নারীদের হত্যার পর কেটে খেতো এই দম্পতি

  অনলাইন ডেস্ক

১১ আগস্ট ২০১৮, ১৩:০০ | অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার এক দম্পতির বিরুদ্ধে অন্তত ৩০ জন নারীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এমনকি হত্যার পর তাদের শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ কেটে খেতো এই দম্পতি। অবশিষ্ট অংশগুলো স্যালাইনের মাধ্যমে বোতলে ভরে সংগ্রহে রেখে দিতেন তারা। নাতালিয়া বাকসশিভা ও তার স্বামী দিমিত্রির নামে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে তদন্তকারীরা। পরীক্ষা শেষে তাদেরকে ‘‌মানসিক বিকারগ্রস্ত নরখাদক’‌ হিসেবে অ্যাখ্যা দেন মনোবিদরা।

দ্য ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে নরহত্যার দায়ে গ্রেপ্তার করা হয় নাতালিয়া ও দিমিত্রিকে। গ্রেপ্তারের পরেই তাদের মধ্যে কিছু অস্বাভাবিক আচরণ খেয়াল করেন তদন্তকারীরা। তখন মনোবিদদের একটি দলকে নির্দেশ দেওয়া হয় তাদের পরীক্ষা করার জন্য।  এর পরই বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর নানা তথ্য।

মনোবিদরা জানিয়েছেন,নাতালিয়া ও দিমিত্রি ৩০ জন নারীকে হত্যা করে কেটে খেয়েছেন। এতে তাদের মধ্যে কোনো অনুতাপ বা অনুশোচনা নেই।

তবে এতো মানুষ হত্যার পরও পুলিশের সন্দেহের তালিকা থেকে কয়েকশ গজ বাইরে ছিলেন এই দম্পতি। এলিনা ভারুশিভা নামে এক তরুণী নিখোঁজ হওয়ার পরে তদন্ত শুরু করেছিল পুলিশ। এদিকে নাতালিয়াদের বাড়ির পিছনে একটি আবর্জনার স্তূপ থেকে এলিনার মোবাইল ফোনটি খুঁজে পান একদল নির্মাণ কর্মী। মোবাইল ফোনটি পুলিশের কাছে জমা দিলে তখন সন্দেহ গিয়ে পড়ে নাতালিয়াদের ওপরে। প্রথমে জেরা করার পরে গ্রেপ্তার করা হয় এই যুগলকে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে