বাংলাদেশি তরুণী মাহমুদার নাসা জয়

  রওনক বিথী

২৫ নভেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জয় শুধু দেশেই নয়, দেশের সীমানা পেরিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও বাংলাদেশি নারীরা বিজয়ের মুকুট পরেছেন বহুবার। এবার নাসা জয়ের মধ্য দিয়ে এ জয়যাত্রায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন বাংলাদেশের তরুণী মাহমুদা সুলতানা। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার ইনোভেটর অব দ্য ইয়ার (বর্ষসেরা) উদ্ভাবক পুরস্কার পেয়েছেন বাংলাদেশের মাহমুদা সুলতানা। মহাকাশে সহজে ব্যবহার করা যায়, এমন ছোট আর যুগান্তকারী প্রযুক্তিযন্ত্র আবিষ্কারের জন্য ‘নাসা গডার্ড এফওয়াই১৭ আইআরএডি ইনোভেটর অব দ্য ইয়ার ২০১৭’ পুরস্কার পেয়েছেন মাহমুদা। নাসার গডার্ড মহাকাশ উন্নয়ন কেন্দ্রের অভ্যন্তরীণ গবেষণা ও উন্নয়ন (আইআরএডি) কর্মসূচির অধীনে এ পুরস্কার পেয়েছেন মাহমুদা। তিনি নাসায় কর্মরত সর্বকনিষ্ঠ নারী।

গত ২৪ অক্টোবর নাসার ওয়েবসাইটে মাহমুদা সুলতানাকে ২০১৭ সালের সেরা উদ্ভাবকের পুরস্কার দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়। সম্প্রতি নাসার সাময়িকী ‘কাটিং এজ’-এর সর্বশেষ সংখ্যার প্রচ্ছদ প্রতিবেদনই করা হয়েছে তাকে নিয়ে। তিন পৃষ্ঠার সেই প্রতিবেদনে শুধু তাকে নিয়ে নাসার বিভিন্ন বিজ্ঞানীদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ পেয়েছে। নাসা গর্ডাডের চিফ টেকনোলজিস্ট জানালেনÑ এত অল্প বয়সে এত বেশি দক্ষতা সে দেখিয়েছে গবেষণা আর আবিষ্কারে, আমি শুধু কল্পনাই করতে পারি ভবিষ্যতে সে কী করবে! আমরা ভাগ্যবান যে, সে আমাদের সঙ্গে কাজ করতে এসেছিল! চিফ টেকনোলজিস্ট টেড সোয়ানসন মনে করেন, একজন সফল আবিষ্কারক হওয়ার সব গুণ আছে তার মধ্যে!

মাহমুদা সুলতানা কৈশোরে পরিবারের সঙ্গে পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায়। এরপর সাদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক করেন। ২০১০ সালে তিনি ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি) থেকে পিএইচডি করেন। এরপর বেল ল্যাবরেটরিতে শিক্ষানবিস গবেষক হিসেবে কাজ শুরু করেন। বেল ল্যাবরেটরিতে শিক্ষানবিস গবেষক হিসেবে কর্মরত অবস্থায় মাহমুদা এমআইটির এক জব ফেয়ারে নাসার গডার্ড ডিটেক্টর সিস্টেম শাখায় চাকরির প্রস্তাব পান। মাহমুদা সুলতানার বড় চাচাও নাসার এমস রিসার্চ সেন্টারে পদার্থবিদ হিসেবে কাজ করেছেন। চাচার কাছ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ছোটবেলা থেকেই মাহমুদা নাসার বিভিন্ন গবেষণা, অর্জন নিয়ে জানা ও পড়ার প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠেন।

২০১৭ সালের নাসার বর্ষসেরা উদ্ভাবক মাহমুদা সুলতানা গবেষণার বিষয় ন্যানো টেকনোলজি, থ্রিডি প্রিন্টিং ও ডিটেক্টর ডেভেলপমেন্ট। এমআইটির সঙ্গে মিলে কোয়ান্টাম ডট প্রযুক্তির মাধ্যমে বিভিন্ন আলো তরঙ্গ ডিটেক্টর তিনি গবেষণা করছেন। থ্রিডি প্রিন্টার আরও সহজ করার জন্য তার আবিষ্কার ‘গ্রাউন্ড ব্রেকিং’ বলে বিবেচিত হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে