কবিতা

  অনলাইন ডেস্ক

১১ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ফারজানা সিকদার

বৃষ্টিমাখা হেমন্তে

বৃষ্টিমাখা মেঘময় আলো-আঁধারী হেমন্ত দুপুরে

স্বরণ-বেদনায় অশ্রুনেত্রে বিরহেরে হিয়া

প্রণয় অঙ্গেরঙ্গের তালে দক্ষিণা হাওয়ায়

নিভৃতে নীরবে মিশে যায় হায়

হৃদয়ো কাননের মালতীমঞ্জুরী লতায়

শরৎ যে গত এই তো সেদিন

নিস্তব্ধ রাতের আঁধারে চুপিসারে

অবেলার কিছু শিউলি আজও ফোটে

ঝরে পড়ে হেমন্ত শিশির ভোরে

সিক্ত অযতনে মন পবনে হঠাৎ বৃষ্টিজলে

হলুদঝরা পাতাল ভিড়ে

আজিকার হেমন্ত বাতায়নে

পাখি আমার একলা পাখি

উদাস চোখে খুব যে একা

রি রি শীতে চুপসে গেছে আহা!

আব্দুল্লাহ শুভ্র ইয়াছিন

অনুপল

অনুপল তুমি। কতিপয় দুর্বৃত্ত প্রেমিকের ঘুম হারাম করে দেওয়া আফ্রোদিতির খোলা দৃষ্টি; যেন তারায় তারায় লাখো বছরের অভিলাষ। হাওয়ায় বয়ে চলা তোমারই ত্বক ঘেঁষে যাওয়া সুগন্ধিÑ এপাড়া ওপাড়ার ছেলে-বুড়োর স্বস্তিদায়ক ভ্রমে বসেছে। কি দারুণ চোখের আঁধারে রুপা ঝলমলে দৃশ্যকল্প তোমারÑ শব্দের ভারে ম্লান হয়ে যাওয়া প্রথম স্পর্শিয়ার কবিতায় মৃত্যুর মতো। আরও শব্দ খুঁজে নেওয়ার নির্জলা ব্যস্ততায়Ñ অনুর্বর মন সফেদ বিপ্লবের সহযাত্রী হয়েছে। স্মরণে এসেছে যত উপমা। অবাধ্য খোলা চুলের লাজহীন উড়ে চলা-নীল বসনায় তুমি! দুপুর স্মরণে আনা উষ্ণ রৌদ্দুরের কি ভীষণ কটমটে রণরাজ যেন কবিতায় যে পেখম মেলেছ অনুভূতি দলের গাঢ় রঙা ময়ূরীর মতো! বিনাশী পাতার সোনালি মুকুরে অল্প অল্প করে সঞ্চিত প্রত্যাশায়Ñ যারা দেখেনি, তারাও ভেবে দেখেছে মনের প্রিয় গর্ভে অনুরাগের ভ্রƒণ ধারণ হয়েছে যেন! অসম্ভব তুমি নিঃস্ববাদীদের বিরোধিতায় মেলে দিয়েছ সহস্র দোয়েলের সাদা-কালো ডানা আস্থায় এসেছ, রাতের আকাশের মতো, ভীরু নিঃশ্বাসের স্বাধীনতার মতো!

 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে