মোবাইল ফোনে কথোপকথন

রেলের ধাক্কায় মায়ের মৃত্যু, অল্পের জন্য মেয়ের রক্ষা

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৭ মে ২০১৮, ০০:৫৮ | প্রিন্ট সংস্করণ

নাজমা বেগম (৩৫) তার অসুস্থ মাকে সুস্থ করে তুলতে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু সচেতনতার অভাবে তার মা ফিরোজা বেগম (৬১) চলে গেছেন সুস্থতা-অসুস্থতার অনেক ঊর্ধ্বে। তাকে আর কোনোদিন ফিরে পাওয়া সম্ভব নয়। নাজমা নিজেও অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন। নাজমাদের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের
 রূপগঞ্জ উপজেলার গুতিয়াব গ্রামে। গতকাল সকালে ঢাকায় আসেন তিনি ও তার মা। বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসককে দেখানোর পর আবার বাড়িতে ফেরার জন্য রেললাইন ধরে হাঁটছিলেন তারা। এ সময় মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন নাজমা বেগম। তার পেছনে পেছনে হাঁটছিলেন ফিরোজা বেগম। এমন সময় কমলাপুর ছেড়ে আসা একটি ট্রেন পেছন থেকে ছুটে আসে তাদের দিকে। হুইসেলের শব্দ শুনে একেবারে শেষ মুহূর্তে নাজমা রেললাইন থেকে লাফিয়ে সরে গেলেও বৃদ্ধা মায়ের পক্ষে তা সম্ভব হয়নি। ট্রেনের ধাক্কায় মাথায় আঘাত পান তিনি এবং ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। গতকাল বুধবার বেলা পৌনে একটার দিকে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোডে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটে।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী চা দোকানদার বাবুল মিয়া বলেন, অল্পবয়সী এক নারী (নাজমা) ট্রেনের লাইনের ওপর দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে ফোনে কথা কইতেছিল। পেছনে আরেক বৃদ্ধ নারী হাঁটতেছিলেন। তখন বিপদ বুঝে অন্যান্য লোকজন তাদের ডেকে সতর্ক করে। কিন্তু কানে মোবাইল ফোন থাকায় লোকজনের ডাকাডাকি কানে যায়নি মেয়েটির।
রেললাইন থেকে লাফিয়ে সরে পাথরের ওপর পড়েন নাজমা। এতে তিনি হাতের কনুইয়ে ব্যথা পেয়েছেন। স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নাজমা অবশ্য বলেন, দূর থেকে ট্রেনের হুইসেল বাজেনি। এ কারণেই দুর্ঘটনা।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে