সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় ইসলাম

  মুফতি মাহফুজুর রহমান হুসাইনী

০৯ জানুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ০৯ জানুয়ারি ২০১৭, ০৯:৩৪ | প্রিন্ট সংস্করণ

আল্লাহতায়ালা রাসুলুল্লাহ সালাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বিশ্বের সব মানুষের কল্যাণকামী করে পাঠিয়েছেন। আল্লাহপাক বলেন, ‘(হে নবী) আমি আপনাকে সারা মানবজাতির জন্য সুসংবাদাতা ও সতর্ককারীরূপে পাঠিয়েছি। কিন্তু অধিকাংশ মানুষ তা জানে না’ (সুরা : সাবা-২৮)।

মুসলিম, হিন্দু, খ্রিস্টান, বৌদ্ধ তথা সব মানুষের হেদায়েতের জন্য আল্লাহ রাসুলকে পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন এবং সব মানুষের জন্য রাসুলকে বানিয়েছেন রহমত। আল্লাহতায়ালা ইরশাদ করেন, ‘(হে নবী) আমি আপনাকে বিশ্ববাসীর জন্য রহমতস্বরূপই পাঠিয়েছি’ (সুরা : আম্বিয়া-১০৭)।

মানবতার নবী রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সারা বিশ্বে রহমত ছড়িয়ে দিয়েছেন। বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় ও মানবাধিকার বাস্তবায়নের বিরল দৃষ্টান্ত তিনি রেখে গেছেন। অষ্টম হিজরিতে মক্কা বিজয়ের সময় মক্কায় প্রবেশকালে মক্কার অমুসলিমরা প্রাণের ভয়ে থরথর করে কাঁপছিল। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সব অমুসলিমকে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে বলেন, তোমাদের প্রতি আমার কোনো অভিযোগ নেই। আজ তোমরা মুক্ত ও স্বাধীন। তিনি সবাইকে আপন করে নেন। যেই মক্কাবাসী নবীজিকে ১৩টি বছর চরম অমানবিক নির্যাতন করেছে। তাকে হত্যা করার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছে। শেষ পর্যন্ত তিনি প্রাণ বাঁচাতে নিজ মাতৃভূমি ছাড়তে বাধ্য হন। সেই মক্কাবাসীর হেফাজতের দায়িত্ব তিনি নিজেই নিলেন। মুসলিমদের মতো তাদের জানমালের শতভাগ নিরাপত্তা দিলেন। ইতিহাস সাক্ষী, এমন নজিরবিহীন উদারতার পরিচয় আর কেউ দিতে পারেনি এবং কোনো দিন পারবেও না।

এটাই হলো ইসলামের আদর্শ। ইসলাম সব মানুষের শান্তিকামী। ইসলাম শান্তির কথা বলে। দাঙ্গা-হাঙ্গামা ইসলাম সমর্থন করে না। অন্যায়, অবিচারকে ইসলাম ঠাঁই দেয় না। ইসলামে কোনো সাম্প্রদায়িকতা নেই। ইসলাম সম্প্রীতির বন্ধন অটুট রাখে। ইসলাম শান্তি-সম্প্রীতি ও মানবতার ধর্ম। কোনোরূপ সহিংসতা, বিবাদ-বিসংবাদের স্থান ইসলামে নেই। ন্যূনতম শান্তি-শৃঙ্খলা ও সম্প্রীতি বিনষ্ট হয়, এমন আচরণকেও ইসলাম প্রশ্রয় দেয় না। ইসলামের আবির্ভাব হয়েছে শান্তি প্রতিষ্ঠা, মানবকল্যাণ ও মানবতার জন্য। মুসলিম হোক বা অমুসলিম হোক, মুসলিম বিশ্বে কোনো নিরাপরাধ মানুষ হত্যা মহা অন্যায়। আল্লাহতায়ালা ঘোষণা করেন, ‘যে কেউ প্রাণের বিনিময়ে প্রাণ অথবা পৃথিবীতে অনর্থ সৃষ্টি করা ছাড়া (অন্যায়ভাবে) কাউকে হত্যা করে সে যেন সব মানুষকেই হত্যা করে। এবং যে কারো জীবন রক্ষা করে, সে যেন সবার জীবন রক্ষা করে’ (সুরা : মায়িদা-৩২)।

মুসলিম-অমুসলিম সবার মানবাধিকার ইসলামে সমান। ইসলাম জননিরাপত্তার গ্যারান্টি। মুসলিম দেশে অমুসলিম সংখ্যালঘুর জানমালের নিরাপত্তা সংরক্ষিত। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন, ‘তোমাদের যে কেউ কোনো চুক্তিবদ্ধ অমুসলিমের ওপর অত্যাচার করবে বা তার হক নষ্ট করবে কিংবা তার সামর্থ্যরে বাইরে তাকে কষ্ট দেবে অথবা ইচ্ছার বিরুদ্ধে (জোরপূর্বক) তার কোনো জিনিস নেবে, আমি কিয়ামতের দিন তার বিরুদ্ধে মামলা করব’ (আবু দাউদ : হাদিস নম্বর-৩০৫৪)। ইসলাম শান্তির ধর্ম।

মুফতি মাহফুজুর রহমান হুসাইনী ইসলামি চিন্তাবিদ

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে