• অারও

তুষারের জোড়া সেঞ্চুরি

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৪ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৪ এপ্রিল ২০১৮, ০১:১৪ | অনলাইন সংস্করণ

তার ক্ষুরধার ব্যাটিং চলছেই। দিনে দিনে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছেন। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ১০ হাজার রান সংগ্রহের রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি। সেই তুষার ইমরান বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগেও (বিসিএল) তারুণ্যদীপ্ত ব্যাটিং করে যাচ্ছেন। প্রায় দেড় যুগের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে অনেক রেকর্ড গড়েছেন। অধরা ছিল শুধু একই ম্যাচে জোড়া সেঞ্চুরির। সেই আক্ষেপও দূর হয়েছে। বাংলাদেশের ১২তম ব্যাটসম্যান ক্রিকেটে প্রথম শ্রেণির ম্যাচে জোড়া সেঞ্চুরি পেয়েছেন। দক্ষিণাঞ্চলের হয়ে প্রথম ইনিংসে ১৩০ রানের ঝকঝকে ইনিংসের পর গতকাল ১০৩ রান করে ‘অবসরে’ যান তুষার। ক্যারিয়ারে তার ২৮তম সেঞ্চুরির রেকর্ড এটি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১৫৬ ম্যাচ খেলে তুষারের রান সংখ্যা দাঁড়াল ১০৪১৮। তুষারের দিনে সেঞ্চুরি পেয়েছেন লিটন দাস (অপরাজিত ১১৩) ও আফিফ হোসেন (অপরাজিত ১০০)। ফলে অনুমিত ভাবেই দক্ষিণাঞ্চল ও পূর্বাঞ্চলের ম্যাচটি ড্র হয়েছে। উত্তরাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলের ম্যাচটিও ড্রয়ে নিষ্পত্তি হয়েছে। ১৭ এপ্রিল থেকে বিসিএলের পঞ্চম রাউন্ডের খেলা শুরু হবে।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গতকাল ম্যাচের চতুর্থ ও শেষ দিনে ব্যক্তিগত ৪৬ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন তুষার। তার সঙ্গী ছিলেন আগের দিন ২৯ রানে অপরাজিত থাকা সৌম্য সরকার। ব্যক্তিগত ৩৫ রানে সৌম্য আউট হলেও তুষারকে থামাতে পারেননি পূর্বাঞ্চলের বোলাররা। ১৪৫ বলে ১২টি চার ও ২টি ছক্কায় ১০৩ রান সংগ্রহ করার পর অসুস্থ হওয়ায় ‘অবসরে’ যান তুষার। ৭ উইকেটে ৩১১ রান সংগ্রহ করে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা দেয় দক্ষিণাঞ্চল। প্রথম ইনিংসে ১০৩ রানের লিড পাওয়ায় জয়ের জন্য পূর্বাঞ্চলকে ৪১৫ রানের টার্গেট দেয় তারা। জবাবে দ্বিতীয় ইনিংসে লিটন ও আফিফের সেঞ্চুরিতে পূর্বাঞ্চল এক উইকেট হারিয়ে ২২৪ রান সংগ্রহ করার পর ম্যাচটি ড্রয়ের দিকে গড়ায়। দুই ইনিংসেই সেঞ্চুরি পাওয়া তুষার ম্যাচসেরার পুরস্কার পান।

বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে আগের দিন অপরাজিত সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন উত্তরাঞ্চলের হয়ে খেলা মুশফিক। শেষ দিনে ইনিংসটি বেশি লম্বা করতে পারেননি। ব্যক্তিগত ১১১ রানে আউট হন। সবকটি উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে উত্তরাঞ্চল সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩০০ রান। ফলে ফলোঅনে পড়ে উত্তরাঞ্চল। কেননা প্রথম ইনিংসে মধ্যাঞ্চল ৫২৯ রান তুলেছিল। ফলোঅনে পড়ে দ্বিতীয় ইনিংসে আবারও ব্যাট করতে নেমে উত্তরাঞ্চল ২ উইকেট হারিয়ে ২১৩ রান সংগ্রহ করার পর ড্রয়ে নিষ্পত্তি হয় ম্যাচটি। মিজানুর রহমান অপরাজিত ১০০ রানের ইনিংস খেলেন। নাজমুল হোসেন শান্ত করেন ৮৯ রান। ম্যাচসেরা হন মধ্যাঞ্চলের সেঞ্চুরিয়ান মার্শাল আইয়ুব (১৩২ রান)।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে