মাথাব্যথার ওষুধ কম খাওয়াই ভালো

  ডা. আবদুল্লাহ শাহরিয়ার, শিশু হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ

০৬ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ০৬ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:২০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এমন অনেকে আছেন, যাদের প্রায়ই মাথাব্যথা হয় এবং ব্যথা শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে খেয়ে নেন প্যারাসিটামল বা অ্যাসপিরিনের মতো ব্যথানাশক ওষুধ। অবশ্য খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কাজ হয় বলেই তাদের ধারণা। তাই তারা এ ওষুধ খেয়ে ফেলতে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। যুক্তরাজ্যের বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এতে মাথাব্যথা তো সারবেই না বরং আরও ঘন ঘন হওয়ার ঝুঁকি থাকে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও মত প্রকাশ করেছেÑ বিশ্বজুড়ে প্রায় পাঁচ শতাংশ মানুষ আছেন, যারা মাথাব্যথা নিরাময়ের জন্য এসব ওষুধ এত বেশি পরিমাণে খান যে, শেষ পর্যন্ত সেই ওষুধ শরীরকে তার ওপর নির্ভরশীল করে তোলে এবং তাদের এ সমস্যা স্থায়ীভাবে সেরে যাওয়ার পথে এক সময় বাধা হয়ে দাঁড়ায়। একে বলে মেডিকেশন ওভারইউজ হেডেকস বা অতিরিক্ত ওষুধ খাওয়ার ফলে সৃষ্ট মাথাব্যথা।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যে মাথাব্যথার চিকিৎসার ওপর এক নতুন নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে সে দেশের স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সংক্রান্ত জাতীয় ইনস্টিটিউট এনআইসিই। এতে বলা হয়েছে, কেউ যদি প্রতি মাসে ১০ থেকে ১৫ দিন অ্যাসপিরিন, প্যারাসিটামল বা এ জাতীয় মাথাব্যথার ওষুধ খেয়ে থাকেন, তাদের আরও বেশি মাথাব্যথায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়। এনআইসিইর এ নির্দেশিকা প্রণেতাদের অন্যতম অধ্যাপক মার্টিন আন্ডারউড বলেছেন, এ চক্রের মধ্যে আটকে যাওয়া থেকে রেহাই পাওয়ার উপায় হলো বেদনানাশক ওষুধ খাওয়া একেবারে বন্ধ করে দেওয়া। তবে এটা মেনে চলার জন্য রোগীকে খুব শক্ত মানসিকতার অধিকারী হতে হবে। চিকিৎসকরা বলেছেন, হঠাৎ করে বেদনানাশক ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দিলে আপনার প্রথমে বেশি বেশি ব্যথা হবে ঠিকই কিন্তু তার পর দেখা যাবে মাথাব্যথা হলেও তা আগের মতো ঘন ঘন হচ্ছে না। আরেকজন বিশেষজ্ঞ ডা. ব্রায়ান হোপ বলেছেন, বেশিরভাগ মাথাব্যথা এমনিতেই সেরে যায়। এ জন্য কোনো ওষুধ খাবার তেমন কোনো প্রয়োজন পড়ে না। বিশ্রাম, ঘুম, স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া, অতিরিক্ত মদ্যপান না করাÑ এগুলোই সাধারণ মাথাব্যথা সারানোর সবচেয়ে ভালো উপায়।

লেখক : সহযোগী অধ্যাপক

জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, শেরেবাংলানগর, ঢাকা

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে