পাকস্থলীর ক্যানসার এবং চিকিৎসা

  অধ্যাপক ডা. মো. সহিদুর রহমান

০৭ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ০৭ জুলাই ২০১৮, ০০:৩০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ক্যানসার পাকস্থলীতে, যা এন্ডোস্কপিতে ধরা পড়ে। কিন্তু অন্য এন্ডোস্কপিতে ডিওডেনাম ক্যানসার বলে চিহ্নিত হয়ে চিকিৎসা চলেছে ৪ মাস। কেমোথেরাপি দেওয়া হয়েছে। তবু রোগের লক্ষণ বা উপসর্গ কমছে না। রোগীর নাম অমেলা বেগম। বয়স ৬৪ বছর। পেটে প্রায়ই ব্যথা থাকে। খাওয়ার পর ব্যথা বাড়ে। ৪/৫ ঘণ্টা স্থায়ী থাকে। মাঝে মধ্যে বমি হয়। প্রচ- দুর্গন্ধ বমিতে উঠে আসা খাবারে। কখনো কখনো রক্ত থাকে সেই বমিতে। খাওয়ায় রুচি কমে গেছে। শরীর গঠনে ভাঙন ধরেছে, যা নিয়ে পরিবারের সবাই দুঃখে ভারাক্রান্ত। ৪ মাসে একাধিক চিকিৎসক পাল্টিয়েছে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এরপরে স›ধান পেয়েছে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের। চিকিৎসক আগের সব কাগজপত্র পরীক্ষা করলেন। রোগ নির্ণয় নিয়ে সন্দেহ হওয়ায় পুনরায় এন্ডোস্ককপি করার সিদ্ধান্ত নিলেন। পরীক্ষায় ধরা পড়ল রোগটি ক্যানসার। তবে অবস্থান সঠিক ছিল না। আগের অবস্থান বলা হয়ে ছিল ডিওডেনামে। এবার নির্ণয় হলো পাকস্থলীর পাইলোরাসে। অবস্থাানের পরিবর্তন হওয়ায় অপারেশনও পরিবর্তন করা হবে। আগের ডিওডেনামে থাকায় হুইপল অপারেশন করতে হতো। রোগ নির্ণয়ের অবস্থান পরিবর্তন হওয়ায় এখন করতে হবে পারশিয়াল গ্যাস্ট্রেকটমি।

পাকস্থলীর ক্যানসার ও আলসার এক সময় একটি ভয়ানক রোগ হিসেবে বিবেচিত হতো। কিন্তু সময় পরিবর্তন হয়েছে। চিকিৎসার ধরন বদলেছে। প্রশিক্ষণ নিয়ে আমাদের দেশের চিকিৎসকরাও এখন দক্ষতার সঙ্গে চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন।

বর্তমানে ক্যানসার রোগের ব্যাপকতা বেড়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, আলসার রোগের চিকিৎসা দীর্ঘদিন টানা করলে সেখানে ক্যানসার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই আলসারের ওষুধ দীর্ঘদিন একনাগাড়ে খাওয়া বাঞ্ছনীয় নয়। যারা পেপটিক আলসারের রোগী, তারা মাঝে মধ্যে এন্ডোস্কপি করাবেন। কারণ আলসার থেকে ক্যানসার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বংশানুক্রমিক একটা ধারা আছে। বাবা ও মায়ের ক্যানসার হলে সন্তানের হয়ে থাকে। ধূমপায়ী ও অ্যালকোহলিকরা আক্রান্ত হতে পারেন ক্যানসারে। ৪০ বছর বয়সের পর যাদের ক্ষুধামান্দ্য দেখা দেয়, তারা বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেবেন। কারণ শুরুতে রোগ ধরা পড়লে ঝুঁকি বহুলাংশে কমে যায়। অনেক ক্ষেত্রে কেমোথেরাপি এড়িয়ে যাওয়া যায়।

লেখক : অধ্যাপক, হেপাটোবিলিয়ারি প্যানক্রিয়েটিক অ্যান্ড লিভার ট্রান্সপ্লান্ট

সার্জারি বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব

মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়

০১৮৭৯১৪৩০৫৭, ৯১৩৩৬১৯

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে