ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন

এই অর্জনের ধারাবাহিকতা চাই

  সম্পাদকীয়

১২ মার্চ ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১২ মার্চ ২০১৮, ০০:৪৭ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশ শ্রীলংকায় নিদাহাস ট্রফি জেতেনি। কিন্তু স্বাগতিক শ্রীলংকার বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে। এ জয়টি বড় কাক্সিক্ষত ছিল। কারণ বাংলাদেশ ক্রিকেট দল গত কয়েক মাস পরাজয়ের বৃত্তে আটকে পড়েছিল। সর্বশেষ ১৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মাত্র ১টি জয় ছিল। পর পর গত পাঁচটি ম্যাচে টাইগাররা পরাস্ত হয়েছিল। সেসব হারও ছিল বড় ব্যবধানে। লাগাতার হার যে কোনো দলের আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরায়, ভালো খেলার পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়। আমাদের প্রধান একজন খেলোয়াড় ওপেনার তামিম ইকবাল বারবার বলেছেন, একটি জয় সব কিছু পরিবর্তন করে দিতে পারে। পুরো দল এবং তাদের পেছনে গোটা জাতি সেই আকাক্সিক্ষত জয়ের জন্য একেবারে মুখিয়ে ছিল। টাইগার দল নিজেদের ও জাতির প্রত্যাশা আশাতীতভাবে পূরণ করেছে। তাদের অভিনন্দনÑ প্রাণঢালা অভিনন্দন।

টি-টোয়েন্টি এখন ক্রিকেটের এক জনপ্রিয় ফরম্যাট। সব ক্রিকেট খেলুড়ে দেশেই এর টুর্নামেন্ট আছে এবং উচ্চমূল্যে বিশ্ব ক্রিকেটের তারকারা এতে অংশ নিয়ে দর্শকদের মাতিয়ে তোলেন। বাংলাদেশ এই ফরম্যাটটিতে এখনো দুর্বল রয়েছে, তেমন উল্লেখযোগ্য জয় পায়নি। জয়ের চেয়ে হারের মাত্রা এত বেশি যে, বাংলাদেশ এতে তেমন গণ্য হয় না। টি-টোয়েন্টির জনপ্রিয় টুর্নামেন্টগুলোয় অন্যান্য দেশের বিস্তর খেলোয়াড় উচ্চমূল্যের নিলামে ডাক পেলেও বাংলাদেশ থেকে নিয়মিত এতে ডাক পান মাত্র দুজন খেলোয়াড়Ñ সাকিব ও মোস্তাফিজ। অন্যরা অনিয়মিতভাবে পেয়ে থাকেন।

সেদিক থেকে শ্রীলংকার বিপক্ষে দুই শতাধিক রানের টার্গেট তাড়া করে ছিনিয়ে আনা বিজয়ে বাংলাদেশের প্রাপ্তি অনেক। দীর্ঘ খরার পর ভরা বর্ষার আমেজ আনা বিজয় তো আছেই, আছে খেলোয়াড়দের জন্য অত্যাবশ্যকীয় আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার মতো মূল্যবান প্রাপ্তি। এর ওপর এবার থেকে টি-টোয়েন্টির শক্তি হিসেবে গণ্য হওয়ার শুরুটাও হবে বলে মনে হয়। তবে হ্যাঁ, খেলাধুলায় সুনাম বজায় রাখতে হলে সবচেয়ে জরুরি হলো ধারাবাহিকতা। খেলায় হার-জিত আছে, থাকবে, কিন্তু লড়াই করার মতো পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা চাই। সেখানে বাংলাদেশের ঘাটতি আছে। আশা করি কোচ, টেকনিক্যাল বিশেষজ্ঞ এবং বোর্ড ধারাবাহিকতার জন্য কাজ করবে। বাংলাদেশের অগ্রযাত্রার একটি বড় মিশন তো হলো আমাদের ক্রিকেট দলের সাফল্য। এবারের সাফল্যের জন্য আবারও অভিনন্দন এবং ভবিষ্যতে ঘন ঘন যেন এমন আনন্দের উপলক্ষ তৈরি হয় সে প্রত্যাশাও জানিয়ে রাখতে চাই। এটি আদতে জাতিরই কামনা।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে