হোয়াটসঅ্যাপের কারণে বিয়েই ভাঙল কনের!

  অনলাইন ডেস্ক

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৬:০৬ | অনলাইন সংস্করণ

বিশ্বায়নের যুগে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, টুইটার ছাড়া এক কদম চলতেও হোঁচট খায় মানুষ। কিন্তু এর জন্য এমন খেসারত দিতে হবে তা স্বপ্নেও ভাবেনি ভারতের উত্তরপ্রদেশের আমরোহার এক পরিবার। কনে অতিরিক্ত হোয়াটসঅ্যাপ করেন বলে বিয়ে ভেস্তে গেল। তাও আবার বিয়ের দিনেই।

পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কনে ও তার পরিবার গত বুধবার বরযাত্রীর জন্য অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু সঠিক সময়ে বরযাত্রী না আসায় কনের বাবা পাত্রের বাবাকে ফোন করেন। তখন পাত্রের বাবা জানিয়ে দেন তারা বিয়ে বাতিল করে দিয়েছেন। কারণ হিসেবে জানান, কনের হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রাম করার অতিরিক্ত ঝোঁকের ফলেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

পাত্রপক্ষের দাবি, বিয়ের লগ্নের আগেও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাট করছিলেন কনে। আমরোহা পুলিশের কাছে এই অভিযোগ জানিয়েছে পাত্রপক্ষ।

যদিও পাত্রীপক্ষ এই অভিযোগ মেনে নেয়নি। তাদের দাবি, পণের দাবি না মেটাতে পারার কারণেই বিয়ের দিন বিয়ে ভেস্তে দিয়েছেন পাত্রপক্ষ। পাত্রীর বাবা উরজ মেহান্দি পাত্রের বাবার বিরুদ্ধে ৬৫ লাখ টাকা পণ চাওয়ার অভিযোগ দায়ের করেছেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে