sara

ওয়েল্ডার থেকে বিলিয়নেয়ারের জন্ম

  অনলাইন ডেস্ক

১১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জন ফ্রেড্রিক্সন ১৯৪৪ সালের ১০ মে নরওয়ের একটি দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা একজন সামান্য ওয়েল্ডার ছিলেন। ওয়েল্ডারের ঘরে জন্ম নেওয়া সত্ত্বেও ফ্রেড্রিক্সন ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখতেন বড় হয়ে তিনি পৃথিবীর সেরা ধনী ব্যক্তি হবেন। যদিও স্কুলের খরচ চালানোর সামর্থ্য ছিল না তার পরিবারের। তাই নিজের পড়াশোনার খরচ চালানোর জন্য তিনি রাতের স্কুলে ভর্তি হন এবং বিভিন্ন জায়গায় পার্টটাইম চাকরি শুরু করেন। ১৯৬০ সালে পড়াশোনার পাশাপাশি তার কর্মজীবনের অভিষেক হয়। তিনি স্থানীয় একটি শিপিং ব্রোকারেজ অফিসে পিয়নের চাকরিতে যোগদান করেন। তিনি এই টেলেক্সে কর্মরত অবস্থায় ব্যবসার প্রতি প্রবলভাবে আকৃষ্ট হয়ে পড়েন। তাই তিনি পড়াশোনা ও নরওয়ে একসঙ্গে ত্যাগ করে একে একে নিউইয়র্ক, সিঙ্গাপুর ও এথেন্সে পাড়ি জমান এবং বিভিন্ন জায়গায় ব্রোকার হিসেবে কাজ করেন। তিল তিল করে সঞ্চিত অর্থ দিয়ে তিনি অবশেষে ১৯৭৩ সালে তার প্রথম মালবাহী জাহাজ ক্রয় করেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে হঠাৎ ত্রুটি হওয়ার ফলে তাকে বিশাল অঙ্কের অর্থ ক্ষতিপূরণ বহন করতে হয়। একজন নবীন ব্যবসায়ী হিসেবে এটি ছিল তার জীবনের প্রথম ও একটি বিশাল বাধা। তবু তিনি সব প্রতিকূলতাকে উপেক্ষা করে, হতাশার কালো আঁধারে ডুব না দিয়ে একজন সাহসী যোদ্ধার মতো নির্ভীকভাবে জয়ের দিকে এগিয়ে চলেছেন। একসময় যেভাবে জয় ছিনিয়ে নিয়েছিলেন পৃথিবীর অন্য ধনকুবেরা। অবশেষে ২০১২ সালে যুক্তরাষ্ট্রে তিনি নবম ধনী ব্যক্তি হিসেবে নির্বাচিত হন। বর্তমানে তার মোট সম্পদের পরিমাণ ৭ দশমিক ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ফ্রেড্রিক্সন বর্তমানে পৃথিবীর বৃহৎ তেল ট্যাংকারের মালিক। এ ছাড়া জাহাজ, হোল্ডিংস, মাছের বৃহৎ ব্যবসা রয়েছে। ফ্রেড্রিক্সনের লন্ডন, অসলো, সাইপ্রাস, রেদিয়ামসহ বিভিন্ন জায়গায় হাসপাতাল রয়েছে। তার সাবেক স্ত্রীর মৃত্যুর পর ফ্রেড্রিক্সন তার দুই কন্যা সিসিলি ও ক্যাথরিন এসটরাপ ফ্রেড্রিক্সনসহ নরওয়েতে বসবাস করছেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে