• অারও

শিশুর টিকার গুরুত্ব

  ডা. শাহনেওয়াজ চৌধুরী

১২ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রোগ প্রতিরোধের সবচেয়ে বড় মাধ্যম টিকা। তাই সঠিক সময়ে শিশুর নির্ধারিত টিকা নিতে হবে। আসুন, জেনে নিই ০-১১ মাস এবং ১৫ মাস বয়েসী শিশুর টিকার সময়সূচি। জন্মের সঙ্গে সঙ্গে বিসিজি বা যক্ষ্মার টিকা দেওয়া হয়।

ছয় সপ্তাহ বয়সে : পেন্টাভ্যালেন্ট ভ্যাকসিন। এ ভ্যাকসিনে রয়েছে ডিপিটি, হেপাটাইটিস-বি এবং হিব ভ্যাকসিন। এই ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ। পিসিভি ভ্যাকসিন বা নিউমোকক্কাল নিউমোনিয়ার ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ। ওপিভি বা পোলিও মাইলাইটিসের প্রথম ডোজ।

দশ সপ্তাহ বয়সে : পেন্টাভ্যালেন্ট ভ্যাকসিন। এই ভ্যাকসিনে রয়েছে ডিপিটি, হেপাটাইটিস-বি এবং হিব ভ্যাকসিন। এই ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ। পিসিভি ভ্যাকসিন বা নিউমোকক্কাল নিউমোনিয়ার ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ। ওপিভি বা পোলিও মাইলাইটিসের দ্বিতীয় ডোজ।

চৌদ্দ সপ্তাহ বয়সে : পেন্টাভ্যালেন্ট ভ্যাকসিন। এই ভ্যাকসিনে রয়েছে ডিপিটি, হেপাটাইটিস-বি এবং হিব ভ্যাকসিন। এই ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ। পিসিভি ভ্যাকসিন বা নিউমোকক্কাল নিউমোনিয়ার ভ্যাকসিনের তৃতীয় ডোজ। ওপিভি বা পোলিও মাইলাইটিসের তৃতীয় ডোজ।

নয় মাস বয়সে : এমআর টিকা (হাম ও রুবেলা)। ওপিভি বা পোলিও মাইলাইটিসের চতুর্থ ডোজ।

পনেরো মাস বয়স পূর্ণ হলে : পনেরো মাস বয়সী মেয়েশিশুর জন্য এমআর টিকা (হাম ও রুবেলা)। টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের প্রথম ডোজ। টিটেনাসের অন্যান্য ডোজ: টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের দ্বিতীয় ডোজ : টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের প্রথম ডোজ পাওয়ার ২৮ দিন পরে। টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের তৃতীয় ডোজ : টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের দ্বিতীয় ডোজ পাওয়ার ছয় মাস পরে। টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের ৪র্থ ডোজ : টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের তৃতীয় ডোজ পাওয়ার ১ বছর পরে। টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের ৫ম ডোজ : টিটি বা টিটেনাস টক্সয়েডের ৪র্থ ডোজ পাওয়ার ১ বছর পরে।

আরও কিছু টিকা : চিকেনপক্স ভ্যাকসিন। হেপাটাইটিস-এ ভ্যাকসিন। টাইফয়েড ভ্যাকসিন। ইয়োলো ফিভার ভ্যাকসিন। নিউমোনিয়া ভ্যাকসিন। রোটা ভাইরাস ভ্যাকসিন। কলেরা এবং ইটেক ভাইরাস ভ্যাকসিন। ইনফ্লুয়েঞ্জা ভ্যাকসিন। র্যাবিস ভ্যাকসিন। হিউম্যান প্যাপিলোমা ভ্যাকসিন।

যা মনে রাখা প্রয়োজন : সব ধরনের টিকা সঠিক সময়ে গ্রহণ করতে হবে। ন্যূনতম বিরতির আগে প্রদান করলে সে টিকা অকার্যকর হতে পারে। টিকাদান কার্ড যতেœ রাখুন এবং যথাসময়ে শিশুকে টিকা দেওয়ান।

লেখক : আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার শাহজাহান জেনারেল হাসপাতাল, কলেজ রোড, সুবিদখালী, মির্জাগঞ্জ, পটুয়াখালী ০১৭২২০৪১৯৫৯

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে