সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির দাবি

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৫ মে ২০১৮, ০১:২১ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল সোমবার পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে স্বজনরা এমনটাই জানিয়েছেন বলে জানান বিএনপি মহাসচিব।
মির্জা ফখরুল বলেন, সরকারকে অবশ্যই খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে বিশেষায়িত হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। অন্যথায় এর সব দায়-দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে।
গতকাল খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেন তার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার, বোন সেলিমা ইসলাম, ভাতিজা অভিক ইস্কান্দার, নাতনি রাইদা ইসলাম ও ভাগ্নে ডা. মামুন। বিকাল পৌনে ৫টা থেকে প্রায় এক ঘণ্টা তারা কারাগারের ভেতরে অবস্থান করেন।
পরিবারের সদস্যদের কাছে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার কথা শুনে রাতে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয় গুলশানে জরুরি সংবাদ সম্মেলন করেন মির্জা ফখরুল। এ সময় তিনি বলেন, খালেদা জিয়া আগের থেকেও অনেক বেশি অসুস্থ। তার স্বাস্থ্যের আরও অবনতি হয়েছে এবং তার স্বাস্থ্যের অবস্থা ক্রমান্বয়ে খারাপের দিকে যাচ্ছে। সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস রোগের ভয়াবহতার কারণে তিনি বাঁ হাত নাড়াতেই পারছেন না। গত এক সপ্তাহ ধরে জ্বরে ভুগছেন। তার কাঁপুনি দিয়ে জ্বর আসে। তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা করানোর সুপারিশের নথি এখন পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পড়ে আছে। কিন্তু কোনো নির্দেশনা আসেনি বলে তার সুচিকিৎসার ব্যাঘাত ঘটছে।
ফখরুল বলেন, এটা মানবিক ব্যাপার। খালেদা জিয়ার মতো জাতীয় নেতার সঙ্গে এমন আচরণ মেনে নেওয়া যায় না। কেন সরকার তার সুচিকিৎসা করবে না তা নিয়েও সন্দিহান তারা। তার ভাষায়, খালেদা জিয়াকে আরও অসুস্থ করে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্যই এমন আচরণ করা হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতিতে উৎকণ্ঠা প্রকাশ করে তার রোগের বর্ণনা দেন। তারা বলেন, দ্রুত সুচিকিৎসা করা না হলে তার বাঁ হাত অবশ হতে পারে, তিনি অন্ধত্ব এমনকি প্যারালাইসিসে আক্রান্ত হতে পারেন।
সংবাদ সম্মেলনে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরু ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, উপদেষ্টা অধ্যাপক সিরাজউদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক ডা. আব্দুল কুদ্দুস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে