কবিতা

  অনলাইন ডেস্ক

১৯ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জাহাঙ্গীর আলম জাহান

গাঁয়ের কাছে মায়ের কাছে

নেবে তুমি মায়ের হাসি, বোনের ভালোবাসা

নাকি নেবে বাবার চোখের স্বপ্ন-রঙিন আশা।

চাও কি নিতে আবহমান গাঁও-গেরামের সুখ

দাদির প্রিয় পানের বাটা, পান-রাঙানো মুখ?

নেবে তুমি কিষান বধূর সহজ-সরলতা

চাচির মুখের রূপকাহিনি, পাতালপুরীর কথা।

কী নিতে চাও? নেবে যদি গাঁয়ের কাছে এসো

সোঁদা মাটির গন্ধ তুমি একটু ভালোবেসো।

নেবে তুমি হলুদ বিকেল, সর্ষে ফুলের মাঠ

ফল-ফলারির বাগান ঘেরা প্রিয় এ তল্লাট।

আর কী নেবে? বাবুই পাখির নকশি-বুনন ঘর

নাকি নেবে অবুঝ মেয়ের সবুজ সে অন্তর।

নেবে তুমি পাতার বাঁশি, গ্রাম্য মেলার গান

মিরছি দিয়ে তৈরি পুতুল, আনন্দ অম্লান।

নাকি নেবে ডাব-নারকেল, মিষ্টি তালের শাঁস

নিতে পারো চিরকালীন সারল্য-বিশ্বাস।

আর কী নেবে? নিতে পারো যতই তুমি চাও

সব তোমাকে দিতে পারে এই আমাদের গাঁও।

গাঁয়ের কাছে মায়ের কাছে সবই আছে প্রিয়

নিজের শেকড় খুঁজতে তুমি গাঁয়ের খবর নিও।

রোমেন রায়হান

বাজার

আমার নাকি রান্না খারাপ!

বনের সবাই হাসে?

কী কারণে খারাপ সেটা

দেখতে কি কেউ আসে?

টাকা নিয়ে বাজারে যাও

কিনলে কিসের ক্ষতি?

ওল কচু, লাউ, বরবটি, শিম

শজনে, কচুর লতি!

আলু, পটোল, কুমড়ো, বেগুন

ঢেঁড়স, গাজর, ডাঁটা

বাজারে নেই কোনো কিছুই?

সরবরাহে ভাটা!

প্রত্যেকদিন একই জিনিস

বুড়ো, পচা ঝিঙে!

তুমি হলে আমার দেখা

সবচে বোকা ফিঙে।

মজার মজার খাবার খাবে?

বাজার সদাই বাজে!

এমন হলে নেই আমি আর

রান্না করার কাজেÑ

বাজার করা নিয়ে ফিঙে

খাচ্ছে বউয়ের বকা

ফিঙের বউকে কে বোঝাবে

বাজার মানেই ঠকা।

ক্যাডেট ফারদিন

অপেক্ষা

অপেক্ষায় আছি,

জানালাটা খুলে দিয়ে

মনে হাজারো আশা নিয়ে।

চেয়ে আছি তাকে দেখার জন্য;

সে আমার মাÑ পৃথিবীতে অনন্য।

সব ভয় সরিয়ে রেখেছি,

সব জানালা খুলে রেখেছি

চলে এসেছি চেনা মুখ দেখে

আমার মা

বসে আছে পৃথিবীর রঙ মেখে।

ক্যাডেট নং-১৮১২

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে