করতে হবে।

চিকেন ব্রেস্ট কবিরাজি

উপকরণ : মুরগির বুকের মাংস ২ পিস, কাসুন্দি ১ টে. চামচ, রসুনবাটা ১ চা চামচ, আদাবাটা ১ চা চামচ, পেঁয়াজবাটা ১ চা চামচ, মরিচগুঁড়া আধা চা চামচ, গোলমরিচগুঁড়া আধা চা চামচ, পুঁদিনাপাতাকুচি ২ চা চামচ, ধনেপাতাকুচি ২ চা চামচ, লেবুর রস ১ চা চামচ, ডিম ফেটানো ২টি, ব্রেডক্রাম আধা কাপ, লবণ স্বাদমতো, তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি : মুরগির বুকের মাংস আস্ত পাতলা কাটা। তেল, ব্রেডক্রাম ও ডিমের গোলা বাদে বাকি সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে মেরিনেড করে রাখতে হবে। এবার ব্রেডক্রামে গড়িয়ে ডিমের গোলায় ডুবিয়ে ডুবো তেলে ভেজে নিতে হবে। ওপরে আরও অল্প অল্প ফেটানো ডিম ছিটিয়ে দিয়ে দুই পাশ ভালোমতো ভেজে তুলে নিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে