নারীবিদ্বেষী মন্তব্য : অনির্দিষ্টকালের জন্য নিষিদ্ধ হার্দিক-রাহুল

  ক্রীড়া ডেস্ক

১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১৩:২১ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১৩:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

ন্যাশনাল টিভি চ্যানেলে নারীবিদ্বেষী মন্তব্য করায় অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে পারলেন না ভারতীয় দুই ক্রিকেটার হার্দিক পাণ্ডে ও লোকেশ রাহুল।  একইসঙ্গে সব ধরণের সিরিজ থেকে তাদের অনির্দিষ্টকালের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ড (বিসিসিআই)।

গতকাল শুক্রবার বিসিসিআই প্রশাসকদের কমিটির সিইও বিনোদ রায় এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে বলেছেন, ‘তদন্ত চলা পর্যন্ত দুজনেই নির্বাসিত থাকছে।' ফলে আপাতত রাহুল-হার্দিক দুজনই জাতীয় দলের বাইরে থাকছেন।

একইদিন সিডনি থেকে হার্দিক-লোকেশকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়। ভারতের ৮২ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো খেলোয়াড়কে আচরণ ভঙ্গের জন্য দেশে ফেরত পাঠানো হলো।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুরুতে কেবল প্রথম ওয়ানডে থেকে বাদ দেওয়া হয় হার্দিক ও লোকেশকে। এর অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে তারা পুরো সিরিজ খেলতে পারবেন না বলে জানায় বিসিসিআই।

তবে এই ঘটনাটি ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল কমিটির অভ্যন্তরীণ কমিটি তদন্ত করবে, নাকি অ্যাডহক ওমবুডসম্যান তদন্ত করবেন, তা এখনও ঠিক হয়নি।

আজ শনিবার সিডনিতে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে তিন ম্যাচের সিরিজের টস হেরে খেলতে নেমেছে ভারত।  রাহুল-হার্দিকের পরিবর্তে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে ভারতীয় দলে ডাক পেয়েছেন ঋষভ পান্থ ও মণীশ পাণ্ডে।

সম্প্রতি ‘কফি উইথ করণ’ শোতে হার্দিক পাণ্ডের মন্তব্যে রীতিমতো সমালোচনার ঝড় উঠেছে দেশজুড়ে।  পর্বটি সম্প্রচার হওয়ার পর পরই বিসিসিআই এর সিইও বিনোদ রায় তাদের নির্বাসনের দাবি করেন।  সেখানে অপেক্ষা ছিল বোর্ড অব ট্রাস্টি ডায়না এডুলজির মতামতের। শুক্রবার তিনি মত দিতেই নিশ্চিত হয়ে যায় দুই ক্রিকেটারের নির্বাসনের কথা।

এডুলজি তার মতামত জানিয়ে বলেন, ‘যখন বিসিসিআই-এর সিইও রাহুল জোহুরির বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল তখন তাকেও ছুটিতে পাঠানো হয়েছিল, সে কারণে প্লেয়াররাও সিদ্ধান্ত হওয়া পর্যন্ত নির্বাসনে থাকবে।’

এদিকে টেলিভিশন শোতে নিজের মন্তব্যের জন্য বুধবার ইস্টা গ্রাম পোস্টে ক্ষমা চান হার্দিক। তিনি লিখেন, ‘কফি উইথ করণে আমার মন্তব্যের জন্য আমি দুঃখিত। আমি যদি কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকি তার জন্য আমি ক্ষমা চাইছি। সত্যি কথা বলতে কী শো-এর চরিত্রের সঙ্গে আমি কিছুটা বয়ে গিয়েছিলাম। আমি কোনওভাবেই কারও আবেগ বা সম্মানকে আঘাত করতে চাইনি।’

বিসিসিআই-এর পক্ষ থেকে অনিরুদ্ধ চৌধুরী প্রশ্ন তুলেছিলেন, এই দুই প্লেয়ারকে টিভি শো-তে যাওয়ার অনুমতি কে দিল, সেটা নিয়েও তদন্তের দাবি উঠেছে।  নিয়ম অনুযায়ী বিসিসিআই-এর চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের কোনো অনুষ্ঠানে যেতে হলে অনুমতি নিতে হবে বোর্ডের।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে