কর্নিয়ায় ইনফেকশন হলে করণীয়

  ডা. মো. ছায়েদুল হক

১২ জানুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাহ্যিক কোনো বস্তু চোখের কর্নিয়ার টিস্যুতে প্রবেশ করলে অনেক সময় কর্নিয়া তিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। যেমনÑ চোখে খোঁচা লাগলে এ সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা বাড়ে। এ ছাড়া অনেক সময় অপরিষ্কার কনট্যাক্ট লেন্স থেকে ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাক কর্নিয়ায় প্রবেশ করতে পারে। ফলে প্রদাহ বা জ্বালাপোড়া ও কেরাটিটিস নামক কর্নিয়ার ইনফেকশন হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এ ইনফেকশনের জন্য দৃষ্টির স্বচ্ছতা কমে যেতে পারে, কর্নিয়া থেকে তরল নিঃসারিত হতে পারে এবং কর্নিয়া য়প্রাপ্তও হতে পারে। কর্নিয়ার ইনফেকশনের কারণে কর্নিয়ায় তের সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। কর্নিয়ার তের জন্য দৃষ্টি তিগ্রস্ত হলে তা প্রতিস্থাপন করা লাগতে পারে। সাধারণত কর্নিয়ার ইনফেকশন যত তীব্র হয়, এটির কারণে সৃষ্ট লণ ও জটিলতা তত তীব্র আকার ধারণ করে। মূলত কনট্যাক্ট লেন্সের ব্যবহারের কারণেই কর্নিয়ায় এ সমস্যা দেখা দেয়। ব্যাকটেরিয়ারোধী আইড্রপ ব্যবহারের মাধ্যমে কর্নিয়া ইনফেকশন নিরাময় করা সম্ভব। তবে এটি তীব্র আকার ধারণ করলে বেশি মাত্রার অ্যান্টিবায়োটিক ও ছত্রাকরোধী ওষুধ গ্রহণ করা প্রয়োজন দেখা দেয়। এ ছাড়া প্রদাহ বা জ্বালাপোড়া কমানোর জন্য স্টেরয়েড আইড্রপ ব্যবহার করা যেতে পারে। কর্নিয়া ইনফেকশন সম্পূর্ণভাবে নির্মূল করার জন্য বেশ কয়েক মাস ধরে চক্ষুবিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে।

কারণ : কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহারের েেত্র পরিচ্ছন্নতার অভাবের কারণে মূলত কর্নিয়া ইনফেকশন হয়ে থাকে। সাধারণত ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস ও অণুজীবের সংক্রমণের কারণে কর্নিয়া ইনফেকশন হয়ে থাকে। এ সংক্রমণের কারণে চোখ লাল হয়ে যায় এবং ফুলে ওঠে। কর্নিয়া ইনফেকশন তীব্র আকার ধারণ করলে কর্নিয়ার আকার পরিবর্তিত হয়ে পড়ে এবং এ কারণে অ্যাসটিগম্যাটিজম হতে পারে। এ ছাড়া ত সৃষ্টি হওয়ার কারণে কর্নিয়া দুর্বলও হয়ে যেতে পারে। আঘাত লাগায় চোখের উপরিতলে সৃষ্ট অস্বাভাবিকতার কারণেও কর্নিয়া ইনফেকশন হতে পারে। তাই সাবধান থাকা জরুরি।

লেখক : চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞ

প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক

চক্ষুবিজ্ঞান প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতাল, ঢাকা

চেম্বার : ন্যাশনাল আই কেয়ার সেন্টার, শ্যামলী, ঢাকা।

০১৯২০৯৬২৫১২

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে