সাক্ষাৎকার

‘মফস্বল শহরের দর্শক অনেক কষ্ট করে ছবি দেখেন’

  ফয়সাল আহমেদ

১৩ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০১৭, ১০:০২ | প্রিন্ট সংস্করণ

জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাহিয়া মাহি। গত শুক্রবার মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত চলচ্চিত্র ‘ঢাকা অ্যাটাক’। মুক্তির এক সপ্তাহ পার হলেও ছবিটি নিয়ে দর্শক আগ্রহ এখনো তুঙ্গে। এদিকে মাহি এখন ব্যস্ত আছেন ‘মন দেবো মন নেবো’ নামের একটি ছবির কাজে। এই দুই ছবি ও অনেক বিষয়ে কথা হয় মাহির সঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন- ফয়সাল আহমেদ

মন দেওয়া-নেওয়ার কাজ তা হলে ভালোই করছেন?
(হাসি) আসলে ছবির নামটাই ‘মন দেবো মন নেবো’, তাই মন দেওয়া-নেওয়ার কাজটা তো ভালোভাবেই করতে হবে নাকি? বর্তমানে আছি উত্তরবঙ্গের লালমনিরহাট জেলায়। ছবিতে আমার চরিত্রের নাম মোহনা। আর আমার বিপরীতে আছেন শিবলী নওমান। তিনি অভিনয় করছেন সালমান চরিত্রে। ছবিটি নারীপ্রধান। বর্তমানে প্রায় পঞ্চাশ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। চলতি মাসের ৩০ তারিখ পর্যন্ত শুটিং চলবে এখানে। তবে আমি ঢাকা ফিরব ২৪ অক্টোবর। এর দুটি গানের শুটিং হবে দেশের বাইরে। ছবিটি পরিচালনা করছেন রবিন খান।

আপনি লালমনিরহাটে শুটিং করছেন আর এদিকে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ বাজিমাত করে দিচ্ছে। সে খবর তো জানেন?
প্রতিদিনের আপডেটই আমি জানি। বেশ ভালো লাগছে, দর্শক আবার সিনেমা হলে গিয়ে বাংলা ছবি দেখছেন। যদিও গত এক বছরে প্রচুর দর্শক হলে গিয়ে সিনেমা দেখেছেন, তবে সেগুলোর মধ্যে বেশিরভাগই ছিল যৌথ প্রযোজনার ছবি। কিন্তু এই ছবিটি বাংলাদেশের একক প্রযোজনায় নির্মিত। ছবিতে আমার বিপরীতে ছিলেন আরিফিন শুভ। দীপঙ্কর দীপন পরিচালিত ছবিটি মুক্তির পর থেকেই বেশ সাড়া পাচ্ছি। অনেকেই ফোন করছেন। প্রশংসা করছেন ছবির। তাই ঢাকায় না থাকলেও সেখানকার দর্শকদের খোঁজখবর পাচ্ছি।

ফোনের বিষয়টি যখন সামনে এলো, তা হলে একটি কথা না জানলেই নয়। আপনাকে তো ফোনে পাওয়াই যায় না। কারণ কী?
আপনি তো বেশ ভালোভাবেই জানেন যে, কয়েক মাস ধরে দেশ-বিদেশে বিভিন্ন ছবির শুটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছি। তাই অনেকেই হয়তো ফোন করে ঠিকভাবে পাচ্ছেন না। আর সত্যি কথা কী, বিয়ের আগে ফোন নিজের হাতেই থাকত। আর সবার সঙ্গে অনেক কথা বলা হতো। কিন্তু বিয়ের পরের জীবনটা অন্যরকম। তাই ফোন আর আমার হাতে থাকে না। তবে প্রয়োজনীয় বিষয়ে কেউ টেক্সট বা কল দিলে সঙ্গে সঙ্গে কথা বলতে না পারলেও ফোন ব্যাক করি। এই যেমন এখন আপনার সঙ্গে কথা বলছি। (হাসি)।

আচ্ছা, ‘ঢাকা অ্যাটাক’ কি সিনেমা হলে গিয়ে দেখেছেন? আর আপনার স্বামী নাকি পুরো সিনেমা হল ভাড়া করছে ছবিটি দেখার জন্য?
‘মন দেবো মন নেবো’র শুটিংয়ের ফাঁকে রংপুরে গিয়ে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ দেখেছি। দর্শকের চোখ আড়াল করে বোরকা পরে ব্ল্যাকে টিকিট কেটে ছবি দেখার মজাই আলাদা। অনেক মজা হয়েছে। যদিও মফস্বল শহরের সিনেমা হলে অনেক কষ্ট করে দর্শক ছবি দেখেন। এবার নিজ চোখে দেখে এলাম।

আর সিনেমা হল ভাড়ার বিষয়টি-
সেটা অপুর সঙ্গেই আলাপ করেন। (হাসি)। আসলে বিয়ের পর এটা আমার অভিনীত প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি। আর যেহেতু ছবিটি বেশ আলোচিত হয়েছে, তাই আমার শ্বশুরবাড়ির লোকজন চাচ্ছেন হলে গিয়ে ছবিটি দেখতে। দেবর, ননদসহ পুরো পরিবারই দেখতে চায় ছবিটি। এ কারণেই মাহমুদ পারভেজ অপু সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, ছবি দেখানোর জন্য একটি হল ভাড়া করার।

এবার অন্য প্রসঙ্গে আসি। ‘তুই শুধু আমার’ ছবির কাজ কি শেষ?
কিছু কাজ বাকি আছে। গত মাসে লন্ডনে গিয়েছিলাম যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত এই ছবির কাজে। এতে আমার বিপরীতে অভিনয় করছেন কলকাতার সোহম। ছবিতে আরও অভিনয় করছেন ওম এবং আমান রেজা। ছবিটি যৌথভাবে পরিচালনা করছেন ভারতের জয়দ্বীপ মুখার্জি এবং বাংলাদেশের অনন্য মামুন। এ ছাড়া কলকাতার অভিনেতা বনির বিপরীতে ‘মনে রেখো’ ছবিতে অভিনয় করেছি। ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত এ ছবির কাজটিও শেষ পর্যায়ে রয়েছে।

আপনার হাতে তো এখন অনেক ছবি?
বেশিরভাগ ছবির কাজ শেষ পর্যায়ে। এর মধ্যে রয়েছে ‘জান্নাত’, ‘পলকে পলকে তোমাকে চাই’, ‘হারজিৎ’ ও ‘পবিত্র ভালোবাসা’। এর মধ্যে ‘পলকে পলকে তোমাকে চাই’ ছবির ডাবিং এখনো বাকি রয়েছে। আর ‘জান্নাত’ ছবির ডাবিং শেষ হয়েছে। এ ছবিতে আমার বিপরীতে সাইমন সাদিক অভিনয় করেছেন। ছবিতে দর্শক নতুন এক মাহিকে দেখতে পাবেন। বাকি ছবিগুলো নিয়েও আমি আশাবাদী।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে