sara

জি২০ সম্মেলন

প্রত্যাশা পূরণে নতুন উদ্যোগ চাই

  অনলাইন ডেস্ক

০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সে অনুষ্ঠিত উন্নত ২০টি দেশের সংস্থা জি২০ সম্মেলন শেষ হলো। বলা বাহুল্য প্রত্যাশা ও প্রাপ্তিতে মিল ঘটেনি। জি৭ ও জি২০-এর অন্তর্ভুক্ত দেশগুলো বিশ্ব অর্থনীতিতে প্রভাবক ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই এসব সম্মেলনে কী কী সিদ্ধান্ত আসছে তা জানতে আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষায় থাকে বাকি বিশ্ব।

নানা ইস্যুতে বড় দেশগুলোতে এখন বিভক্তি চলছে। যুক্তরাষ্ট্র এবং চীন বাণিজ্য ও ট্যারিফ ইস্যুতে পরস্পরবিরোধী অবস্থানে আছে। আবার ব্রেক্সিটকে কেন্দ্র করে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বাকি ইউরোপের সার্বিক সম্পর্কে টানাপড়েন চলছে। এদিকে সৌদি আরবের মার্কিন প্রবাসী ভিন্নমতাবলম্বী সাংবাদিক আদনান খাশোগির হত্যাকা- নিয়ে দেশটির সঙ্গে পশ্চিম ইউরোপের সম্পর্কের অবনতি ঘটেছে। আবার এ ইস্যুতে বাণিজ্যিক স্বার্থে যুক্তরাষ্ট্র সৌদি পক্ষেই অবস্থান নিচ্ছে। একই ভূমিকায় আছেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন, যদিও অতিসম্প্রতি ইউক্রেনের তিনটি যুদ্ধজাহাজ জব্দ করার ঘটনায় পুরো পশ্চিমা দুনিয়া আপাতত তার বিরুদ্ধে রয়েছে। এ ছাড়া ইয়েমেন ও সার্বিয়া পরিস্থিতি এবং ইউরোপে মধ্যপ্রাচ্যের শরণার্থী ঢল সামলাতে গিয়ে সেখানেও মিশ্র অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

একদিকে বিভক্তি, অন্যদিকে বিভিন্ন ইস্যুর চাপে থাকা বিশ্ব নেতাদের কাছ থেকে খুব ইতিবাচক কিছু পাওয়ার সম্ভাবনা ছিল না। বাস্তবে তা ঘটেওনি। অপ্রাপ্তির মধ্যে প্রাপ্তি হলো চীন ও যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের মধ্যকার বাণিজ্যযুদ্ধ আপাতত স্থগিত করে কিছুটা নমনীয় অবস্থান নিতে যাচ্ছে। এ ছাড়া বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা সংস্কারের ঘোষণাও রয়েছে জি২০ সম্মেলনের চূড়ান্ত বিবৃতিতে। সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ও উঠেছিল। এদিকে জি২০ সম্মেলন শেষ না হতেই পোল্যান্ডের ক্যাটোওয়াইস শহরে শুরু হয়েছে বিশ্ব জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ ইস্যুতে মোটেও আন্তরিক নন এবং তার দেশের পূর্ববর্তী প্রতিশ্রুতি থেকে বারবার পিছু হটেছেন তিনি। অথচ জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশসহ পৃথিবীর অনেক উন্নয়নশীল দেশের ভবিষ্যৎ চরম হুমকির মুখে পড়েছে। আশার কথা জাতিসংঘ ও বিশ্বব্যাংক এ ব্যাপারে জোরালো অবস্থান গ্রহণ করেছে এবং ২০২১Ñ২৫ এই পাঁচ বছরের জন্য এই খাতে ২০ হাজার কোটি ডলার ব্যয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

বর্তমান বিশ্বে ধনী-দরিদ্র বৈষম্য বেড়ে চলেছে। তদুপরি ধনী দেশ ও উন্নয়নশীল দেশের মধ্যে লেনদেনে ভারসাম্য কমছে। ইউরোপ, আমেরিকার সঙ্গে এশিয়া-আফ্রিকার বাণিজ্যিক সম্পর্ক অতিরিক্ত প্রতিযোগিতার মধ্যে পড়েছে। ফলে কেবল পৃথকভাবে জি৭ বা জি২০ সম্মেলন করলে বিশ্ব চাহিদার সবটা পূরণ হবে না। আমাদের মনে হয় উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশের যৌথ অর্থনৈতিক সম্মেলন এখন সময়ের জরুরি দাবি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে