sara

বাঁচানো গেল না অ্যাসিডদগ্ধ মালাকে

সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করুন

  অনলাইন ডেস্ক

১০ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১০ জুলাই ২০১৮, ০১:০৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

অ্যাসিড হামলার বিরুদ্ধে প্রশাসনের কড়া দৃষ্টিভঙ্গি সত্ত্বেও এ জাতীয় অপরাধ অহরহ ঘটছে। গত শনিবার অ্যাসিডদগ্ধ মালা রাজধানীর সিটি হাসপাতালে মারা যায়। শ্বাসনালিসহ তার শরীরের ২৪ শতাংশই দগ্ধ হয়েছিল। ভোলা সদর উপজেলার উত্তর দিঘলদী ইউনিয়নে গত ১৪ মে রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় মালা (১৬) ও তার ছোট বোন মারজিয়ার (৭) ওপর অ্যাসিড নিক্ষেপ করে মহব্বত হাওলাদার অপু নামে এক তরুণ। অ্যাসিড নিক্ষেপের সন্দেহজনক আসামি হিসেবে অপুকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে ২৬ মে জবানবন্দিতে অপু দায় স্বীকার করে। আমরা অপরাধীর দ্রুত সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাই। অ্যাসিড-সন্ত্রাসের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদ-। কিন্তু অপরাধীরা শাস্তি পাচ্ছে এ রকম দৃষ্টান্ত কম। প্রথমত, যারা অ্যাসিড নিক্ষেপের শিকার হয়, তারা সমাজের দুর্বল ও অসহায় অংশ। মেয়েরাই বেশি অ্যাসিড-সন্ত্রাসের শিকার হয়। অনেক সময় তারা মামলা করতেও সাহস পায় না।

বলার অপেক্ষা রাখে না, অ্যাসিড একটি বিপজ্জনক রাসায়নিক। অতএব, এর ব্যবহারে সর্বোচ্চ সতর্কতা থাকা প্রয়োজন। সাধারণত ব্যাটারি ও তাঁত ব্যবহারকারীরা অ্যাসিড ব্যবহার করে থাকে। এ কারণে লাইসেন্স বাধ্যতামূলক হলেও সেটি অনেকেই মানছে না। লাইসেন্সধারী ব্যক্তি ছাড়া কেউ অ্যাসিড বিক্রি করলে তা আইনত দ-নীয়। যদিও খোলাবাজারে লাইসেন্স ছাড়াই অনেকে এই বিপজ্জনক রাসায়নিক বিক্রি করছে এবং হাত ঘুরে তা সন্ত্রাসী কাজেও ব্যবহৃত হচ্ছে। অতএব, অ্যাসিড-সন্ত্রাস বন্ধে ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়কে আইনের আওতায় আনতে হবে। আমরা মনে করিÑ সরকার, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, নাগরিক সমাজ, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা, গ্রাম ও শহরের সাধারণ মানুষ সবার সম্মিলিত চেষ্টায় অ্যাসিড-সন্ত্রাস বন্ধ করা সম্ভব।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে