ভ্রমণে সতর্কতা

  আমান উল্লাহ

১১ জানুয়ারি ২০১৭, ০০:৩৯ | প্রিন্ট সংস্করণ

ভ্রমণে যাওয়ার জন্য মুখিয়ে থাকেন যারা, তাদের জন্য শীতের এই সময়টার চেয়ে ভালো আর কী হতে পারে। অনেকেই হয়তো এরই মধ্যে ভ্রমণে বেরিয়ে গেছেন, কেউ বা পরিকল্পনা করছেন কোথায় যাবেন, কী কী দেখবেন। যেখানেই যান বা যা কিছুই দেখুন ভ্রমণে অবশ্যই কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকুন। তা না হলে আপনার ছোটখাটো অসতর্কতায় নিরানন্দ হতে পারে আপনার আনন্দের ভ্রমণ।

যে কোনো যানবাহন থেকে নামার সময় কোনো মালপত্র ফেলে গেলেন কিনা সেদিকে খেয়াল রাখুন। নামার সময় তাড়াহুড়ো করবেন না।

মানিব্যাগ, ক্রেডিট কার্ড সাবধানে রাখুন। সব টাকা মানিব্যাগে না রেখে কিছু টাকা অন্য জায়গায় রাখুন। একটি কার্ডে আপনার ঠিকানা লিখে রাখবেন। ব্যাগ হারিয়ে গেলে ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।

সন্ধ্যার পর অথবা বেশি রাত পর্যন্ত হোটেলের বাইরে অবস্থান করবেন না। বিশেষ করে পরিবার নিয়ে ভ্রমণে করতে গেলে, অবশ্যই শিশুদের দিকে লক্ষ্য রাখুন।

অনেকেই ভ্রমণে পথেঘাটে নানা ধরনের খাবার খেতে পছন্দ করেন। বিশেষ করে দেশের বাইরে যাওয়ার সময় অনেকেই প্লেনে এটা-সেটা খাওয়ার লোভ এড়াতে পারেন না। মনে রাখবেন দীর্ঘ সময় বিমানে কাটানোর ফলে আপনার পানিশূন্যতা হতে পারে। তাই বিমানে খাবার নির্বাচনে সতর্ক হোন। সেই সঙ্গে বারবার বিশুদ্ধ পানি পান করুন।

নিজ দেশে শীত তাই লাগেজ ভরে শীতের পোশাক নিলেন কিন্তু তেমন ঠা-াই নেই সেখানে। আবার নিজ জেলায় গরম বলে শুধু পাতলা কাপড় নিয়ে ভ্রমণে বেরিয়ে পড়লেন অথচ সেখানে বেশ ঠা-া। ভ্রমণকারীদের হরহামেশাই এক দেশ থেকে অন্য দেশে কিংবা এক জেলা থেকে অন্য জেলায় গেলে এরকম বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। তাই ভ্রমণের আগে আপনার ট্যুর স্পটের তাপমাত্রা সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়ে নিন।

সমুদ্রসৈকতের কাছাকাছি সূর্যের তেজ অনেক বেশি থাকে। তাই রোদে বের হলে তো অবশ্যই, সমুদ্রসৈকতের কাছে গেলে আরও বেশি সানস্ক্রিন লোশন, চওড়া ক্যাপ, সানগ্লাস ব্যবহারে সতর্ক থাকুন। রোদের সময় চেষ্টা করুন কড়া রোদ এড়িয়ে কিছুটা সময় ছায়া আছে এমন জায়গায় কাটাতে। ভ্রমণে শিশুর খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারে সতর্ক থাকুন। সারাক্ষণ শিশুকে সঙ্গে নিয়ে না ঘুরে বেড়িয়ে শিশু যাতে একটু আরামও করতে পারে সে সুযোগ করে দিন।

শারীরিক সমস্যা বলে-কয়ে আসে না। তাই ভ্রমণে যাওয়ার আগে সাধারণ কিছু ওষুধ সঙ্গে নিয়ে নিন। অনেকেরই কিছু ওষুধ রয়েছে যেগুলো নিয়মিত খেতে হয়। এ ধরনের ওষুধগুলো একটু বেশি করে সঙ্গে নিয়ে নিন। কারণ ভ্রমণে থাকা অবস্থায় শেষ হয়ে গেলে সেখানে ওষুধটি নাও পেতে পারেন।

দেশের বাইরে ছুটি কাটাতে গেলে সবচেয়ে নিরাপদে যা রাখা উচিত তা হলো পাসপোর্ট। যদি কোনো কারণে পাসপোর্ট হারিয়ে যায়, যত দ্রুত সম্ভব নিজের দেশের দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

 

 

 

 

 

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে