রূপ সমস্যা

হাতের নখ খুব পাতলা হলে ডায়েটের দিকে নজর দেওয়া দরকার

  অনলাইন ডেস্ক

১৮ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

প্রশ্ন : আমি কর্মজীবী নারী। দিনের মধ্যে আট ঘণ্টা এসি অফিসে বসে কাজ করি। হাত-পায়ের ত্বক কেমন যেন শুষ্ক হয়ে যায়। আবার ঘরে ফেরার পর সারা গা আঠা আঠা লাগে। এই গরমে ত্বকে অ্যালার্জির মতো হয়ে গেছে। গরমে ও বাদলায় ত্বকের যতœ কীভাবে নেব জানাবেন প্লিজ।

রতœা গোস্বামী, বনশ্রী, ঢাকা

উত্তর : এয়ারকন্ডিশনার পরিবেশকে ঠা-া করে বটে, কিন্তু স্বাভাবিকভাবেই ত্বকের শুষ্কতা বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু এ থেকে বাঁচার উপায় আছে। কাজের ফাঁকে খানিকটা সময়ের বিরতি নিয়ে এসি রুমের বাইরে গিয়ে হেঁটে আসুন। এতে নতুনভাবে কাজে উদ্দীপনা আসবে। ত্বকটা সতেজ হতে সাহায্য করবে। হাতের কাছে নন-ফ্রাগরেন্সড ময়েশ্চারাইজার রাখুন সব সময়। বেশি শুষ্কতা অনুভূত হলে ফেশিয়াল অয়েলও ব্যবহার করতে পারেন ত্বকে। প্রচুর পরিমাণে পানি খাওয়া প্রয়োজন। এতে ত্বক আর্দ্র থাকবে। আর বর্ষায় বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ এমনিতেই বেশি থাকে, ফলে ঘামটাও বেশি হয়। সঙ্গে বাতাসের আর্দ্রতা মিশে ত্বকে আঠা আঠা ভাব সৃষ্টি হয়। তাই বাসায় ফিরে ভালো বডি ক্লিনজার দিয়ে শরীর পরিষ্কার করে নিতে হবে। আর যেহেতু ত্বকে অ্যালার্জির সমস্যা আছে আপনার সে ক্ষেত্রে অ্যালার্জেন ফ্রি উপাদানে তৈরি বডি ওয়াশ ব্যবহার খুব জরুরি। সপ্তাহে দুবার এক্সফোলিয়েশন সেরে নিন শরীরজুড়ে। সঙ্গে ব্যবহার করতে হবে নন-ইরটেটিং সোয়েট প্রুফ সানস্ক্রিন, সূর্যের ক্ষতিকারক আলোকরশ্মি থেকে বাঁচাতে।

প্রশ্ন : আমার হাতের নখ খুব পাতলা। ভেঙে যায় প্রায়ই। আমি একটু বড় নখ রাখতে চাই। এ ছাড়া ম্যানিকিওর ও প্যাডিকিওর ঘরে বসে কীভাবে করতে পারি তা জানালে উপকৃত হব।

সীমা মেহরাজ, শান্তিনগর, ঢাকা

উত্তর : হাতের নখ খুব পাতলা হলে ডায়েটের দিকে নজর দেওয়া দরকার। ক্যালসিয়াম আর ভিটামিন ‘ই’সমৃদ্ধ খাবার থাকতে হবে মেন্যুতে। আর এ রকম নখ প্রাকৃতিকভাবেই খুব বেশি বড় রাখা যায় না। বাড়িতে বসে ম্যানিকিওর-প্যাডিকিওর করে নেওয়া যায় সহজেই। এ ক্ষেত্রে প্রথমে নখের নেইলপলিশ রিমুভার দিয়ে তুলে নিতে হবে। তারপর এমেরি বোর্ড নিয়ে পছন্দসই শেপে নখ ফাইল করে নিতে হবে। দরকার হলে নখটা পছন্দসই শেপে কেটেও নিতে পারেন প্রথমে। তার পর ঈষদুষ্ণ পানিতে বডি ওয়াশ দিয়ে ফেনা তৈরি করে হাত-পা ডুবিয়ে বসে থাকুন। এতে কিউটিকলস নরম হবে। হালকা নরম ব্রাশ দিয়ে নখ এবং হাত-পা ঘষে নিতে পারেন। তারপর পানি থেকে তুলে শুকনো করে মুছে নিন। এরপর কিউটিকল রিমুভার কিংবা টিউবের গায়ে লেখা নিয়ম মেনে কিউটিকল রিমুভার মাখুন। তারপর অরেঞ্জ স্টিক বা কিউটিকল পুশার দিয়ে কিউটিকল পুশ করুন। নখের বেসে কিউটিকল ক্রিম বা লোশন ব্যবহার করুন। কিছুক্ষণ পর ঈষদুষ্ণ সাবান পানিতে নখের অংশ ডুবিয়ে নরম ব্রাশ দিয়ে ডাইনওয়ার্ড মোশনে ঘষুন। এরপর শুকনো করে হাত-পা মুছে নিন।

প্রশ্ন : এই বৃষ্টি-বাদল আর গরমে চুলগুলো দিনকে দিন কেমন যেন মলিন হয়ে যাচ্ছে। চুল উজ্জ্বল করতে হলে কী করতে হবে জানাবেন। আমার চুল একটু ঢেউ খেলানো। কোমর পর্যন্ত লম্বা। একসময় বেশ ঘন ছিল। এখন ক্রমেই পাতলা হয়ে যাচ্ছে। সমাধান দিন।

রিজিয়া সুলতানা, মালিবাগ, ঢাকা

উত্তর : বর্ষায় উজ্জ্বলতা ধরে রাখার জন্য নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে চুল। এ ক্ষেত্রে কোমল পরিষ্কারক শ্যাম্পু আর ময়েশ্চারাইজিং কন্ডিশনার ব্যবহার সবচেয়ে ভালো অপশন। হিবিসকাস কিংবা আরগান অয়েলের নিয়মিত ব্যবহার চুলের প্রাণোজ্জ্বল ভাব ফিরিয়ে দেবে। তবে চেষ্টা করবেন বৃষ্টির পানিতে চুল না ভেজাতে। এতে চুলের প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা হারায়, অনেক বেশি মলিন দেখায়। আর ভিজে গেলেও দ্রুততম সময়ে ধুয়ে শুকিয়ে নেওয়া চাই চুল। এ ছাড়া ঘরোয়া পদ্ধতিতে যতœ নিতে পারেন চুলের। পাকা পেঁপের সঙ্গে চিনির রস কিংবা পাকা কলার সঙ্গে মেয়োনেজ মিশিয়ে তৈরি করা যায় দারুণ হেয়ার প্যাক, যা মিনিট পনেরো মাথায় রেখে ধুয়ে নিলে চুলের জৌলুস বাড়ে। বাড়ে ঘন ভাব। মাথার ত্বকে লেবুর রসও মেখে ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুল গোড়া থেকে মজবুত আর শক্ত হয়ে ওঠে। ঝরঝরে ভাব সৃষ্টি হয়।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে