নতুন বছরে নতুন লুক

  রওনক বিথী

১১ জানুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বছর বিশেক আগেও নতুন বছরের অর্থ ছিল শুধুই নতুন ক্যালেন্ডারের পাতা উল্টে দিনক্ষণের হিসাব কষা। এখন নতুন বছর মানে শুধু হিসাব কষা নয়, নিজেকে নতুনভাবে উপস্থাপন করাও। নতুন বছরে নতুন লুকে নিজেকে দেখা। নতুন বছরে কীভাবে নতুন লুকে হাজির হতে পারেন সেই পরামর্শ দিয়েছেনÑ বিউটি এক্সপার্ট ফারনাজ আলম এবং ফ্যাশন ডিজাইনার

লিপি খন্দকার।

 

 

নতুন বছর মানেই জীবনকে নতুনভাবে সাজানোর পরিকল্পনা। এতে শুধু নতুন কাজের পরিকল্পনাই নয়, নতুন বছরে নতুন লুকে নিজেকে উপস্থাপন করেও আপনি জীবনধারায় আনতে পারেন বৈচিত্র্য। তার মানে এই নয় যে, আপনার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে যায় না, এমন কোনো কিছু করতে হবে। বরং আপনার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মানানসই সাজপোশোকের মাধ্যমেই নতুন বছর আপনিও হয়ে উঠতে পারেন নতুন।

হেয়ারস্টাইলে নতুনত্ব

নতুন একটি হেয়ার কাট আপনার সম্পূর্ণ লুকই বদলে দিতে যথেষ্ট। শুধু লুক নয়, বয়স থেকে ব্যক্তিত্বের পরিবর্তন আনা যায় হেয়ার কাটের মাধ্যমে। আপনি হয়তো সব সময় স্টেপ কিংবা বড়জোর লেয়ার কাটই দিচ্ছেন। নতুন বছর হেয়ার কাটে একটু ভিন্নতা আনুন। আপনার চুল যদি স্টেইট হয়ে থাকে তবে এবার ব্যাঙ্গস কাট দিয়ে দেখুন নিজেকে কেমন নতুন লাগছে। এই ব্যাঙ্গস কাটটিকেই আবার বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে সেট করেও লুকে পরিবর্তন আনতে পারেন। ভলিউম, ইমো কাটেও আপনি নিজেকে নতুনরূপে চিনতে পারেন। আপনি যদি একটু সাহসী হয়ে থাকেন কিংবা চুলে এক্সপেরিমেন্ট করতে পছন্দ করেন তবে নতুন বছরটিতে বব কাট দিতে পারেন। এ বছর বব, ইমো, ব্যাঙ্গস, ভলিউম, লেয়ার চলবে। আর এই হেয়ার কাটগুলোতে আপনার বয়সও লুকিয়ে যাবে অনেকখানি। যাদের চুল কোঁকড়া তারা মনে করেন তাদের চুলে কোনো কাট দেওয়ার নেই। এ কারণে কোঁকড়া চুলের অধিকারীরা অধিকাংশ সময় স্টেপ, ইউ কাটই দিয়ে থাকেন। এ বছর ভলিউম দিয়ে দেখুন আপনি কেমন আত্মবিশ^াসী হয়ে উঠেছেন। গত বছর হালকা কার্ল বেশ জনপ্রিয় ছিল। এ বছরও তাই। কিন্তু আপনি হয়তো স্টেইট পছন্দ করেন তাই প্রতিবছর সেভাবেই চালিয়ে যাচ্ছেন। স্ট্রেইটেই থাকুন কিন্তু এই শীতে আর না হলেও দু-একটি পার্টিতে পার্লারে গিয়ে চুলগুলোকে হালকা ঢেউ খেলিয়ে আসুন কিংবা রোল করে দেখুন চুলে কেমন নতুন ছন্দ এসেছে। কার্ল মেশিন দিয়ে মাঝে মধ্যে বাড়িতেই কার্ল কিংবা রোল করে অনুষ্ঠানগুলোয় গিয়ে দেখুন নিজের সঙ্গে সঙ্গে অন্যদেরও কেমন প্রশংসা পাচ্ছেন।

হেয়ার কালার করতে পারেন

শুধু হেয়ার কাটই নয়, হেয়ার কালারও আপনার লুক বদলে দেবে। নতুন বছর লুকে ভিন্নতা আনতে সামনে, সাইডে কিংবা নিচের দিকে এক গোছা চুল রঙ করতে পারেন। লক্ষ রাখুন হেয়ার কালারটিতে যেন আপনার উগ্রতা প্রকাশ না পায় কিংবা আপনার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মানানসই হয়। এ বছর লাল, সোনালি, বারগেন্ডি রঙগুলো খুব চলবে।

বদলে ফেলুন বেইস মেকআপ

লুকে পরিবর্তন আনতে মেকআপ খুব বড় একটি বিষয়। আপনি যদি গতানুগতিক, সাধারণ মেকআপে অভ্যস্ত হয়ে থাকেন তবে এ বছর একটু ট্রেন্ডি, স্মোকি, বাটারফাই, গর্জিয়াস, গ্ল্যামারাস মেকআপে নিজেকে নতুন করে চিনতে পারেন। ভিন্ন ধরনের মেকআপ ছাড়াও আপনি যদি ভারী মেকআপে অভ্যস্ত হয়ে থাকেন তবে এবার মেকআপে ইন ন্যাচারাল মেকআপ করুন। এতে হয়ে উঠবেন স্টাইলিশ। ন্যাচারাল মেকআপে মেকআপ যে করা হয় না তা কিন্তু নয়, বরং বিবি ক্রিম, প্রিমিয়ার, কমপ্যাক্ট, ফেসপাউডার দিয়ে বেইস মেকআপটা করায় দেখতে ন্যাচারাল লাগে।

হ ৬ পৃষ্ঠার পর

চোখের সাজে আনুন ভিন্নতা

মুখের পুরো মেকআপের মধ্যে সহজেই দৃষ্টি আকর্ষণ করে চোখের সাজ। কাজেই গতানুগতিক প্লেইন চোখের সাজ বাদ দিয়ে এবার চোখের সাজে ব্যবহার করুন নীল বা সবুজ রঙের আইলাইনার, কাজল কিংবা গ্লিটার। সবুজ, হলুদ, সোনালি, বেগুনি, নীলের মতো উজ্জ্বল রঙের আইশ্যাডোও এখন জনপ্রিয়।

যা পারেননি আগে কখনো

আপনি হয়তো সালোয়ার-কামিজ পরে অভ্যস্ত অথবা ওয়েস্টার্নে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। নতুন বছরে নিজেকে নিয়ে একটু এক্সপেরিমেন্ট করুন, যা আগে কখনো পরেননি এবার তাই পরে ফেলুন। আপনি সব সময় সালোয়ার-কামিজ পরে থাকলে এবার ওয়েস্টার্ন পরে দেখুন। যদি ওয়েস্টার্ন ক্যারি করতে আত্মবিশ^াস না থাকে তবে পরতে পারেন হাল ফ্যাশনের কুর্তি, গাউন, লং-স্কার্ট, আনারকলি, সারারায়, কেইপ, কোটি ধাঁচের পোশাকগুলোও। সালোয়ার-কামিজের কাছাকাছিই থাকবে অথচ স্টাইলে সম্পূর্ণ ভিন্নমাত্রা যোগ করবে। আবার সব সময় ওয়েস্টার্নে কমফোর্ট ফিল করলেও এবার একটু পরিবর্তন আনুন। সামনের কোনো অনুষ্ঠান ফ্যাশনেবল কোনো সালোয়ার-কামিজ পরে ফেলুন। একেবারেই যদি কমফোর্ট ফিল না করেন তবে কুতি, গাউন, কেইপের মতো দেশীয় কাঁটছাটের ওয়েস্টার্ন পোশাক পরুন। ভিন্নতা আসবে। যারা শাড়ি পরেন না বললেই চলে, তারা মাঝে মধ্যে কোনো অনুষ্ঠানে শাড়ি পরে দেখুন বাঙালি এই পোশাকটিতে নিজেকে কেমন নতুনভাবে আবিষ্কার করছেন। যারা শাড়ি পরে অভ্যস্ত তারা সালোয়ার-কামিজের এক্সপেরিমেন্ট করে দেখতে পারেন। আর যদি শাড়ি একেবারেই ছাড়তে না চান, সে ক্ষেত্রে গতানুগতিক ধরনের চেয়ে একটু স্টাইলিশ শাড়ি বেছে নিন। ব্লাউজের গলাতেও পরিবর্তন আনতে পারেন। ব্লাউজের গলার মধ্যে হাই নেক, জেট নেক, বোট নেক এখন ফ্যাশনেবল। একইভাবে সব সময় যে ধরনের রঙের পোশাক পরা হয় অর্থাৎ হালকা কিংবা উজ্জ্বল এবার তার বিপরীত ধরনের রঙগুলো পরে দেখুন শুধু রঙেই আপনি কেমন নতুন হয়ে উঠেছেন।

যেই পোশাকই পরুন না কেন কিংবা যেমন মেকআপই করুন না কেন, আপনি তাতে সাবলীল আছেন কিনা এবং তা আপনার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মানানসই কিনা সেটা নিশ্চিত করুন সবার আগে।

 

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে