শীত ফ্যাশনে জিন্স

  আমান উল্লাহ

০৯ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জ্যাকেট

সোয়েটার কিংবা হুডি তো পরছেনই, পার্টি ওয়্যারে পরুন শৌখিন শীতের পোশাক। ভাবছেন কী পরবেন? নানা রকম জ্যাকেট পরতে পারেন। তা হতে পারে উজ্জ্বল কোনো রঙ, চেক এমনকি ফুলেল প্রিন্টেরও। কারণ বর্ণিল এই জ্যাকেট এবার শীতে ট্রেন্ড। সঙ্গে জিন্স প্যান্ট। বাজার ঘুরে জানাচ্ছেনÑ আমান উল্লাহ

নগরে শীত এখনো জেঁকে না বসলেও নড়েচড়ে বসেছে ফ্যাশন হান্টাররা। সমকালীন পাশ্চাত্য ট্রেন্ড অনুসরণ করে শীত পোশাকের কাটছাঁট আর প্রিন্টে থাকছে নিরীক্ষাধর্মী বৈচিত্র্য। ফ্যাশন বিশেষজ্ঞদের ভাষায় আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে পোশাকগুলো ব্যবহারে শীতও যাবে ফ্যাশনও হবে রঙিন। এই ধারায় এ বছর শীতে বৈচিত্র্য দেখা যাবে জ্যাকেটে। স্টাইলিশ এবং আরামদায়ক হওয়ার কারণে তরুণদের কাছে জ্যাকেটের চাহিদা বরাবরই বেশি। আর এ বছর তো জ্যাকেটে যোগ হয়েছে রকিং সব স্টাইল। জ্যাকেটের মধ্যে ডেনিম, ফানেল, কর্ড, উল, মোটা ক্যানভাস কাপড় বা প্যারাসুট কাপড়, লেদার, আর্টিফিশিয়াল লেদারের জ্যাকেটের চাহিদা রয়েছে সব শীতেই। এর মধ্যে ডেনিম আর লেদার জ্যাকেট সব সময়ই তরুণ-তরুণীদের পছন্দের শীর্ষে থাকে। কালো ডেনিমের জ্যাকেটে এ বছর শীতে নতুনত্ব এনেছে কলারে শুভ্র পশমি কাপড়। গরুর চামড়ার লেদারের জ্যাকেটের তুলনায় ভেড়ার চামড়ার লেদারের জ্যাকেটের দাম বেশি। রয়েছে র্যাকসিনের জ্যাকেটও, দাম হাতের নাগালেই।

ইজির কর্ণধার ও ডিজাইনার তৌহিদ চৌধুরী বলেন, ‘বেশ কয়েক বছর ধরেই আমরা ডিজাইনাররা শীত ফ্যাশনে বৈশ্বিক চাহিদার সঙ্গে তাল মিলিয়ে ফ্যাশন ট্রেন্ড তুলে ধরার চেষ্টা করছি। এই ধারাবাহিকতায় এ বছর আরামদায়ক সব ফেব্রিক আর কালার ভেরিয়েশনের জ্যাকেট আনা হয়েছে। এখন কফি, মেরুন, গেরুয়া, নীল, জলপাইয়ের মতো উজ্জ্বল সব রঙের জ্যাকেট চলছে।’ পিওর লেদার ও আর্টিফিশিয়াল লেদারের জ্যাকেটের মধ্যে ক্ল্যাসিক লেন্থ জিপ ফ্রন্ট জ্যাকেট, টু বাটন, ফোর বাটন, ভেলেন্ট লেদার রাইডিং জ্যাকেট, মোটরবাইক, মিলিটারি, এভিয়েটর, রকস্টারসহ বেশ কিছু স্টাইল আলাদাভাবে জনপ্রিয়। রয়েছে হুডি জ্যাকেটও। জ্যাকেট আর ব্লেজারের সংমিশ্রণে তৈরি নতুন ধরনের ব্লেজার জ্যাকেটও এখন বেশ জনপ্রিয়। তবে সবকিছু ছাপিয়ে এবার শীতে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে রয়েছে গাঢ় একরঙা, চেক এবং ফুলেল প্রিন্টের জ্যাকেট বলে জানালেন কান্ট্রি বয়ের কর্ণধার বিটু খান। তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক ধারায় টপস-শার্ট ছাপিয়ে এ দেশের শীতেও এবার ফুলেল নকশায় তৈরি বম্বার জ্যাকেট হটকেকে পরিণত হয়েছে। প্রিন্ট হিসেবে প্রাধান্য পাচ্ছে ছোট ফুলের সঙ্গে লতাপাতার নকশা। আগাগোড়া চেকের জ্যাকেটও এসেছে বাজারে।’ শার্টের মতো দেখতে খুদে ডটপ্রিন্টের জ্যাকেটও নতুনত্বের সুবাস ছড়াবে শীত ফ্যাশনে।

বারবিকিউ পার্টি হোক কিংবা ফরমাল দাওয়াত, স্টাইল এবং আভিজাত্য ফুটিয়ে তুলবে জ্যাকেট। শুধু বুঝতে হবে উপলক্ষটা। ফ্যাশন ডিজাইনার তৌহিদ চৌধুরী জানান, ক্যাজুয়াল যে কোনো আয়োজনে পরতে পারেন ডেনিম, ফানেল, কর্ড বা প্যারাসুট কাপড়ের জ্যাকেট। বন্ধুদের আড্ডা, স্ট্রিট ফ্যাশন থেকে শুরু করে নৈশ আড্ডাতে ভালো লাগবে ব্লেজার জ্যাকেট। ফরমাল কিংবা সান্ধ্য পার্টিতে মানানসই লেদারের জ্যাকেট। এ ধরনের অনুষ্ঠানে চেকের জ্যাকেটের সঙ্গে একরঙা ট্রাউজারে স্টাইলিশ লাগবে। ভোরে বা বিকালে হাঁটতে বেরোলে পরতে পারেন বড় চেকের জ্যাকেট এবং প্যান্টের সেট। বম্বার জ্যাকেটের সঙ্গে নজর কাড়বে চেকের প্যান্ট। এছাড়া নারী-পুরুষ সবারই যে কোনো জ্যাকেট মানাবে জিন্সের প্যান্টের সঙ্গে।

জিন্স প্যান্টের সুতা ব্যবহারে এখন মাথায় রাখা হচ্ছে ঋতু। হালকা এবং ভারী শীতের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হচ্ছে পাতলা এবং ভারী কাপড়ের জিন্স। জিন্স সাধারণত ডেনিম ও ডেনিম স্টিচ দুধরনের কাপড় দিয়ে তৈরি হয়। ফ্যাশন ডিজাইনার বিটু খান বলেন, ‘জিন্স প্যান্টের মধ্যে ছেলেদের কাছে ন্যারো কাটের জিন্স প্যান্ট এখন জনপ্রিয়। অনেকেই আবার স্কিন ফিটিংও পছন্দ করছেন। তরুণীদের জিন্স প্যান্টের মধ্যে ন্যারো, সেমিন্যারো, বুটকাট, স্ট্রেটকাট, ক্রেপ, বেগি প্রভৃতি রয়েছে। এর মধ্যে বুটকাট, ন্যারো এবং চুড়িদার জিন্স বেশি চলছে। বর্তমানে তরুণ-তরুণী সবার কাছেই ছেঁড়া-ফাটা জিন্স জনপ্রিয়।’ জিন্সে ছেঁড়া নকশা আগে দেখা গেলেও এখন হাঁটুর ওপর বেশ কিছুটা অংশে ছেঁড়া নকশার দেখা মিলবে। কখনো কাটা জায়গাটার ফাঁকা বেশ একটু বড় করে রেখে দেওয়া হচ্ছে কখনো সেখানে অন্য রঙের কাপড় জুড়ে দিয়ে তৈরি হচ্ছে বিশেষ নকশা। প্যান্টের নিচের অংশের সুতা বের করে রাখা, দুই পাশে মোটা সেলাই দেওয়ার চলও চলছে। শুধু নেভি ব্লু নয়, জিন্সে যুক্ত হয়েছে কালো, সাদা, খাকি, আকাশিসহ বিভিন্ন রঙ।

জিন্স-জ্যাকেট কেনার জন্য সেইলর, ইজি, কান্ট্রিবয়, এক্সটাসি, জেন্টাল পার্ক, ইনফিনিটি, লা রিভ, ওটু, ইয়োলোসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে ঢুুঁ মারতে পারেন। এসব ফ্যাশন হাউসে জ্যাকট মিলবে ২ হাজার ৫০০ থেকে ৮ হাজার টাকায়। অপরদিকে ফ্রিল্যান্ডের ডেনিমের জিন্সের দাম পড়বে ২ হাজার থেকে ৪ হাজার টাকা। আরমানি, লেভিস, ডিজেল, ডিঅ্যান্ডজি, ডেভিসন, হোপম্যান ব্র্যান্ডের জিন্স প্যান্টের দাম পড়বে ৩ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা। বাজেট কম থাকলে জিন্স-জ্যাকেট কিনতে যেতে পারেন বঙ্গবাজার, ধানম-ি হকার্স, আজিজ সুপার মার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেটে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে