ডায়াবেটিসে দৃষ্টিহীনতার ঝুঁকি কমায় তৈলাক্ত মাছ

  অনলাইন ডেস্ক

০৪ জানুয়ারি ২০১৭, ১১:০০ | অনলাইন সংস্করণ

দেহের বহু প্রয়োজনীয় অভাব পূরণ করতে ফ্যাটি অ্যাসিডের বিকল্প নেই। আর ফ্যাটি এসিডের অন্যতম উৎস হলো তৈলাক্ত মাছ। সপ্তাহে অনন্ত দুইবার করে এই মাছ খেলে তা ডায়াবেটিসে দৃষ্টিহীনতার ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। সম্প্রতি নতুন এক গবেষণায় এমন তথ্যই উঠে এসেছে।

তবে ফ্যাটি এসিডের জন্য প্রতিদিন যে মাছ খেতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রতিসপ্তাহে অন্তত দুইবার করে তৈলাক্ত মাছ খাওয়া উচিত। এতেই ডায়াবেটিস রোগীদের মধ্যবয়সে চোখের জটিলতার ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যাবে।

গবেষকরা বলছেন, টাইপ টু ডায়াবেটিস বহু মানুষের জন্যই বাড়তি ঝুঁকি বয়ে আনে। এ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে দৃষ্টিশক্তি বিধ্বংসী চোখের রোগ। অনেক ডায়াবেটিস রোগীই ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথিতে আক্রান্ত হন। এ রোগে সারা বিশ্বের অসংখ্য ডায়াবেটিস রোগী অন্ধ হয়ে যান। আর টাইপ টু ডায়াবেটিসের রোগীদের বয়স যতই বাড়ে ততই এ রোগের ঝুঁকি বাড়তে থাকে।

তারা বলেছেন, চোখের রেটিনাতে প্রয়োজন হয় লং-চেইন ওমেগা-থ্রি পলিস্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড। আর এ চাহিদা পূরণ করার জন্যই প্রয়োজন হয় মাছের তেলের মতো খাবারের। তবে শুধু মাছের তেলেই নয়, এ ফ্যাটি এসিড পাওয়া যায় আরও কিছু খাবারে। এসবের মধ্যে রয়েছে এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল ও বিভিন্ন ধরনের বাদাম।

এ বিষয়ে গবেষণার জন্য গবেষকরা ২,৬১১ জন অংশগ্রহণকারীর ওপর অনুসন্ধান চালান। তারা দৈনিক ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড প্রয়োজনীয় মাত্রায় দৈনিক গ্রহণ করেন। এরপর তাদের বিভিন্ন বয়স, ছেলে-মেয়ে, লাইফস্টাইল ও বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্যগত বিষয়ের মাপকাঠিতে পর্যবেক্ষণ করা হয়।

পরে দেখা যায়, যে টাইপ টু ডায়াবেটিস রোগীরা প্রতিদিন ৫০০ মিলিগ্রাম বা তার বেশি ওমেগা-থ্রি পলিস্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড গ্রহণ করেন তাদের চোখের বিশেষ সমস্যাটি ৪৮ শতাংশ কম হয়।

এ বিষয়ে গবেষণাটির ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে জেএএমএ অপথ্যালমল জার্নালে। তথ্যসূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে