ঘরেও থাকুক প্রকৃতির ছোঁয়া

  আয়েশা সিদ্দিকা

০৯ আগস্ট ২০১৬, ১১:৪৯ | আপডেট : ০৯ আগস্ট ২০১৬, ১২:০১ | অনলাইন সংস্করণ

সবুজ মানেই স্নিগ্ধতা। আর এই স্নিগ্ধতা খুব সহজেই আমাদের সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে সাহায্য করে। একইসঙ্গে শরীর এবং মনেও এক ধরনের শান্তির পরশ বুলিয়ে দেয়। আজকের দিনে অনেকেই ঘরের সৌন্দর্য বাড়াতে গাছের ব্যবহার করে থাকেন। এতে শুধু ঘরের সৌন্দর্যই বাড়ে না, একইসঙ্গে ঘরও ঠাণ্ডা থাকে। এর ফলে রাতেও ভালো ঘুম হয়।  

ঘর সাজাতে বিভিন্ন ধরনের ইনডোর প্ল্যান্টের ব্যবহার আমাদের নান্দনিক রুচির বহিঃপ্রকাশ ঘটায়। এজন্য প্রথমেই আমাদের গাছ নির্বাচন করা উচিত। বিশেষজ্ঞদের মতে, ছায়ায় ভালো জন্মায়—এমন গাছই ঘরের জন্য নির্বাচিত করা উচিত। যেসব ঘরে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণযন্ত্র বা এসি চলে, সেখানে ঠাণ্ডাপ্রিয় গাছ রাখতে হবে। এক্ষেত্রে ইংলিশ আইভি, ম্যারেন্টা, জ্যাকোবিনিয়া, রাবার, বট ও মানি প্ল্যান্ট রাখা যেতে পারে।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, ড্রয়িংরুমের টেবিলে দু-একটি বনসাই প্ল্যান্টও রাখতে পারেন। রোদ পড়ে না, এমন দেয়ালে ঝুলন্ত উদ্ভিদ লাগানো যায় বা ওয়াল কার্পেটিংও করা যায়। শোয়ার ঘর ও খাবারের ঘরের শাঝের স্থানটিতে সারিবদ্ধভাবে কারুকাজ করা টবে বাহারি পাতার গাছ লাগানো যেতে পারে। এক্ষেত্রে ক্রোটন, রক্তপাতা, রিবন প্ল্যান্ট, ডাম্বকেইন, শতমূলী, ক্যালাডিয়াম, ড্রাসেনা ও অ্যাগলিওনিমা প্রভৃতি উদ্ভিদ বাছাই করা যায়।

কীভাবে সাজাবেন-
ঘরের আসবাব ও অন্যান্য সামগ্রীর সঙ্গে মানানসই উদ্ভিদ ও টব বাছাই করুন। এ সময় অবশ্যই অবস্থান ও আয়তনের কথাও বিবেচনায় রাখুন। এমন অনেক গাছ আছে, যেগুলো ছায়ায় বা সরাসরি সূর্যের আলো ছাড়াও বেঁচে থাকে। তবে ঘরে পর্যাপ্ত আলো-বাতাস চলাচল থাকলে ভালো হয়। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার সুবিধার্থে ঘরের আসবাবপত্র ও গাছের মাঝখানে যথেষ্ট পরিমাণ ফাঁকা জায়গা রাখুন। বিশৃঙ্খল বা এলোমেলো অবস্থা এড়াতে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা অনুযায়ী ঘর সাজান।

এক্ষেত্রে যা করবেন-
# মানিপ্ল্যান্টের মতন যে সকল গাছ পানিতে রাখলেই হয়, সে সকল গাছ বাড়িতে কন্টেইনার তৈরি করে রাখা যায়। অথবা পুরনো প্লাস্টিকের কন্টেইনার বা সিরামিকের মগেও সাজিয়ে নেওয়া যায়। এই জাতীয় গাছগুলো দেখতে যেমন সুন্দর লাগে, তেমনি ঘরের মধ্যেও আসে সবুজের ছোঁয়া।

# পুরনো চায়ের কেটলি বা সুগার পটের হ্যান্ডেল ভেঙ্গে গেলে, ভাঙা স্থানটি পরিষ্কার করে, রং করে তাতে গাছ লাগিয়ে বাথরুম বা কিচেনে সাজিয়ে রাখলে বেশ সুন্দর শোভাবর্ধিত হয়।

# লম্বা ফুলদানিগুলোতে ফুলের স্টিক রাখলে, তা সেট করতে বেশ ঝামেলা হয়। তাই ফুলদানিতে পানি ভরে কয়েল পেপার দিয়ে মুখ আটকিয়ে রাখুন। এরপর কয়েলে ছোট ছোট ফুটো করে ফুলের স্টিকগুলো ঢুকিয়ে দিন। পানির মধ্যে স্টিকগুলো সোজা হয়ে থাকবে।

# যে ধরনের গাছের গোঁড়া পানিতে রাখলে ভালো হয়, সেগুলোকে কাঁচের বোতলে করেই রাখা যায়। গাছের মূল বেড়ে উঠলে পানি ফেলে দিয়ে মাটিতে লাগানো যায়।

ইন্ডোর প্লান্টের যত্ন

# সপ্তাহে অন্তত একদিন সব গাছ রোদে দিন। কারণ একটা গাছের ঠিকমতো বেড়ে ওঠা এবং বেঁচে থাকার জন্য সূর্যের আলো জরুরি। তবে দুপুরের কড়া রোদে গাছ না রেখে বরং সকালের হালকা রোদে রাখুন।

# গাছে ঘন ঘন পানি দেওয়ার প্রয়োজন নেই। অতিরিক্ত পানি দিলে গাছ পচে যেতে পারে। পানি দেওয়ার সময় টবের মাটি আর্দ্র আছে কি-না, লক্ষ করুন। কিছু গাছে সকাল ও বিকেল দু'বেলা পানি দিতে হয়। আবার কিছু গাছে সকালে পানি দিলেই চলে।

# গাছের পাতা ও ফুলের রং হালকা হতে থাকলে ঠাণ্ডা ও আলো কম পৌঁছায় এমন জায়গায় রাখুন। কারণ অতিরিক্ত আলো ও তাপের সংস্পর্শে এসে গাছের পাতা ও ফুলের রঙ হালকা হয়ে যায়।

# গাছের পাতায় বেশি ধুলো জমলে জোরে ঘসবেন না, নরম কাপড়ে অল্প পানি দিয়ে পরিষ্কার করুন। অথবা স্প্রে করে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিন। পাতার নিচের অংশও পরিষ্কার করুন। ধুলো-ময়লার সঙ্গে পোকা বাসা তৈরি করে পাতায়।

# যে রুমে ফ্যান বেশি চলে সে রুমের গাছগুলো একদিন পর পর বাইরে রাখুন। রাতের বেলা গাছগুলো বারান্দায় রাখতে পারেন সকাল পর্যন্ত এতে প্রাকৃতিক বাতাসে গাছ ভালো থাকবে।

ঘর সাজাতে ইনডোর প্ল্যান্টের ভূমিকা অনেক। কেননা ঘরে প্রশান্তি আনতে এসব গাছের জুড়ি মেলা ভার। আবার সামান্য সবুজের ছোঁয়াও আপনার ঘরে আসে প্রশান্তির অনুভূতি। এতে করে রাতেও ভালো ঘুম হয়।

# পচা পাতা, হলুদ বা খয়েরি কাণ্ড গাছের কাছে না জমিয়ে রেখে ফেলে দিন। গাছের টব বদলানোর সময় লক্ষ রাখবেন যাতে শিকড় নষ্ট না হয়। নিয়ম করে পুরনো পাতা বা একটু নষ্ট হয়ে যাওয়া পাতা পরিষ্কার করে ফেলুন।

# ইনডোর প্লান্টসের বৃদ্ধি অন্যান্য গাছের তুলনায় একটু কম হয়।

# রাতে গাছ কার্বন-ডাই-অক্সাইড ছাড়ে তাই সম্ভব হলে রাতে গাছগুলো বাইরে রাখুন। আবার সকালে ঘরে নিয়ে আসুন। আর যদি তা সম্ভব না হয় তাহলে ঘরের জানালা খোলা রাখুন।

ঘর সাজাতে ইনডোর প্ল্যান্টের ভূমিকা অনেক। কেননা ঘরে প্রশান্তি আনতে এসব গাছের জুড়ি মেলা ভার। এতে সামান্য সবুজের ছোঁয়ায় আপনার ঘরে আসবে এক অনাবিল প্রশান্তির অনুভূতি। যা আপনাকে ভালো ঘুমাতে সাহায্য করবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে