নবজাতকের চোখের সমস্যা

  ডা. তানজিনা ইসলাম, রেটিনা বিশেষজ্ঞ ও ফ্যাকো সার্জন

০৭ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ১১:০৮ | প্রিন্ট সংস্করণ

রেটিনোপ্যাথি অব প্রি-ম্যাচুরিটি বা আরওপি হলো নবজাতকের চোখের সমস্যা, যেখানে নবজাতকের চোখের সংবেদনশীল পর্দা বা রেটিনা জন্মের সময় সম্পূর্ণ পরিপক্ব হয় না। ফলে বিভিন্ন ধরনের জটিলতার মুখোমুখি হয় এবং দ্রুত শনাক্তকরণ ও চিকিৎসার অভাবে স্থায়ী দৃষ্টি সমস্যা দেখা দেয়।

প্রি-ম্যাচুর অর্থাৎ সময়ের আগে জন্ম নিলে বা কম ওজন হলে নবজাতক এ সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকে। এদের চোখের রক্তনালি অপরিপক্ব থাকায় এক ধরনের ভঙ্গুর অবস্থা বিরাজ করে, বিশেষ করে যেসব নবজাতক জন্মের অব্যবহিত পরে ইনকিউবিটরে থাকে এবং অক্সিজেন দেওয়া হয়ে থাকে। এ ভঙ্গুর রক্তনালি থেকে যে কোনো সময় রক্তক্ষরণের মতো বিপত্তি ঘটে চোখে মারাত্মক সমস্যা দেখা দেয়।

রেটিনোপ্যাথি অব প্রি-ম্যাচুরিটি বা অপরিপক্ব রেটিনার সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে সারা জীবনের জন্য অন্ধ হয়ে যেতে পারে অনেক নবজাতক। দেশের প্রায় ষাট শতাংশ নবজাতক রেটিনা অপরিপক্বতার ঝুঁকিতে আছে। যেসব নবজাতক ৩৪ সপ্তাহ বা তার আগে জন্ম নেয়, যেসব নবজাতকের জন্মকালীন ওজন ২ কেজি বা তার কম হয়, জন্মের অব্যবহিত পরে যেসব নবজাতককে ইনকিউবেটর বা ইনটেনসিভ কেয়ারে রাখার প্রয়োজন হয় এবং কৃত্রিম অক্সিজেনের প্রয়োজন পড়ে তাদের বেশিরভাগই রেটিনার অপরিপক্বতার শিকার হয়ে থাকে।

রেটিনা হলো চোখে সংবেদনশীল পর্দা, যাতে আলো পড়লে আমরা দেখতে পারি। অপরিপক্বতার কারণে রেটিনার রক্তনালিগুলো ভঙ্গুর থাকে। ফলে সহজেই রক্তক্ষরণের মতো ঘটনা ঘটতে পারে এবং রক্তক্ষরণে রেটিনাল ডিটাচমেন্ট হয়ে পর্দাটি তার সংবেদনশীলতা হারায় এবং স্থায়ী অন্ধত্ব দেখা দেয়। দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন নবজাতকের জন্মের পরেই। শনাক্ত করতে নবজাতকের চোখ পরীক্ষা করা প্রয়োজন।

২৮ সপ্তাহের আগে জন্ম নেওয়া নবজাতক (ওজন ১.৫ কেজি বা তার কম), তার চোখ অবশ্যই জন্মের ২০ দিনের মধ্যে পরীক্ষা করাতে হবে। যেসব নবজাতক ৩৪ সপ্তাহ বা তার আগে জন্ম নিলে এবং ওজন ২ কেজি বা তার কম হলে তার চোখ অবশ্যই ৩০ দিনের মধ্যে পরীক্ষা করাতে হবে।

শুরুতেই রোগটি শনাক্ত করা গেলে এবং ইনজেকশন, লেজার, রেটিনা অপারেশন ইত্যাদির মাধ্যমে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে পারলে বেশিরভাগ সময় দৃষ্টিশক্তি রক্ষা করা সম্ভব।

লেখক : চিকিৎসক, বারডেম হাসপাতাল

চেম্বার : আইডিয়াল আই কেয়ার সেন্টার

৩৮/৩-৪, রিং রোড, শ্যামলী, আদাবর

০১৯২০৯৬২৫১২

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে