বৃষ্টিভেজা ভালোবাসা হয়ে উঠুক আরও মধুর

  অনলাইন ডেস্ক

১২ আগস্ট ২০১৭, ১৩:০৫ | আপডেট : ১২ আগস্ট ২০১৭, ১৩:১৪ | অনলাইন সংস্করণ

শিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায় যথার্থই গেয়েছিলেন-

‘এই মেঘলা দিনে একলা
ঘরে থাকেনা তো মন
কাছে যাবো কবে পাবো
ওগো তোমার নিমন্ত্রণ।।’

সত্যিই বৃষ্টির দিনে কোন কাজে মন বসে না। মনটা কোথায় যেন হারিয়ে যেতে চায়। সেই আদিকাল থেকেই অনেক রোমান্টিক স্মৃতির সাক্ষী এই বৃষ্টি। বৃষ্টি নিয়ে কত গল্প, ছড়া, কবিতা, গান আছে তার কোন হিসেব নেই। নগর জীবনে ছুটে চলা ব্যস্ত মানুষটাও কিন্তু বৃষ্টির দিনে আকাশের দিকে তাকিয়ে কোন প্রিয় মুহূর্ত স্মরণ করে। তখন মনটা এক অজানা ভালোলাগায় ভরে যায়। বৃষ্টিতে অফিসে থাকলে এর রিমঝিম শব্দে কাজটা আরও উপভোগ্য করে তোলা সম্ভব। আর যদি বাসাতে থাকেন, তাহলে তো কোন কথাই নেই। প্রিয়জনের সঙ্গে সময়টা আনন্দে কাটিয়ে দিন।  এতে করে বৃষ্টির দিনটি আরও বেশি উপভোগ্য হয়ে উঠবে। একইসঙ্গে সম্পর্কটাও হবে আরও মধুর।

এক্ষেত্রে বৃষ্টির দিনটি স্মরণীয় রাখতে যা করবেন-

প্রিয় মানুষটির সঙ্গে টিভি দেখুন

কর্মব্যস্ততার জন্য হয়ত নিজের জন্য কিংবা প্রিয় মানুষটির জন্য কোন সময় বের করতে পারেন না। এক্ষেত্রে বৃষ্টির দিন হতে পারে একটি ভালো সুযোগ। বৃষ্টি বন্দি এই দিনে হাতে চায়ের পেয়ালা নিয়ে প্রিয় মানুষটির সঙ্গে টিভি দেখে কিছুটা সময় কাটান। সম্ভব হলে পুরো পরিবার মিলে দেখুন কোনো সিনেমা। সঙ্গে রাখুন পাকোড়া, চানাচুরসহ নানা খাবার, যা সময়টাকে করে তুলবে আরও মধুময়।

জমিয়ে আড্ডা

বৃষ্টির দিনে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়া বা কোনো অনুষ্ঠানে যাওয়ার চিন্তা একেবারেই বাদ দিন। বরং ঘরে বসেই সঙ্গীকে নিয়ে জমিয়ে আড্ডা দিন। এ সময় দাবা, লুডু, তাস বা যেকোনো খেলাও খেলতে পারেন। এতে করে সময়টা ভালোভাবে কেটে যাওয়ার পাশাপাশি সম্পর্কটাও মধুর হবে।

রান্না করুন

বৃষ্টি দিনে রান্নায় এক অন্যরকম আনন্দ লুকিয়ে থাকে। আর কাজের সঙ্গী যদি হয় প্রিয় মানুষটি তাহলে তো কথাই নেই। একসঙ্গে দুজন মিলে রান্না করতে পারেন কোনো স্পেশাল আইটেম। বৃষ্টির দিনে একসঙ্গে রান্না করলে শুধু সময়টা ভালোভাবে কেটে যাবে না, একইসঙ্গে দুজনের বোঝাপড়াও মজবুত হবে।

একসঙ্গে বসে বই পড়া

বৃষ্টির দিন গল্পের বই পড়েও সময় কাটাতে পারেন। দুজন মিলে একসঙ্গে আরামদায়ক কোনো স্থানে বসে যদি গল্পের বই পড়েন, তাহলেও ভালো সময় কাটবে। এক্ষেত্রে অবশ্যই খেয়াল রাখবেন, দুজন যেন বিচ্ছিন্ন হয়ে না বসেন। একটু ভালো লাগার স্পর্শ নিশ্চয়ই রোমান্টিক অনুভূতি বাড়িয়ে দেবে।

প্রিয় মানুষদের সঙ্গে যোগাযোগ

বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কাজের ব্যস্ততাও বাড়তে থাকে। এ সময় শুধু পরিবার নয়, কাছের মানুষদের সঙ্গে সময় বের করাটাও কঠিন হয়ে পড়ে। তাই বৃষ্টির দিনের এই সুন্দর সময়ে কাছের মানুষদের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। তাদের সঙ্গে পুরনো দিনের কথাগুলো ভাগাভাগি করুন।

নাচ

বৃষ্টির দিনে একটু সাহসী হলে ক্ষতি কী? নাচতে পারেন না বলে অজুহাত খুঁজে লাভ নেই। নিজেকে মেলে দিন। চালিয়ে দিন রোমান্টিক কোনো গান। নিজেকে উৎফুল্ল রাখুন। প্রিয়জনের কিছুটা সান্নিধ্যে গেলে বৃষ্টির দিনটি নিশ্চয়ই মধুর হয়ে থাকবে।

ঘুমিয়ে সময় কাটান

ঘুমোতে কে না ভালোবাসে? আর বৃষ্টির এমন দিনে ঘুমিয়ে কাটাতেই পছন্দ করেন বেশিরভাগ মানুষ। সারা সপ্তাহের ক্লান্তিকে দূরে রেখে একটু আয়েশ করে ঘুমোনোর সময় এই দিন। এতে সময়টাও ভালোভাবেই কেটে যায়।

একটু আদর

ভালোবাসার মানুষের সান্নিধ্যে কে না পেতে চায়? মন থেকে সবারই নিশ্চয়ই চাওয়া থাকে—বৃষ্টির দিনটিতে ভালোবাসার বৃষ্টি হোক। এতে করে সম্পর্কটা হয়ে উঠবে আরও মধুময়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে