অধ্যক্ষসহ ৩ শিক্ষকের চাকরি গেল

শিশুবান্ধব প্রাণবন্ত পরিবেশ চাই

  অনলাইন ডেস্ক

০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০১:২৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

ভিকারুননিসা নূন স্কুলের শিক্ষার্থী অরিত্রির আত্মহননকে কেন্দ্র করে উদ্ভূত পরিস্থিতি সামাল দিতে সরকার কঠোর অবস্থানে গেছে। শিক্ষামন্ত্রী নিজে সংশ্লিষ্ট স্কুলে গেছেন এবং বিক্ষুব্ধ ছাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন। ইদানীং অধিকারসচেতন প্রতিবাদী স্কুল ছাত্রছাত্রীরা দাবি আদায়ে শক্ত অবস্থানে যাচ্ছে। নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের মতো এখন মনে হচ্ছে নিরাপদ স্কুলের আন্দোলনও সময়ের দাবি হয়ে উঠেছে। সরকার গঠিত তদন্ত কমিটির তদন্ত রিপোর্টে যেসব তথ্য উঠে এসেছে তা কেবল ছাত্রী নির্যাতনের তথ্যই উদ্ঘাটন করেনি, ব্যাপক দুর্নীতিও তুলে এনেছে। শহরের বিভিন্ন খ্যাতিমান স্কুল শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রতি যে ধরনের আচরণ করে থাকে তা কিছুতেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।

কেবল অভিযুক্ত কয়েকজন শিক্ষককে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়ে এ ধরনের সমস্যার সমাধান হবে না। স্কুল পরিচালনা, ছাত্রদের প্রতি আচরণবিধি এবং অভিভাবকদের সঙ্গে স্কুলের সম্পর্ক ইত্যাদি নিয়ে সুস্পষ্ট বিধিমালা থাকা প্রয়োজন। তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা হিসেবে অধ্যক্ষসহ তিন শিক্ষকের চাকরিচ্যুতি বা অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা যায় কিন্তু এতে সমস্যার দীর্ঘমেয়াদি সমাধান হবে না। একটি দক্ষ সুশিক্ষিত জাতি গঠন করতে হলে স্কুলপর্যায়ে শিক্ষাকে সম্পূর্ণ ঢেলে সাজাতে হবে। বর্তমান মুখস্থনির্ভর পরীক্ষাকেন্দ্রিক ব্যবস্থার পরিবর্তে প্রকৃত জ্ঞানচর্চার পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। আনন্দময় সৃজনশীল পরিবেশেই যথাযথ শিক্ষাদান সম্ভব।

সেদিক থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য নানা রকম পরীক্ষার বাধা সৃষ্টি না করে জ্ঞানচর্চার মুক্ত পরিবেশ তৈরি করাই বাঞ্ছনীয়। এ রকম প্রাণবন্ত পরিবেশই অরিত্রিদের আত্মহনন রোধ করতে পারবে এবং শিক্ষকরাও তাদের স্বভূমিকায় ফিরতে পারবেন। আমরা বর্তমান অমানবিক পরিবেশের পরিবর্তে স্কুলে স্কুলে শিশুবান্ধব প্রাণবন্ত সৃষ্টিশীল পরিবেশ প্রত্যাশা করি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে