তারার স্টাইল

‘সালোয়ার-কামিজ পরতে পছন্দ করি’

-দিলশাদ নাহার কনা, সংগীতশিল্পী

  রওনক বিথী

০৪ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সংগীতশিল্পী কনা। প্রিয় পোশাক সালোয়ার-কামিজ। ভালোবাসেন ঘুরে বেড়াতে। ঢাকার প্রতি এক অন্যরকম মায়া তার। আজকের তারার স্টাইলে কনা জানিয়েছেন তার পছন্দ-অপছন্দের নানা কথা। সাক্ষাৎকার নিয়েছেনÑ রওনক বিথী

দেশীয় পোশাক পছন্দ

কনার প্রিয় পোশাকের তালিকায় রয়েছে সালোয়ার-কামিজ। কর্মব্যস্ততায় ফতুয়া, প্যান্টও পরা হয়। তিনি বলেন, ‘ওয়েস্টার্ন পোশাকের চেয়ে দেশীয় পোশাকই আমার বেশি পছন্দ। সালোয়ার-কামিজ পরতে পছন্দ করি। শাড়ি খুব একটা পরা হয় না। তবে জামদানি ও তাঁতের শাড়ি ভালো লাগে।’ প্রিয় রঙ প্রসঙ্গে কনা জানান তার পছন্দের রঙ সাদা, কালো ও মেরুন। তিনি আরও বলেন, ‘অনুষঙ্গের মধ্যে চশমা পছন্দ। জুতা ও ব্যাগের প্রতিও দুর্বলতা রয়েছে আমার। জুতা ও ব্যাগ সংগ্রহ করতেও ভালো লাগে। নতুন এবং ভালো ব্র্যান্ডের কসমেটিকসের প্রতিও দুর্বলতা রয়েছে।’ এ দুর্বলতার কারণ কনা সাজতে খুব পছন্দ করেন। তবে চড়া মেকআপ তার পছন্দ নয় বলে জানান কনা। তিনি আরও বলেন, ‘স্নিগ্ধ সাজে থাকতে চেষ্টা করি। আর চেষ্টা করি বাইরে থেকে ফিরে মেকআপটা ভালো করে তুলতে। মেকআপ তুলতে তুলতে গান শুনি।’

ভোজনরসিক কনা

কনাকে ভোজনরসিক বলা যায়। সুস্বাদু সব ধরনের খাবারই তার পছন্দ। নতুন ধরনের খাবারের স্বাদ নিতেও পছন্দ করেন কনা। বন্ধুদের সঙ্গে নতুন নতুন রেস্টুরেন্টে গিয়ে খাবারের স্বাদ নিতেও বেশ আনন্দ পান তিনি। খাবার প্রসঙ্গে কনা আরও জানান, ‘মিষ্টিজাতীয় খাবার পছন্দ করি। খেতে পছন্দ করলেও ফ্যাট ও কার্বোহাইড্রেট-জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে চেষ্টা করি। বাড়িতে মাছ আর শাকসবজি বেশি খাওয়া হয়। গলা ভালো রাখতে রোজ সকালে মধু আর গরম পানি খাই।’ কনা রাঁধতেও পছন্দ করেন। রান্নার মধ্যে ডেজার্ট-জাতীয় খাবার বেশি তৈরি করেন। মেহমান এলে বা নিজেদের জন্য বাসায় প্রায়ই তিনি ডেজার্ট তৈরি করেন।

ঢাকার প্রতি মায়া

ঘুরতে খুব পছন্দ করেন কনা। সমুদ্রসৈকত তার প্রিয় ঘোরার জায়গা। সুযোগ পেলেই কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতে ছুটে যান। অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন তার আরেকটি পছন্দের জায়গা। কনা আরও জানালেন, ‘অনেক দেশ যাওয়ার সুযোগ হয়েছে। ঘুরতে পছন্দ করি, তাই যখন যে জায়গায় যাই সেটাই ভালো লাগে। তবে নিজ শহর ঢাকার প্রতি সব সময়ই অন্যরকম দুর্বলতা কাজ করে।’

অবসরে যা করেন

কনা নিয়মিত সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠতে চেষ্টা করেন। খুব বেলা করে ঘুমানো তার পছন্দ নয়। অবসর প্রসঙ্গে কনা জানান, টিভি দেখে, গান শুনে অবসর কাটাতে পছন্দ করি। আর একটি কাজ পছন্দ করি, সেটা হচ্ছে নিয়ম ভাঙতে। অর্থাৎ নিয়মের কাজ নিয়মে না করেই আমি অবসরে আনন্দ পাই। এদিন আমি খাওয়ার সময় খাই না, গোসলের সময় গোসল করি না। যখন যেটা ভালো লাগে সেটা করি। কারণ দিনটি শুধুই আমার। তাই আমি আমার মতো করে কাটাই।

আমার আমি

আমার সব প্রাপ্তিতে, সব প্রেরণায় আমার মা। আমি সহজে রেগে যাই না। তবে রেগে গেলে চিৎকার করি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে