সুসম্পর্ক বজায় রাখতে....

  অনলাইন ডেস্ক

০৯ আগস্ট ২০১৭, ১১:৫১ | আপডেট : ০৯ আগস্ট ২০১৭, ১২:০৩ | অনলাইন সংস্করণ

জীবনে সুখী হতে এবং একটি সুখী সংসারের স্বপ্ন সবাই দেখে। এক্ষেত্রে কেউ কেউ সফল হলেও অনেকেই ব্যর্থ হন। আসলে প্রতিটি সম্পর্ক হলো চর্চার বিষয়। দম্পতি হিসেবে যত নিখুঁত হোন না কেন, সুসম্পর্ক বজায় রাখতে প্রত্যেককেই কিছু অভ্যাস অনুসরণ করতে হয়। সুখী দম্পতিরা কিছু বিষয় মেনে চলেন বলেই তারা সুখী। তারপরও সংসারে নানা টানাপোড়েন আসেই। এই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠার দায়িত্ব কিন্তু কারও একার নয়। এক্ষেত্রে সুসম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে দুজনকেই উদ্যোগী হতে হয়।

এক্ষেত্রে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে যা করবেন, যা করবেন না-

সবসময় সাহায্য করবেন না

জীবনে চলার পথে সুসময় কিংবা দুঃসময়ে একে অপরের পাশে দাঁড়াবেন এটাই স্বাভাবিক।কিন্তু সঙ্গীটিকে সবসময় সাহায্য করার অভ্যাসটি ত্যাগ করুন। তা না হলে আপনার সঙ্গীর মধ্যে পরনির্ভরশীল হওয়ার মানসিকতা তৈরি হবে। এতে আপনার সঙ্গী সঠিক সময়েে একা একা কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না। এতে সমস্যা বাড়বে, বৈ কমবে না।

দামী উপহার নয়

আপনি সবসময় আপনার সঙ্গীকে দামী উপহার দিতে পছন্দ করেন। কিংবা আপনিও উল্টো দিকের মানুষটির কাছ থেকে দামি উপহারই পেয়ে থাকেন। কিন্তু এমন হয়, যখন তার হাতে হয়ত মূল্যবান গিফট কেনার মত টাকা নেই। কিন্তু আপনার কাছে ছোট হয়ে যাওয়ার ভয়ে দামি উপহার কিনতে তিনি বাধ্য হন। এ বিষয়টাও কিন্তু সম্পর্কে প্রভাব পড়ে। কাজেই সুসম্পর্ক বজায় রাখতে সবসময় দামি উপহার দেওয়া থেকে বিরত থাকুন।

আবেগকে সম্মান জানান

যেসব নারী ভাবেন, তাদের তুলনায় তার স্বামী কিংবা সঙ্গী অতিরিক্ত আবেগপ্রবণ। পুরুষদের কাছে সেসব নারীদের সম্মান খানিকটা কম। সে কারণে পুরুষের আবেগকে সম্মান জানান। দেখবেন সম্পর্কটা আগের থেকে আরও মজবুত হয়ে গেছে।

আগে যেমন ছিলেন, তেমন থাকুন

সম্পর্কে যাওয়া মানে নিজের ক্যারিয়ার, নিজের পছন্দ, বন্ধু-বান্ধবের থেকে দূরে সরে যাওয়া নয়। তাই আগে যেমন চলতেন, পারলে এখনও ঠিক তেমনিভাবে চলার চেষ্টা করুন।

সঙ্গীর পছন্দকে গুরুত্ব দিন

নিজেকে সুন্দর দেখাক সেটা তো সবাই চায়। কিন্তু আপনার পুরুষ সঙ্গী যদি আপনাকে মেকআপ ছাড়া, খুব সাধারণ ভাবে দেখতে চান, তবে তার এই আবদারটুকুকেও গুরুত্ব দিন। দেখবেন, এতে করেও সম্পর্কের ভিতটা মজবুত হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে