ভারতে রাবণবধ দেখতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ৬২

শতাধিক আহত

  আমাদের সময় ডেস্ক

২০ অক্টোবর ২০১৮, ০১:০৩ | আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:০২ | প্রিন্ট সংস্করণ

ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের অমৃতসরে দশেরার অনুষ্ঠানে রাবণের কুশপুতুলে আগুন দেওয়ার সময় চলন্ত ট্রেনের নিচে পড়ে নিহত হয়েছে অন্তত ৬২ জন। অমৃতসরের পুলিশ কমিশনার এসএস শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, এ ঘটনায় আরও শতাধিক লোক আহত হয়েছে। তাই মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে। খবর বিবিসি।

স্থানীয় সাংবাদিক রভিন্দর সিং রবীনের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, রেললাইনের ওপর এবং পাশে দাঁড়িয়ে দশেরার রাবণ পোড়ানো দেখছিলেন কয়েকশ লোক। আর সেই ভিড়ের ওপর দিয়েই দুরন্ত গতিতে চলে গেল একটি ট্রেন। গতকাল সন্ধ্যায় অমৃতসরের চৌরি বাজার এলাকায় ভয়াবহ এ দুর্ঘটনা ঘটে। তবে কুশপুতুলে আগুন দেওয়ার সময় কর্তৃপক্ষ মাইকে ঘোষণা দেয়, সবাই যেন পেছনে সরে যায়। সে অনুযায়ী লোকজন পিছিয়ে রেললাইনের ওপর গিয়ে দাঁড়ায়। তখনই সেখান দিয়ে ট্রেন চলে যায়। এ সময় দ্রুতগামী ট্রেনের ধাক্কায় বহু লোক ছিটকে পড়েন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, প্রতি বছরই এ জায়গায় রাবণের কুশপুতুল পোড়ানো হয় কিন্তু ওই সময় ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে, কিংবা অতি ধীরে যায়। অথচ এবার দ্রুতগতিতে ট্রেন চলে আসে। বাজির আওয়াজে ট্রেন আসার শব্দ পাওয়া যায়নি। তাই কোনো দিকেই দর্শকরা সরতে পারেনি, ট্রেনের চাকায় পিষে যায় একের পর এক মানুষের দেহ। পুলিশ কমিশনার এসএস শ্রীবাস্তব বলেন, ‘ঠিক কতজনের মৃত্যু হয়েছে সেটা এখনই বলা সম্ভব নয়। তবে অবশ্যই ৫০ থেকে ৬০ জনের বেশি মৃত্যু হয়েছে। আমরা এখনো উদ্ধারকাজ চালাচ্ছি।’

পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং মৃতদের পরিবারকে ৫ লাখ টাকা করে আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা দিয়েছেন। সেসঙ্গে সরকারের পক্ষ থেকে আহতদের চিকিৎসা দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। দুর্ঘটনায় মর্মাহত মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 

‘সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালগুলো আহতদের চিকিৎসার জন্য খোলা রাখতে বলা হয়েছে। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় ত্রাণ ও উদ্ধারকাজের জন্য জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’ 

দেশটির কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বলেন, ‘অমৃতসরের রেল দুর্ঘটনায় গভীর শোকাহত। মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। আহতদের দ্রুত সুস্থতা কমনা করছি। দুর্ঘটনার পরই রেল উদ্ধারকাজ শুরু করেছে।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে