ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগে নেতৃত্বে আসছেন যারা

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২৪ এপ্রিল ২০১৮, ০১:৪০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সম্মেলন ঘিরে চাঙ্গা হয়ে উঠেছে ঢাকা মহানগর ছাত্রলীগ। নেতা হওয়ার দৌড়ে লবিং-তদবির শুরু করেছেন শীর্ষ পদপ্রত্যাশীরা। আগামীকাল বুধবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এবং পরদিন বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। রাজধানীর ঢাকা মহানগর নাট্যমঞ্চে দক্ষিণ এবং কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে উত্তর ছাত্রলীগের সম্মেলন ঘিরে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সংগঠন দুটির শীর্ষ নেতারা।  
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দুই শতাধিক নেতা মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য দৌড়ঝাঁপ করছেন। তবে ছাত্রলীগের বর্তমান ও সাবেক শীর্ষ নেতারা জানান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণে রাজধানীর পুরান ঢাকা থেকে একজন এবং মতিঝিল ও রমনা থেকে আরেকজনকে আনা হবে শীর্ষপদে। ঢাকা মহানগর উত্তরে বৃহত্তর ধানম-ি, মিরপুর, উত্তরা ও তেজগাঁও এলাকা থেকে শীর্ষ দুই পদের নেতা নির্বাচন করা হবে।  
ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি পদপ্রত্যাশী বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দীন আহমেদ। এ ছাড়া সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছেন বর্তমান কমিটির সহসভাপতি মাজহারুল হক মাহমুদ, মাহবুবুল আলম শোভন, মাহবুবুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান হৃদয়, ফারুক হোসাইন, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হাসান সম্রাট, সালমান খান প্রান্ত, সাগর মোল্লা, তেজগাঁও থানা ছাত্রলীগ সভাপতি হেলাল উদ্দীন, আদাবর থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ মাহমুদ, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন, গুলশান থানার সভাপতি আমিনুর রহমান নূর, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মহিউদ্দীন রুখসান, টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি মেহেদী হাসান প্রমুখ। তাদের মধ্যে উত্তরা ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আফসার খানের ভাতিজা সালমান খান প্রান্তর বিরুদ্ধে এলাকায় ডিশ ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ ও ব্যাপক চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি পদের শক্ত প্রার্থী বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ। এ ছাড়া সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছেন বর্তমান কমিটির সহসভাপতি এইচএম মাসুম, নজরুল ইসলাম অর্ণব এবং গোলাম রব্বানী রাজবীর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালীউল্লাহ সৌরভ, সাজ্জাদ হোসেন তপু, সাংগঠনিক সম্পাদক এম সাইফুল ইসলাম সাইফ, উপসম্পাদক রিয়াদ খন্দকার, শ্যামপুর থানার সভাপতি শাকিল, সহসম্পাদক তারিকুল করিম মিল্লাত, রমনা থানার মিজানুর রহমান মিজান, পল্টন থানার সভাপতি নাজমুল হাসান মিরন, চকবাজার থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক  বেলাল হোসেন মুন্না, মতিঝিল থানা ছাত্রলীগের সভাপতি পলাশ মজুমদার ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান, কদমতলী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ মারুফ, সিদ্ধেশ্বরী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সভাপতি আশরাফুল হাসান লিনাজ প্রমুখ।
জানা গেছে, মহানগরে রাজনীতি করার কারণে প্রায় সব প্রার্থীর বিরুদ্ধেই কমবেশি অভিযোগ রয়েছে। বিভিন্ন এলাকাভিত্তিক মাদক ব্যবসা, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে অনেক প্রার্থীর নামে।

 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে