• অারও

জুয়েলারি জড়োয়া

  আঞ্জুমান আরা

১০ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জড়োয়া। নামটির সঙ্গে মিশে আছে ঐতিহ্য, আভিজাত্য আর পরম মমতায় বংশপরম্পরায় আগলে রাখা একসেট গহনার স্মৃতি। ট্র্যাডিশনাল এ গহনাটি আজও গহনার তালিকায়, বিশেষ করে বিয়েতে সবচেয়ে আধুনিক, জমকালো আর নজরকাড়া। ফ্যাশনে জনপ্রিয় জড়োয়া গহনার আদ্যোপান্ত জানাচ্ছেনÑ আঞ্জুমান আরা

বিয়ের বাদ্যি বেজে গেছে। চারপাশে এখন সানাইয়ের সুর। একসেট ভারী গহনা ছাড়া কনের সাজ যেন অসম্পূর্ণ। শুধু কনেই নয়, বিয়েবাড়ির অতিথিরাও চায় বিয়েতে একটু জমকালো গহনায় সাজতে। দিনবদলের সঙ্গে সঙ্গে গহনায় যেমন নতুনত্ব যোগ হয়, তেমনি ঘুরেফিরে জনপ্রিয় থাকে পুরনো কিছু ট্রেন্ডও। সোনার গহনায় হাল ফ্যাশনে সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্র্যাডিশনাল গহনা জড়োয়া। একসেট জড়োয়া গহনা যেমন বিয়ের কনে সারা জীবন আগলে রাখে অতি যতেœ, তেমনি পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন জমকালো অনুষ্ঠানে পরার জন্যও শাড়ির সঙ্গে জড়োয়া গহনা আজও নারীদের পছন্দের তালিকায় এগিয়ে।

সোনার জড়োয়া গহনার আবেদনই অন্যরকম। সোনার জড়োয়া গহনার মধ্যে গলায় বসানো জড়োয়া, চিক জড়োয়া, হাসুলিসহ (লম্বা সীতাহার) কয়েক ধরনের জড়োয়া রয়েছে। গলায় বসানো জড়োয়ার মধ্যে নবরতœ জড়োয়া, পাকিস্তানি সেটিং জড়োয়াসহ বিভিন্ন ধরনের জড়োয়া রয়েছে। নবরতœ জড়োয়া বহু যুগ ধরে বাংলাদেশে বিয়ের গহনায় জায়গা দখল করে থাকলে হালফ্যাশনেও ট্র্যাডিশনাল নবরতœ নকশাটি জনপ্রিয়তার শীর্ষে। জড়োয়া গহনা মানেই স্টোন, মুক্তা সেটিং গহনা। স্টোন সেটিং ভিন্নতাতেই জড়োয়া গহনা হয়ে ওঠে নজরকাড়া। সাধারণ স্টোন ছাড়াও ব্যবহার করতে পারেন পান্না, প্রবাল, গার্নেট, নীলার মতো দামি রতœ পাথর।

সোনার আকাশছোঁয়া দামের কারণে আজকাল অনেকেই কুন্দন, স্টোন বসানো গোল্ড প্লেটেড জড়োয়া গহনার প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠছেন। বিশেষ করে ঐতিহ্যবাহী উৎসবগুলোয় আজকাল অনেকেই সোনার পাশাপাশি গোল্ড প্লেটেড জড়োয়া পরতে পছন্দ করছেন। এমনকি কনের সাজেও সোনার গহনার সঙ্গে অনেকেই গোল্ড প্লেটেড জড়োয়া বেছে নেন। শুধু সোনা বা রুপাই নয়, তামা, ব্রোঞ্জ ও কপার রঙে স্টোন বসানো ইমিটেশন জড়োয়া গহনাও এখন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অনেকের পছন্দ।

হালফ্যাশনে জড়োয়ার চলতি ট্রেন্ড প্রসঙ্গে জাভেরী গোল্ডের পরিচালক ও ডিজাইনার রিপন কুমার ঘোষ (কৌশিক) বলেন, ‘ভারী গহনার মধ্যে এখন সবচেয়ে জনপ্রিয় জড়োয়া। জড়োয়ার মধ্যে নবরতœ জড়োয়া এখন সবচেয়ে বেশি চলছে। নবরতœ জড়োয় নকশাটি আমাদের দেশে বেশ পুরনো হলেও এখনো পছন্দের শীর্ষে। নবরতœ জড়োয়া হচ্ছে নয় ধরনের রতœপাথর বসানো জড়োয়া। একসেট নবরতœ জড়োয়ার সঙ্গে মুক্তার ডাবল চেইন সীতাহারে কনে সাজার ট্রেন্ড এখন খুব চলছে। শুধু কনেই নয়, জমকালো আয়োজনে এখন অনেকেই এমন ট্র্যাডিশনাল গহনায় নিজেকে সাজতে পছন্দ করছেন। সোনার ওপর মুক্তা, প্রবাল, নীলা, গার্নেট, চুনি পান্না, ওপাল বিভিন্ন ধরনের রতœপাথর বসিয়ে জড়োয়া সেটিং গহনা তৈরি করা হয়। চাইলে চার-পাঁচ ধরনের রতœপাথর বসিয়েও তৈরি করতে পারেন নবরতœ জড়োয়া।’

হালকা স্টোনের গর্জিয়াস জড়োয়া সেটও বিয়েবাড়িসহ বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী উৎসবে পরতে পারেন সবাই। একসেট মাল্টিপাথর সেটিং জড়োয়া সেট ঘরে থাকলে আপনি তা অনায়াসে পরতে পারবেন যে কোনো রঙের শাড়ির সঙ্গেই।

জড়োয়া হাসুলি, জড়োয়া সীতাহার, কণ্ঠহার, বসানো জড়োয়া সঙ্গে মিলিয়ে কোনো কোনো জড়োয়া সেটের সঙ্গে থাকে ঝুমকা, কোনোটার সঙ্গে থাকে ইয়ার রিং। চাইলে আপনি পছন্দমতো নকশা দিয়ে বানিয়েও নিতে পারেন। গলায় বসানো জড়োয়ার সঙ্গে লম্বা সীতাহার জড়োয়া মিলিয়ে পরলে দেখতে গর্জিয়াস লাগবে। জড়োয়ার সঙ্গে মিলিয়ে রতœপাথর সেটিং করে বানিয়ে নিতে পারেন হাতের চূড়, বালা, মাথার টিকলিও।

সবার শারীরিক গঠনের সঙ্গে সব ধরনের গহনা মানানসই নয়। গহনা নির্বাচন করার আগে কাকে কেমন গহনা মানায় তা ভেবে দেখা উচিত। যাদের গলা লম্বাটে তাদের চিক কিংবা গলার কাছে এঁটে থাকে এমন জড়োয়া মানাবে। খাটো গলায় ভারী আঁটসাঁট জড়োয়া পরলে গলা আরও ছোট দেখায়। এ ক্ষেত্রে মুক্তার লম্বা সীতাহার জড়োয়া ভালো লাগবে বলে মনে করেন বিউটি এক্সপার্ট গীতি বিল্লাহ। তিনি বলেন, কোন ধরনের গহনা পরা হচ্ছে, তার সঙ্গে মিলিয়ে সাজটাকে ফুটিয়ে তোলা উচিত। ভারী জড়োয়া সেটের সঙ্গে মেকআপ হওয়া উচিত হালকা। তা না হলে গহনার সৌন্দর্য ফিকে হয়ে আসবে। সাজে ট্র্যাডিশনাল এবং ট্রেন্ডির কম্বিনেশন ভালো লাগবে। মুক্তা সেটিং জড়োয়ার সঙ্গে হালকা ও ভারী দুই ধরনের মেকআপই মানিয়ে যায়।

সোনার গহনার দাম নির্ভর করে ভরি, ক্যারেট, নকশা ইত্যাদির ওপর। কানের দুল, চূড়সহ একসেট নবরতœ জড়োয়া সেট বানাতে কমপক্ষে পাঁচ-সাত ভরি সোনা লাগবে। দাম শুরু ২ লাখ ৭০ হাজার থেকে। পাকিস্তানি সেটিং জড়োয়া, হাসুলি জড়োয়া, চিক জড়োয়া বানাতে স্বর্ণ লাগবে কমপক্ষে চার ভরি। স্বর্ণ ছাড়াও রুপার ভরি হিসেবে দাম ধরে গোল্ড প্লেটেড জড়োয়া সেট বানাতে পারেন।

জড়োয়া হাউস, আমিন জুয়েলার্স, ভেনাস, ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড, আপন জুয়েলার্স, মৌচাক জুয়েলার্স, অলঙ্কার নিকেতনসহ বিভিন্ন জুয়েলার্সে পাওয়া যাবে জড়োয়া গহনা। চাঁদনী চক, মৌচাক, ইস্টার্ন প্লাজা, পিংক সিটি, বসুন্ধারা সিটিসহ বিভিন্ন মার্কেটও সোনার এবং স্টোন, কুন্দন সেটিং গোল্ড প্লেটেড জড়োয়া সেট পাওয়া যাবে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে