আর্জেন্টিনায় কেন এই বিপর্যয়

কাঠগড়ায় সাম্পাওলি

  ক্রীড়া ডেস্ক

২৩ জুন ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২৩ জুন ২০১৮, ০১:২২ | অনলাইন সংস্করণ

এবারের রাশিয়া বিশ্বকাপে আলোচিত এক নাম আর্জেন্টিনা। শুধু রাশিয়া কেন, বিশ্ব ফুটবলের যে কোনো আসরেই আলোচনার কেন্দ্রে থাকে দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের দেশটি। তবে রাশিয়া বিশ্বকাপে আলোচনার মাত্রাটা আগের আসরগুলোর চেয়ে একটু বেশিই। তার কারণও যথেষ্ট। অঘটনের মধ্য দিয়ে এবারের আসর শুরু করেছে আলবিসেলেস্তারা। বিশ্বকাপের নবিশ দল আইসল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচেই ১-১ গোলে ড্র করে। সেই থেকেই হিসাব-নিকাশ শুরু। বিশ্বকাপে টিকে থাকতে পারবে তো সাম্পাওলির দল। নাকি গ্রুপপর্ব থেকেই বাড়ির পথ ধরবে? পরশু রাতে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলের ব্যবধানে হেরে সেই আলোচনাকে বেগবান করেছেন মেসি-হিগুয়েনরা। যদি-কিন্তুর বেড়াজালে এখন বিশ্বকাপ ভাগ্য ঝুলে গেছে মেসিদের। হারের পর আলোচনার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে গেছে সমালোচনাও। ঘরে-বাইরে দারুণভাবে সমালোচিত হচ্ছেন। সাধারণ থেকে বোদ্ধারা যোগ হয়েছেন তাতে। মেসিদের প্রশ্নবিদ্ধ পারফরম্যান্স বিশ্ব মিডিয়াতেও ব্যাপকভাবে প্রচার হয়েছে।

ব্রিটিশ মিডিয়া ডেইলি মেইল লিখেছে, ‘ব্যর্থ মেসি; এখনো কিছুই করতে পারেননি।’ বিবিসির ভাষ্য, ‘মেসি এবং আর্জেন্টিনা কি অনেক বেশিই চাপে ছিল।’ একইভাবে যুক্তরাজ্যের আরেক গণমাধ্যম দ্য সান লিখেছে, হারের পর মেয়েদের মতো কেঁদেছে আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়রা। যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম সিএনএনের ভাষ্য, ‘নিজের ছায়া হয়ে ছিলেন মেসি।’ ম্যারাডোনাকে নিয়েও গণমাধ্যমটি আলাদা একটি খবর ছাপিয়েছে, যাতে লেখা ছিল, ‘আর্জেন্টিনার হারে কেঁদেছেন ম্যারাডোনা।’ ভারতের জনপ্রিয় পত্রিকা টাইমস অব ইন্ডিয়া লিখেছে, ‘বিশ্বকাপ স্বপ্ন ধূলিসাতে বেদনাহত মেসি।’ এ তো গেল বিশ্ব গণমাধ্যমের

খবর। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে হারের পর আর্জেন্টিনার সাবেক খেলোয়াড় থেকে শুরু করে অন্য দেশের খেলোয়াড়রাও মেসিদের পারফরম্যান্স

নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, সমালোচনা করেছেন। আর্জেন্টিনার ১৯৭৮ বিশ্বকাপ জয়ী দলের খেলোয়াড় ওসভালদো আরদিলেস বলেছেন, ‘আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ ইতিহাসে এটিই সবচেয়ে বাজে দল।’ ইংল্যান্ডের সাবেক তারকা ফুটবলার রিও ফার্দিন্যান্ড বলেছেন, মেসি; আর্জেন্টিনার জন্য তোমাকে অনেক বেশিই প্রয়োজন। এ ছাড়া আর্জেন্টিনার সাবেক খেলোয়াড় ও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের কোচ দিয়েগো সিমিওনে, স্পেনের তারকা খেলোয়াড় সেস ফ্রেবেগাসসহ অনেকেই মেসিদের পারফরম্যান্সের কড়া সমালোচনা করেছেন।

আলোচনা-সমালোচনার পাশাপাশি মেসিদের হার নিয়েও চলছে বিস্তর কাটাছেঁড়া। বিশেষ করে সাম্পাওলির কোচিং নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। একাদশ সাজানো, ফরমেশন, অধিনায়ক মেসির মতামতকে গুরুত্ব না দেওয়া এসব বিষয় উঠে আসছে। এর বাইরে হারের সুনির্দিষ্ট পাঁচটি কারণ খুঁজে বের করেছেন বোদ্ধারাÑ ইকার্দিকে চূড়ান্ত স্কোয়াডে না রাখা; পাওলো দিবালাকে বসিয়ে আকুনাকে সেরা একাদশে খেলানো; ভুল ফরমেশন (অগ্রভাগে একজন স্ট্রাইকার); দক্ষ লেফট উইঙ্গারের অভাব এবং এক নম্বর গোলরক্ষক রোমেরো ইনজুরিতে ছিটকে পড়া।

তবে সব কিছু ছাপিয়ে গেছে আর্জেন্টাইন খেলোয়াড় এবং কোচ সাম্পাওলির দ্বন্দ্বের বিষয়টি। আর্জেন্টিনার জনপ্রিয় টিওয়াইসি স্পোর্টস জানিয়েছে, ম্যাচের পর পরই আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়রা একত্র হয়ে সাম্পাওলির বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে। কোচকে তারা বলে দিয়েছে দল থেকে পদত্যাগ করার জন্য। এমনকি নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের সময়ও মেসিরা আর চান না সাম্পাওলি কোচের পদে থাকুক। হোর্হে বুরুচাগাকে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে আর্জেন্টিনা দলের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালনের জন্যও খেলোয়াড়দের পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

টিওয়াইসি স্পোর্টসের আরেক সংবাদে বলা হয়েছে, ম্যাচের পর কোচের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি খেলোয়াড়রা। এমনকি নিয়মিত যে টিম মিটিং হয়, সেগুলোরও কোনোটাই হয়নি। খেলোয়াড়রা সোজা গিয়ে টিম বাসে উঠে চলে যান হোটেলে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে