হিমেল হাওয়ায় হুডি

  ইসমত জেরিন স্মিতা

২৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ০০:০০ | আপডেট : ২৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ১০:২৬ | প্রিন্ট সংস্করণ

শীত বলে কথা। একটু ফ্যাশনেবল পোশাক তো চাই-ই। তাই শীত ফ্যাশনের মাত্রায় যোগ হয় নানা উপকরণ। যেমন হুডি। শীত ফ্যাশন ও পোশাকের বৈচিত্র্যে চলতি ট্রেন্ড হলো হুডি। সব বয়সের মানুষকেই হুডিতে বেশ মানিয়ে যায়। এ বছর মেয়েদের ও ছেলেদের লং ডিজাইনের জিপারওয়ালা হুডির চাহিদা বেড়েছে।

একটা সময় হুডি ব্যবহার হতো শুধু জ্যাকেটেই। জিপারওয়ালা বা জিপার ছাড়া বড় পকেট থাকত তাতে। জরুরি জিনিস বহন করা ও মাথা ঢাকা দুটো প্রয়োজনই মিটত। তবে এখন এর রূপ বদলেছে। শুধু জ্যাকেট নয়, সোয়েটার, টি-শার্ট নানা ধরনের পোশাকেই হুডি জুড়ে দেওয়া হচ্ছে। শীত পোশাকের পাশাপাশি ফ্যাশনটাও হয়ে যায় হুডির মাধ্যমে। আর তাই এখন বাজারে বেশ চাহিদা রয়েছে শীতের পোশাক হুডির। রঙ হিসেবে তরুণরা হালকা মেরুন, কালো, অফ হোয়াইট রঙের হুডিই বেশি পছন্দ করছেন।

বয়সভেদে মানায় দারুণ
চাদর-মাফলারের যুগ শেষ করে গরম পোশাকের কাতারে যুক্ত হয়েছে ওয়েস্টার্ন পোশাক। যার মধ্যে হুডিওয়ালা পোশাকের কদর সবচেয়ে বেশি। বিশেষ করে তরুণরা শীতকালীন শার্ট, গেঞ্জি (ম্যাগি, ফুলহাতা), সোয়েটার এমনকি জ্যাকেটের সঙ্গেও হুডি ফ্যাশনকেই প্রাধান্য দিচ্ছে। বর্তমানে যে কোনো বয়সীদেরই হুডির জ্যাকেট পরতে দেখা যায়। খুব বেশি ভারী না হওয়ার কারণে যে কেউ পছন্দের তালিকায় এ পোশাকটিই রাখছে। কলেজ পড়ুয়া ছেলেমেয়েরা এটা বহন করতে সহজ বলে পরতে পছন্দ করছে। আবার নিজেদের একটা বিশেষ স্টাইলও এতে প্রকাশ পায়। ফলে নিজেকে উপস্থাপন করা যায় ফ্যাশনেবল করে। কেননা তরুণরা একটু লাইট কালার বেশি পছন্দ করে। সেখানে একটু বয়স্করা আবার গাঢ় শেডের কালার বেছে নেয়। অল্প বয়স্ক শিশুরা বিভিন্ন নকশার হুডির পোশাক বেছে নেয়। শিশুদের হুডি হচ্ছে রঙচঙে।

তারুণ্যের ফ্যাশনেবল পোশাক হুডি
মার্কেট ঘুরে দেখা গেল ছেলেদের জন্য এবার দুই পার্টের হুডির দারুণ চাহিদা। লং জিপার, ইচ্ছা হলে বুক খুলে রাখা যায়, আবার ইচ্ছা হলে জিপার লাগিয়ে রাখা যায়। ন্যারো, স্ট্যান্ডার্ড শেপ ও পাশে দুটি পকেট তরুণদের দারুণ মানিয়ে যায়। এই ডিজাইনের হুডির জ্যাকেটগুলো সাধারণত গেরুয়া, হালকা নীল, হালকা মেরুন, আকাশি, মেটে রঙের বেশি দেখা গেল। এসব পোশাকের সঙ্গে কান ও মাথা ঢাকার হুড যুক্ত থাকে। ঢাকায় যেহেতু শীতের দাপট কম, তাই বর্তমানে হুডি শার্ট ও হুডি গেঞ্জি বেশ ভালো চলছে। ডিজাইনাররা এমব্রয়ডারি, কলারে হ্যান্ডস্টিচ, হাতের কাজ, বিভিন্ন কটন, চেইন ও বোতামের ভিন্নতা, টু-ইন-ওয়ানসহ বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন করছেন, যা তরুণদের মধ্যে জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

ডিজাইন ও স্টাইলে হুডি
ডিজিটাল যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে পোশাকেও যোগ হচ্ছে নতুন মাত্রা। এখন দেশীয় ব্যান্ডগুলো প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে আনছে নিত্যনতুন ডিজাইন, নতুন স্টাইলের পোশাক। এ বছর হুডি পোশাকে ডিজাইনের বৈচিত্র্য বেশি দেখা যাচ্ছে। সাধারণত একরঙা, বিভিন্ন প্রিন্ট আর ব্লকের কাজ করা হুডিগুলো ফুলহাতা। হুডি জ্যাকেটের মধ্যে কটন, লেদার ও জিন্স আইটেমগুলোইএবার বেশি। এবারের হুডি জ্যাকেটগুলো সাধারণত একরঙার পাশাপাশি বিভিন্ন রঙে দেখা যাচ্ছে।

অন্যদিকে মেয়েদের সুতি, জর্জেট কাপড়ের পোশাকের সঙ্গেও হয়েছে হুডির সংযোজন। এসেছে নানা রঙের স্ট্রাইপ দেওয়া হুডি টপ। খাটো হাতার এসব টপের সঙ্গে বিপরীত রঙের টি-শার্ট পরা যেতে পারে। যেগুলোর মধ্যে অ্যাশ, কালো, ঘন নীল, মেরুন বেশি দেখা যাচ্ছে। মেয়েরা স্কার্টের সঙ্গেও হুডি পরতে পারেন। আর ছেলেদের ফুলসিøভ হুডি জ্যাকেট, হুডি সোয়েটার, ব্রকলাইন হুডি সোয়েটার, স্লিভলেস হুডি, ব্যাটম্যান হুডির পাশাপাশি হুডিওয়ালা শার্টগুলোর কাটতি বেশি। হুডি শার্টগুলো মূলত কটন আর জিন্স ফেব্রিক্সে তৈরি। কয়েকটিতে থাকে বোতাম লাগানোর ব্যবস্থা। চেইন রয়েছে কিছু কিছু হুডিতে। গত বছর বোতাম লাগানো ফিক্সড ডিজাইনের হুডি চললেও এ বছর জিপারওয়ালা লং ডিজাইনের হুডির চাহিদা বেশি।

ডিজাইনার্স হুডি
ফ্যাশন হাউস স্মার্টেক্সের ম্যানেজার বিপ্লব জানালেন এ বছরের হুডির ট্রেন্ড নিয়ে। এবার এ হাউসটি মেয়েদের জন্য লং প্যাটার্নের কুর্তি স্টাইলের হুডি করেছে। লং কুর্তির সঙ্গে হুডি। জমিনের শেষ অংশে স্ক্রিন প্রিন্টের নান্দনিক নকশা। আছে ফুল-ফল ও প্রকৃতির ছবি, যা টিনএজারদের কাছে খুবই জনপ্রিয়তা পেয়েছে। ছেলেদের জন্য আছে ওয়ান পার্টের জিপার, ননজিপার, বেল্ড, পাশে দুই পকেটের হুডি জ্যাকেট। এগুলোর দাম পড়বে ৯৫০ থেকে ১ হাজার ৩৫০ টাকার মধ্যে।

ফ্যাশন হাউজ ইয়েলোয় এবার দুই পার্টের হুডির চাহিদাই বেশি দেখা গেল। এগুলোয় প্যারাস্যুট ও সিনথেটিক মেটারিয়ালস ব্যবহার করা হয়েছে। আবার হালকা শীতের জন্য আছে এক পার্টের রাউন্ড শেপের হুডি। এ ছাড়া স্ট্যান্ডার্ড শেপের হুডিগুলোও সব বয়সীর পছন্দ। এগুলো নিট ফেব্রিক, দুই পকেট, ফুল বাটনের মধ্যে ডিজাইন করা হয়েছে। এগুলো ২ হাজার ৮০০ থেকে ৩ হাজার ৩০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে। হুডিগুলো তরুণ-তরুণী যে কেউ পরতে পারবে। ফ্যাশন হাউস ইজি ও জেন্টেল পার্কে পাওয়া যাবে দেশীয় কটন ও নিট ফেব্রিকের হুডির জ্যাকেট।

ইজিতে রয়েছে সফট ও মোলায়েম ফেব্রিকের নিজের তৈরি হুডির জ্যাকেট। রয়েছে কম্বল ফেব্রিকের হুডির জ্যাকেট। এগুলো ৯৯০ থেকে ১ হাজার ২৯০ টাকার মধ্যে কেনা যাবে। আর দুই পার্টেও বিদেশি কাপড়ের হুডির পোশাক পাওয়া যাবে ১ হাজার ৫০০ থেকে ২ হাজার ৪০০ টাকার মধ্যে। এখানে হুডির পোশাকে আছে বৈচিত্র্য। এ ছাড়া পাওয়া যাবে ইম্পোর্ট করা থাইল্যান্ড, চায়নার হুডির জ্যাকেট।

হুডিতে ভেরিয়েশন ও ডিজাইনার্স হুডির পোশাক কিনতে চাইলে যেতে পারেন অভিজাত শপিংমলগুলোয়। এ ছাড়া জেন্টেল পার্ক, ক্যাটস আই, ফ্রিল্যান্ড, জারা, দেশী দশ এবং নন-ব্যান্ডের দোকানগুলোয় ফ্যাশনেবল হুডির পোশাক পাওয়া যাবে। যারা একটু কম বাজেটে হুডির পোশাক কিনতে চান তারা যেতে পারেন নিউমার্কেট, আজিজ সুপার মার্কেট, বঙ্গবাজার, বদরুদ্দোজা মার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেটে। বসুন্ধরা সিটির মতো নগরীর অভিজাত শপিংমলগুলোয়ও বৈচিত্র্যময় হুডি কালেকশন রয়েছে। রাজধানীর হকার্স মার্কেটে গেলে পাবেন মেয়েদের জন্য বিভিন্ন কালারের হুডিওয়ালা ওভার কোট। ছেলেদের জন্যও হুডিযুক্ত ওভার কোট পাওয়া যাচ্ছে। পাশাপাশি গেঞ্জি ও নিট ফেব্রিকের সামনে পকেটওয়ালা হুডিও পেতে পারেন। অনায়াসে এসব স্থানে হুডি পাবেন ডিজাইন ও মেটারিয়ালভেদে ২০০ থেকে ১ হাজার টাকায়। এ ছাড়া অনলাইন শপিং সাইটগুলোতেও রয়েছে হুডির কালেশন। সাধারণ মানের হুডির দাম পড়বে ২৫০ থেকে ৭৫০ টাকা। আর ব্র্যান্ডের উন্নত কাপড় ও কোয়ালিটির হুডির দাম পড়বে ৮০০ থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে