sara

বাংলাদেশকে ইইউ পার্লামেন্ট

দমন-পীড়ন ও গণমাধ্যমের ওপর হস্তক্ষেপ বন্ধ করুন

  আমাদের সময় ডেস্ক

১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:০৩ | আপডেট : ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ওপর দমন-পীড়ন ও গণমাধ্যমের ওপর হস্তক্ষেপ অবিলম্বে বন্ধ করতে বাংলাদেশকে আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের অবনতিশীল মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগও প্রকাশ করেছে তারা। গতকাল বৃহস্পতিবার ফ্রান্সের স্ট্রাসবার্গে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের বিতর্ক শেষে নেওয়া এক প্রস্তাবে এমন অভিমত ব্যক্ত করা হয়েছে।

প্রস্তাবে সাবেক রাষ্ট্রদূত মারুফ জামান ও আইনজীবী মীর আহমেদ বিন কাশেমের গুমের ঘটনাসহ বিচারবহিভর্‚ত হত্যাকাণ্ড ও অতিরিক্ত শক্তি প্রয়োগের সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। খবর ইউরোপিয়ান ইন্টারেস্টের।

প্রস্তাবে বাংলাদেশে সুশীলসমাজ, গণমাধ্যম এবং সমালোচকদের ওপর দমন-পীড়নের বিষয়টি তুলে ধরা হয়। উদাহরণ হিসেবে গত আগস্টে নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্র আন্দোলনের সময় সরকারের সমালোচনা করায় আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে কারারুদ্ধ করার বিষয়টি নিয়ে আসা হয়।

প্রস্তাবে মিয়ানমারে নৃশংসতার শিকার রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে কঠিন পরিস্থিতিতে গঠনমূলক ভ‚মিকা রাখার জন্য বাংলাদেশের প্রশংসাও করা হয়েছে। তবে যতক্ষণ না পর্যন্ত রাখাইনে অনুক‚ল পরিবেশ সৃষ্টি না হয় ততদিন রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন থেকে বিরত থাকতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারকে অনুরোধ করা হয়। একই সঙ্গে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের জন্য আর্থিক ও ত্রাণ সহায়তা জোরদার করতে ইইউভুক্ত দেশ ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতিও আহ্বান জানানো হয়।

বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে বিতর্কের এক অংশে পার্লামেন্টের দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক ডেলিগেশন প্রধান জ্যঁ লিমবার্ড বলেন, তৈরি পোশাক খাতে নিরাপদ কর্ম পরিবেশ ও শ্রম অধিকার অক্ষুণ্ন রাখার জন্য ইউরোপীয় ক্রেতাদের সংগঠন অ্যাকর্ডের দেওয়া সুপারিশের পূর্ণ সুবিধা বাংলাদেশ না নেওয়ায় আমরা উদ্বিগ্ন।

এ ছাড়া বাংলাদেশে অব্যাহত গুম, বিচারবহিভর্‚ত হত্যা এবং কঠোর আইন প্রণয়নের বর্তমান ধারা মানা যায় না। সন্ত্রাসবাদের প্রতি বাংলাদেশ সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি মানবাধিকারের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হতে হবে। জ্যঁ লিমবার্ড সব দলের অংশগ্রহণে বাংলাদেশে একটি সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন অনুষ্ঠানের আশা করেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে