সবচেয়ে দ্রুত ধনী বাড়ছে বাংলাদেশে

কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে

  অনলাইন ডেস্ক

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০১:০৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বে সবচেয়ে দ্রুতগতিতে ধনী মানুষের সংখ্যা বাড়ছে বাংলাদেশে। বর্তমানে দেশে অতিসম্পদশালী ১৭ দশমিক ৩ শতাংশ হারে বাড়ছে। নিউইয়র্কভিত্তিক মার্কেট রিসার্চ প্রতিষ্ঠান ওয়েলথ-এক্সের ‘ওয়ার্ল্ড আলট্রা ওয়েলথ রিপোর্ট-২০১৮’তে এই তথ্য উঠে এসেছে। এ তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে চীন। জনবহুল এ দেশটিতে অতিধনীর সংখ্যা বাড়ছে ১৩ দশমিক ৭ শতাংশ হারে। এর পর আছে যথাক্রমে ভিয়েতনাম, কেনিয়া, ভারত, হংকং ও আয়ারল্যান্ড।

এসব দেশে আঞ্চলিক রাজনীতিতে অস্থিরতা থাকলেও সম্পদ সৃষ্টির অনুকূল পরিবেশ থাকায় ধনীদের সম্পদ বেড়েছে। যার ফলে বাংলাদেশ, ভিয়েতনাম ও ভারতে দ্রুত অর্থনৈতিক বিকাশ ঘটছে। নগরায়ণ, অবকাঠামোতে বিনিয়োগ ও শিল্পোৎপাদনে দ্রুত প্রবৃদ্ধি পরিলক্ষিত হচ্ছে এসব দেশে।

বাংলাদেশের অর্থনীতিবিদ ও সমাজ বিশেষজ্ঞদের মতে, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন হলে ধনিক শ্রেণি বাড়বে, এটা স্বাভাবিক। তবে বাংলাদেশে শুধু উন্নয়নই ধনিক শ্রেণি বৃদ্ধির কারণ নয়। এখানে রাষ্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধা বণ্টনের বৈষম্য, প্রাতিষ্ঠানিক দুর্বলতা ও দুর্নীতির কারণেও ধনিক শ্রেণি বাড়ছে।

বলার অপেক্ষা রাখে না, শুধু ধনীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে ধনী-গরিবের বৈষম্য বাড়বে এবং মধ্যবিত্ত অত্যন্ত চাপে পড়বে। স্বাভাবিকভাবেই শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা বাড়বে। এতে দারিদ্র্য বিমোচনের গতি রুদ্ধ না হলেও ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা এবং সর্বোপরি সামাজিক সংহতি ও শান্তি বিনষ্ট হতে পারে। তাই বৈষম্য দূর করতে যথাযথ কৌশল ও প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে। শিল্পায়ন বাড়লে কর্মসংস্থানও বাড়বে। সে জন্য প্রয়োজন সরকার ও অন্য সব মহলকে নিয়ে সমন্বিত কার্যক্রম গ্রহণ ও বাস্তবায়ন। অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক পরিম-ল থেকে সম্পদ আহরণে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। ধনী ও দরিদ্রের মধ্যে যে পাহাড়সমান এবং ক্রমবর্ধমান সম্পদ বৈষম্য বিদ্যমান, তা যত সম্ভব সহনীয় পর্যায়ে রাখতে হবে।

মনে রাখতে হবে, সম্পদের বৈষম্য একটি মৌলিক সমস্যা। এটা কেবল একটি দেশ বা সমাজ দূর করতে পারবে না। এ জন্য বিশ্বনেতাদের দায়িত্ব নিতে হবে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে