‘যে দল ভালো খেলবে তারাই জিতবে’

  সুসান্ত উৎসব

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

সাকিবভক্তদের মনে এখন দুইটি প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছেÑ এক, বাংলাদেশের বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার কেমন আছেন? আরেকটু ঘুরিয়ে বললে, আঙুলের অবস্থা কেমন? দুই, শ্রীলংকায় অনুষ্ঠেয় নিদাহাস ট্রফিতে কি তিনি খেলতে পারবেন?

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে আঙুলে চোট পেয়েছিলেন সাকিব। চোটের কারণে ওই ম্যাচে তিনি ব্যাটিংয়েই আর নামতে পারেননি। এমনকি আঙুলে পাওয়া চোট তাকে ছিটকে দিয়েছিল শ্রীলংকার বিরুদ্ধে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকেও।

আশার কথা হচ্ছে, সাকিব আল হাসান এখন ভালো আছেন। চোট অনেকটাই কাটিয়ে উঠেছেন তিনি। গতকাল বিসিবি একাডেমি ভবনের জিমে দেখা গেল সাকিব আল হাসানকে। কয়েকজন সংবাদকর্মী সেখানে হাজির হতেই বেশ কিছুক্ষণ প্রাণখুলে আড্ডা দিলেন বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। দেখালেন আঙুলের আঘাত পাওয়া জায়গাটাও। বললেন, ১০টা সেলাই পড়েছে। আল্লাহর রহমতে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠেছি।

ঘণ্টা দুয়েকের মতো এদিন অনুশীলন করেছেন বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক। বিসিবি একাডেমি মাঠে বোলিংও করতে দেখা গেছে তাকে। নির্দিষ্ট জায়গায় দাঁড়িয়ে থেকে বল করেছেন। বোলিংয়ে ফেরাটাই ইঙ্গিত দিচ্ছে, তিনি ফিরছেন। সবকিছু ঠিক থাকলে নিদাহাস ট্রফি দিয়েই আবারও জাতীয় দলের লাল-সবুজ জার্সিতে মাঠে দেখা যাবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে।

৬ মার্চ থেকে মাঠে গড়াবে নিদাহাস ট্রফি। স্বাগতিক শ্রীলংকা, ভারত ও বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এই ক্রিকেট আসরে অংশ নেবে। টাইগাররা কি পারবেন, তিন জাতির এই টুর্নামেন্টের শিরোপা জিততে? কাজটা যে কঠিন হবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। দেশের মাটিতে খেলবে শ্রীলংকা। তারা বাড়তি সুবিধা পাবে। শিরোপার রেসে থাকছে ভারতও। বাংলাদেশের জন্য চিন্তার কারণ ফর্ম।

২০১৮ সালের শুরুটা বাজে হয়েছে টাইগারদের। ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জিততে পারেনি। ফাইনালে শ্রীলংকার কাছে বাজেভাবে হেরে গেছে স্বাগতিকরা। এর পর সাবেক কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শ্রীলংকার কাছে হেরেছে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজও। এই দুই সিরিজেই চোটের কারণে খেলা হয়নি সাকিবের।

টাইগারদের দুঃসময়টা কাটিয়ে ওঠার মোক্ষম সুযোগ এখন নিদাহাস কাপ। কুড়ি ওভারের ক্রিকেট হওয়ায় আশার পালে ভেলা ভাসাচ্ছেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক বললেন, ‘কোনো দলকেই (শ্রীলংকা-বাংলাদেশ-ভারত) আমি ফেভারিট বলব না। ২০ ওভারের ক্রিকেট। সব দলের সামনেই সমান সুযোগ থাকবে। আমি মনে করি, ম্যাচের দিন মাঠে যে দল ভালো খেলবে, তারাই জিতবে।’

শ্রীলংকার বিরুদ্ধে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলা হয়নি সাকিবের। অনেক ক্রিকেটবোদ্ধাই বলেছেন, ওই দুই সিরিজে সাকিব খেললে ফল অন্যরকমও হতে পারত। সিরিজ জিততে না পারলেও ড্র হতো। সাকিব অবশ্য এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে দলের এমন পরাজয়ে তিনি নিজেও কষ্ট পেয়েছেন। সাকিবের বিশ্বাস, আসন্ন নিদাহাস ট্রফিতে ঘুরে দাঁড়াবে বাংলাদেশ দল। তিনি মনে করেন, দলটির সে সামর্থ্য আছে।

সাকিব কথা বলেছেন টি-টোয়েন্টিতে মাশরাফির ফেরা নিয়েও। গত বছরের মার্চে শ্রীলংকা সফরে গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। ওই সময় হঠাৎ করেই সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়ে বসেন মাশরাফি। তবে বিসিবি সভাপতি এখন নড়াইল এক্সপ্রেসের টি-টোয়েন্টিতে খেলার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করতে পেরেছেন। তাই তো নাজমুল হাসান বলেছেন, আমি চাই টি-টোয়েন্টিতে ফিরুক মাশরাফি।

কদিন ধরেই ক্রিকেটপাড়ায় মাশরাফির আবারও টি-টোয়েন্টিতে ফেরা নিয়ে চলছে আলোচনা। এক পক্ষ চাইছেন তিনি ফিরুক; আরেক পক্ষ বলছেন, না ফেরাটাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। তবে সাকিব বলছেন, এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করে মাশরাফির ওপর। তিনি বলেন, ‘ফিরবেন কি না, এটা ওনার (মাশরাফি) ব্যক্তিগত ব্যাপার। তবে আমি মনে করি, উনি সঠিক সিদ্ধান্তটাই নেবেন।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে